বিজ্ঞাপন

মেয়র আতিকের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার শুনানি ১১ এপ্রিল

January 27, 2021 | 5:39 pm

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: রাজধানীর মিরপুরে বিহারি পল্লিতে উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করায় ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র আতিকুল ইসলামসহ সাত জনের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার অভিযোগের শুনানি অনুষ্ঠিত হবে। আগামী ১১ এপ্রিল আপিল বিভাগের নিয়মিত বেঞ্চে শুনানির জন্য দিন ঠিক করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

রাজধানীর মিরপুরে বিহারি পল্লিতে উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করায় ডিএনসিসি মেয়র আতিকুল ইসলামসহ সাত জনের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার অভিযোগ আনার বিষয়ে করা আবেদন শুনানির জন্য সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগে পাঠিয়ে দিয়েছেন চেম্বার জজ আদালত। মঙ্গলবার (২৬ জানুয়ারি) আপিল বিভাগের বিচারপতি মো. নুরুজ্জামান এর চেম্বারজজ আদালত এ আদেশ দেন।

চেম্বার জজ আদালতে সিটি করপোরেশনের পক্ষে শুনানি করেন রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বিশ্বজিৎ দেবনাথ। অন্যদিকে, বিহারিদের আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস কাজল। তার সঙ্গে ছিলেন আইনজীবী সগীর হোসেন লিয়ন।

বিজ্ঞাপন

আদেশের বিষয়টি বুধবার (২৭ জানুয়ারি) সারাবাংলাকে নিশ্চিত করেছেন আবেদনের পক্ষের আইনজীবী সগির হোসেন লিয়ন।

তিনি বলেন, মেয়রসহ সাত জনের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার অভিযোগ আনার বিষয়ে আপিল বিভাগের চেম্বার জজ আদালত কোনো আদেশ না দিয়ে (সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগে) নিয়মিত বেঞ্চে শুনানির জন্য পাঠিয়েছেন। তাই সেটির ওপর আগামী ১১ এপ্রিল শুনানি অনুষ্ঠিত হবে।

বিজ্ঞাপন

এর আগে গত ২৪ জানুয়ারি সুপ্রিম কোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় ভুক্তভোগীদের পক্ষে তাদের আইনজীবী সৈয়দ মাহবুবুর রহমান আদালত অবমাননার আবেদন করেন। আপিল বিভাগের চেম্বার জজ আদালতে এ আবেদন দায়ের করেন উর্দুভাষী যুব-ছাত্র আন্দোলনের সাধারণ সম্পাদক মাকসুদ আলম, সহসভাপতি মো. জীবন ও নাদের ইসলাম আন্নু।

আদালত অবমাননার অভিযোগে মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম ছাড়াও ডিএনসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা, প্রধান প্রকৌশলী, পুলিশ কমিশনার, ডিএমপির মিরপুর জোনের উপপুলিশ কমিশনার, ডিএনসিসির পাঁচ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আব্দুর রউফ নান্নু এবং পল্লবী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে (ওসি) বিবাদী করা হয়েছে। তাদের সবার বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার অভিযোগ এনেছেন বিহারিরা।

বিজ্ঞাপন

আইনজীবী সগীর হোসেন লিয়ন আরও বলেন, এর আগেও ডিএনসিসি মিরপুরের বিহারি ক্যাম্পগুলো উচ্ছেদ করার চেষ্টা করেছিল। আমরা ২০২০ সালের ২৩ নভেম্বর ক্যাম্প উচ্ছেদ না করতে নিষেধাজ্ঞা চেয়ে আপিল বিভাগের চেম্বারজজ আদালতে আবেদন করেছিলাম। তখন আগামী ২ মে পর্যন্ত উভয়পক্ষকে স্থিতাবস্থা বজায় রাখার নির্দেশ দিয়েছিলেন আদালত।

কিন্তু আদালতের সেই আদেশ না মেনে গত বৃহস্পতিবার (২১ জানুয়ারি) মিরপুরের বিহারি ক্যাম্পগুলোতে ভাঙচুর চালিয়েছে ডিএনসিসি। এজন্য তাদের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার পিটিশন দেওয়া হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

ডিএনসিসির উচ্ছেদ অভিযানের পর গত ২৩ জানুয়ারি মিরপুরে বিহারিদের ক্যাম্পে এর প্রতিবাদে মানববন্ধন করে বিহারিদের বিভিন্ন সংগঠন।

বিহারিদের তিনটি সংগঠনের পক্ষ থেকে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে অভিযোগ করে বলা হয়, আপিল বিভাগের আদেশ অমান্য করে মিরপুরের বিহারি ক্যাম্পে ডিএনসিসি উচ্ছেদ অভিযান চালাচ্ছে। প্রতিবাদে মিরপুরে মানববন্ধন করে উর্দু স্পিকিং পিপলস ইউথ রিহ্যাবিলিটেশন মুভমেন্ট, ওয়েলফেয়ার মিশন অব বিহারিজ ও এসপিজিআরসি।

সারাবাংলা/কেআইএফ/এমআই

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন