বিজ্ঞাপন

সরে দাঁড়ালেন ইতালির প্রধানমন্ত্রী

January 26, 2021 | 6:51 pm

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

করোনা সংকট মোকাবিলা নিয়ে সমালোচনার মুখে সরে দাঁড়িয়েছেন ইতালির প্রধানমন্ত্রী জিউসেপ কোঁতে। খবর ডয়চে ভেলে।

বিজ্ঞাপন

মঙ্গলবার (২৬ জানুয়ারি) প্রেসিডেন্ট সার্জিও মাত্তারেলার কাছে পদত্যাগপত্র জমা দেওয়ার পর তা গৃহীত হয়েছে।

ইতালির প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, মঙ্গলবার স্থানীয় সময় সকাল ৯টায় মন্ত্রিসভার বৈঠক ডেকে পদত্যাগের ইচ্ছার কথা মন্ত্রীদের জানান এবং তারপর প্রেসিডেন্টের কাছে পদত্যাগ পত্র জমা দেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

এ ব্যাপারে বিবিসি জানিয়েছে, অনেক ভেবেচিন্তেই পদত্যাগের এ পদক্ষেপ নিয়েছেন কোঁতে।

এর মধ্য দিয়ে, তিনি সরকার গঠনের আরেকটি সুযোগ বাঁচিয়ে রাখলেন। জোটসঙ্গী একটি রাজনৈতিক দল তার পক্ষ ত্যাগ করার পর সিনেটে সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারান তিনি। তবে, পদত্যাগের পর কোঁতেকে আরও শক্তিশালী একটি সরকার গড়ার সুযোগ দিতে পারেন প্রেসিডেন্ট - জানাচ্ছে বিবিসি।

বিজ্ঞাপন

এদিকে, কোঁতে এর আগের সপ্তাহে পার্লামেন্টে দুই দফা আস্থাভোটে টিকে গেলেও, ক্ষমতাসীন জোট থেকে সাবেক প্রধানমন্ত্রী মাত্তেও রেনজির ইতালিয়া ভিভা পার্টি বেরিয়ে যাওয়ায় তিনি সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারান।

মূলতঃ কোঁতে সরকারের করোনা সংক্রমণ পরিস্থিতি মোকাবিলা এবং অর্থনৈতিক মন্দা নিয়ে বিরোধের জেরে জোটে ভাঙন ধরে। রেনজির দলের শূন্যস্থান পূরণ করতে মধ্যপন্থি এবং স্বতন্ত্র সিনেটরদেরকে জোতে আনার চেষ্টা করেও সফলতা মেলেনি। আর সে কারণেই পদত্যাগ করা ছাড়া কোঁতের আর কোনো উপায় ছিল না। এখন, তিনি নতুন একটি চুক্তির চেষ্টা করে নতুন জোট নিয়ে ফের ক্ষমতায় আসতে পারেন। তবে, আগাম নির্বাচন এড়াতে বেশ দ্রুত জোট গোঠন প্রক্রিয়া সারতে হবে তাকে।

বিজ্ঞাপন

প্রসঙ্গত, ২০১৮ সালে ইতালির প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পর দুইটি ভিন্ন মতাদর্শের সরকারকে নেতৃত্ব দিয়েছেন কোঁতে। প্রথম, ১৫ মাস তিনি নেতৃত্ব দিয়েছেন অ্যান্টি-এসটাবলিশমেন্ট ফাইভ স্টার মুভমেন্ট (এম৫এস) এবং কট্টর ডানপন্থি লিগ কোয়ালিশনের। এর মধ্যেই, আগাম নির্বাচনের চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে লিগ নেতা মাত্তেও সালভিনি জোট ছেড়ে বেরিয়ে গেলে ২০১৯ সালে ফাইভ স্টার মুভমেন্ট (এম৫এস) এবং মধ্য বামপন্থি ডেমোক্রেট পার্টি (পিডি) নিয়ে গড়া জোট সরকারের নেতৃত্ব দেন তিনি।

সারাবাংলা/একেএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন