বিজ্ঞাপন

জমে উঠেছে ঢাকা টেস্ট

February 13, 2021 | 4:01 pm

স্পোর্টস ডেস্ক

ঢাকা টেস্টের দ্বিতীয় দিন শেষে অনেকটাই পিছিয়ে পড়েছিল বাংলাদেশ। তৃতীয় দিনে এসে গল্পটা পাল্টে গেল। ক্যারিবিয়ানদের চেয়ে এখন খুব বড় ব্যবধানে পিছিয়ে নেই মুমিনুল হকের দল। লিটন কুমার দাস ও মেহেদি হাসান মিরাজের দারুণ এক জুটিতে প্রথম ইনিংসে শেষ পর্যন্ত ২৯৬ রান তুলেছেন স্বাগতিকরা। পরে বোলিং করতে নেমে ওয়েস্ট ইন্ডিজের দ্বিতীয় ইনিংসের তিনটা উইকেটও তুলে নিয়েছে বাংলাদেশ।

বিজ্ঞাপন

দুই ইনিংস মিলিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের লিড এখন ১৫৪। সফরকারীদের হাতে এখনো সাত উইকেট আছে বলে লিড যে বাড়বে তা নিশ্চিতই। তবে বাংলাদেশি বোলাররা লিডটা আড়াইশ'র মধ্যে রাখতে পারলে মুমিনুলদের টেস্ট জয়ের ভালো সুযোগ তৈরি হবে। আজ শেষ বিকেলে বাংলাদেশি স্পিনাররা যেভাবে বোলিং করলেন তাতে এমন প্রত্যাশা করাই যায়।

প্রথম ইনিংসে ১১৩ রানে পিছিয়ে পড়া বাংলাদেশকে ম্যাচে ফিরতে হলে দ্বিতীয় ইনিংসে দুর্দান্ত বোলিং করতেই হতো। স্বাগতিকরা আজ শেষ বিকেলে দ্বিতীয় ইনিংসের শুরুটা সেভাবে করতেও পেরেছেন। দলীয় ১১ রানের মাথায় ওয়েস্ট ইন্ডিজের অধিনায়ক ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েটকে ফেরান নাঈম হাসান। নাঈমের লেগ স্ট্যাম্পের বাইরের বলে ব্যাট চালিয়েছিলেন ব্র্যাথওয়েট। ঠিকমতো ব্যাটে-বলে করতে পারেননি। বলে চলে যায় উইকেটরক্ষক লিটন কুমার দাসের গ্লাভসে। আম্পায়ার অবশ্য প্রথমে আবদনে সাড়া দেননি। লিটন সঙ্গে সঙ্গেই রিভিউ নিয়ে নেন। পরে রিপ্লেতে দেখা যায় বল লিটনের গ্লাভসে জমা পড়ার আগে ব্র্যাথওয়েটের গ্লাভসে চুমু দেয়, আউট।

বিজ্ঞাপন

জমে উঠেছে ঢাকা টেস্ট

২২ রানের মাথায় মোসলেকে সৌম্য সরকারের ক্যাচ বানিয়ে টেস্ট ক্যারিয়ারের একশ উইকেটের মাইলফলক স্পর্শ করেন মেহেদি হাসান মিরাজ। ২৪তম টেস্ট খেলতে নেমে একশ টেস্ট উইকেট পেলেন মিরাজ, বাংলাদেশের পক্ষে যা দ্রুততমর রেকর্ড। আগের রেকর্ডটি ছিল তাইজুল ইসলামের (২৫ ম্যাচে ১০০ উইকেট)। দিনের শেষভাগে জন ক্যাম্পাবল তাইজুল ইসলামের বলে বোল্ড হলে ৪১/৩ স্কোর নিয়ে দিন শেষ করেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

বিজ্ঞাপন

এর আগে ব্যাট হাতে প্রতিরোধের সৌন্দর্য ছড়িয়েছেন লিটন কুমার দাস ও মেহেদি হাসান মিরাজ। লিটন-মিরাজ যখন উইকেটে নতুন তখন বাংলাদেশের ফলোঅনের শঙ্কা প্রবল। সেখান থেকে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে পেরেছেন দুই তরুণ। দুজন রানের মধ্যেই ছিলেন, চট্টগ্রাম টেস্টে রান পেয়েছেন দুজনই। সেই আত্মবিশ্বাস নিয়ে আজ ব্যাটিং করতে দেখা গেল দুজনকে।

দুজনেই উইকেট আগলে রেখে ধীরে ধীরে এগুতে চেয়েছেন। সপ্তম উইকেটে ১২৮ রানের জুটির পথে ফিফটি পেয়েছেন লিটন-মিরাজ। তাদের মনে হয়তো সেঞ্চুরির প্রত্যাশাও তৈরি হয়েছিল। কিন্তু চা বিরতির পর যেন হঠাৎ-ই হুড়মুড় করে ভেঙে পড়ল বাংলাদেশ। রাকিম কর্নওয়ালের নিচু হওয়া এক ডেলিভারিতে সুইপ করতে গিয়ে ক্যাচ আউট লিটন। ১৩৩ বল খেলে ৭টি চারের সাহায্যে ৭১ রান করে ফিরেছেন ডানহাতি ক্রিকেটার।

বিজ্ঞাপন

জমে উঠেছে ঢাকা টেস্ট

তারপর দলীয় খাতায় আর ১৫ রান যোগ হতেই বাংলাদেশ অলআউট। লিটন ফেরার ওভারেই নাঈম হাসানকে (০) ফিরিয়েছেন রাকিম। পরের ওভারে ফিরে যান মেহেদি হাসান মিরাজও। ১৪০ বল খেলে ৬টি চারের সাহায্যে ৫৭ রান করে ফেরেন মিরাজ। বড় রান পাননি তাইজুল (১৩), রাহি (১)। ওয়েস্ট ইন্ডিজের পক্ষে কর্নওয়াল ৭৪ রান খরচায় নিয়েছেন ৫ উইকেট। শ্যানন গ্যাব্রিয়েল ৩টি ও আলগরি জোসেফ ২টি উইকেট নিয়েছেন।

বিজ্ঞাপন

দিনের শুরুতে বাংলাদেশের পক্ষে প্রথম প্রতিরোধটা গড়েছিলেন মুশফিকুর রহিম ও মোহাম্মদ মিঠুন। গতকাল ইনিংসের শুরুতেই বিপদে পড়া বাংলাদেশের হাল ধরা মিঠুন-মুশফিক আজ সকালেও দারুণভাবে সামলেছেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের বোলিং আক্রমণ। তবে মুশফিক ফিফটি পেলেও বড় স্কোর খেলতে ব্যর্থ হয়েছেন মিঠুন।

৮৬ বল খেলে ১৫ রান করে ফিরেছেন মিঠুন। মুশফিক ১০৫ বল খেলে ৫৪ রান করে আউট হয়েছেন। প্রথম ইনিংসে ৪০৯ রান তুলেছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

উল্লেখ্য, নিজেদের প্রথম ইনিংসে ৪০৯ রান তুলেছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

সারাবাংলা/এসএইচএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন