বিজ্ঞাপন

হল খোলার দাবিতে ২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম রাবি শিক্ষার্থীদের

February 21, 2021 | 3:00 pm

আবু সাঈদ সজল

রাবি: ক্যাম্পাস ও আবাসিক হল খুলে শিক্ষা কার্যক্রম স্বাভাবিক করার দাবিতে উত্তাল হয়ে উঠেছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) ক্যাম্পাস। ২৪ ঘণ্টার মধ্যে তাদের দাবির বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন সিদ্ধান্ত না জানালে কঠোর কর্মসূচির হুঁশিয়ারিও দেন তারা।

বিজ্ঞাপন

রোববার (২১ ফেব্রুয়ারি) বেলা ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহন মার্কেট থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিল শুরু হয়ে ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ শেষে উপাচার্য ভবনের সামনে এসে অবস্থান নেয়। এ সময় শিক্ষার্থীরা স্লোগান দেন, ‘ভ্যাকসিন আনো ভ্যাকসিন দাও, ক্যাম্পাস খুলে দাও’।

শিক্ষার্থীরা বলেন, দেশের সবকিছু স্বাভাবিক থাকলেও বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবেই আবাসিক হল বন্ধ রেখেছে। উপাচার্যকে তারা একাধিকবার হল খোলার বিষয়ে অনুরোধ ও স্মারকলিপি প্রদানসহ বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করলেও প্রশাসন কোনো পদক্ষেপ নিচ্ছে না। চলতি মাসেই হলগুলো খোলার ঘোষণা না দিলে, এই আন্দোলন থেকেই তারা কঠোর কর্মসূচিতে যাবেন।

বিজ্ঞাপন

শিক্ষার্থী মহিউদ্দিন মানিক বলেন, ময়মনসিংহ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী মেডিকেলসহ অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা কার্যক্রম চলছে। তাহলে আমাদের ক্যাম্পাস ও হল বন্ধ কেন? অনতিবিলম্বে ক্যাম্পাস ও হল খুলে দেওয়াসহ সকল বর্ষের আটকে থাকা পরীক্ষার তারিখ ঘোষণার দাবি জানাচ্ছি। এ বিষয়ে কর্তৃপক্ষ কোনো প্রকার অনীহা বা উদাসীনতা দেখালে ছাত্র সমাজ দুর্বার আন্দোলন গড়ে তুলবে।

আন্দোলনে অংশ নেওয়া শিক্ষার্থী মাহমুদ সাকি বলেন, এতো দিন চুপ ছিলাম, তাকিয়ে ছিলাম প্রশাসনের বিবেকের দিকে। কিন্তু তাদের বিবেক নাড়া দেয়নি। তাদের তো বেতন ভাতা আনন্দ ফুর্তি বন্ধ নেই। তাহলে আমাদের হল ক্যাম্পাস বন্ধ কেন?
তিনি আরও বলেন, প্রতিদিন জুবেরি ভবনে আড্ডা হচ্ছে। প্রশাসন ভবনে মিটিং হচ্ছে। সেখানে করোনা ভাইরাস নেই। করোনা শুধু আমার ক্লাস রুমে। ছাত্র সমাজ ৫২ তে স্লোগান তুলে ছিল টিকতে পারিনি পাকিস্তানিরা। ৭১ এ স্লোগান তুলেছিল টিকতে পারেনি। আমাদেরকে উত্তেজিত করবেন না। হলের তালা কীভাবে ভাঙতে হয় তা আমাদের উত্তরসূরিরা আমাদের কে শিখিয়েছে।

বিজ্ঞাপন

অবস্থান কর্মসূচি থেকে ২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দিয়েছে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। তাদের দাবি ২৪ ঘণ্টার মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন সিদ্ধান্ত না জানালে আগামীকাল (সোমবার) থেকে কঠোর আন্দোলনে যাবেন তারা। এছাড়া ফেব্রুয়ারি মাসেই আবাসিক হলগুলো খোলার ঘোষণা না দিলে আজকের এই আন্দোলন থেকেই কঠোর কর্মসূচিতে যাওয়ার হুঁশিয়ারিও দেয় শিক্ষার্থীরা।

সারাবাংলা/এএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন