বিজ্ঞাপন

নির্বাচন ঠেকাতে ‘বোমাবাজির’ আরেক মামলায় আসলামের বিচার শুরু

February 22, 2021 | 7:21 pm

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

চট্টগ্রাম ব্যুরো: সংবাদ সম্মেলন করে মুক্তি দাবির চারদিনের মাথায় কারাবন্দি বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব আসলাম চৌধুরীর বিরুদ্ধে নাশকতার অভিযোগে সাতবছর আগে দায়ের হওয়া একটি মামলায় অভিযোগ গঠন করে বিচার শুরুর আদেশ দিয়েছেন আদালত। একই মামলায় আসলাম চৌধুরীসহ মোট ৪৬ আসামির বিরুদ্ধে বিচার শুরু হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

সোমবার (২২ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে জেলা জজ পদমর্যাদার চট্টগ্রামের সন্ত্রাসবিরোধী ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. আব্দুল হালিম অভিযোগ গঠনের ওপর শুনানি শেষে এ আদেশ দিয়েছেন। আদালত ১৫ মার্চ থেকে সাক্ষ্যগ্রহণের সময় নির্ধারণ করেছেন বলে জানিয়েছেন ট্রাইব্যুনালের বিশেষ পিপি মনোরঞ্জন দাশ।

২০১৬ সালের ১৫ মে রাজধানীর কুড়িল বিশ্বরোড থেকে গ্রেফতার হয়েছিলেন আসলাম চৌধুরী। ইসরায়েলের গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদের এজেন্টের সঙ্গে হাত মিলিয়ে ‘বাংলাদেশের সরকার উৎখাত ষড়যন্ত্র করার’ অভিযোগে গ্রেফতারের পর থেকে প্রায় পাঁচবছর ধরে কারাগারে আছেন এই বিএনপি নেতা।

বিজ্ঞাপন

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী মনোরঞ্জন দাশ সারাবাংলাকে বলেন, ‘অভিযোগ গঠনের শুনানির সময় আসলাম চৌধুরীসহ অভিযোগপত্রভুক্ত ৪৫ আসামি আদালতে হাজির ছিলেন। একজন আসামির পক্ষে সময়ের আবেদন করা হয়। ৪৫ আসামির সবাই মামলা থেকে অব্যাহতি দেওয়ার আবেদন করেন। আদালত আসামি ও রাষ্ট্রপক্ষের বক্তব্য শুনে অভিযোগ গঠনের আদেশ দেন।’

২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির জাতীয় সংসদ নির্বাচন ঠেকাতে ডাকা ২০ দলীয় জোটের হরতাল চলাকালে নগরীর সিনেমা প্যালেস এলাকায় গাড়ি ভাঙচুর ও ককটেল বিস্ফোরণের অভিযোগে আসলাম চৌধুরীসহ একাধিক আসামির বিরুদ্ধে কোতোয়ালী থানায় মামলাটি দায়ের করা হয়েছিল। ঢাকায় গ্রেফতারের পর পুলিশের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আদালতের নির্দেশে ২০১৬ সালের ২৯ জুন আসলাম চৌধুরীকে ওই মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয় বলে পিপি মনোরঞ্জন জানান।

বিজ্ঞাপন

এর আগে, ২০২০ সালের ১০ ডিসেম্বর নাশকতার আরও একটি মামলায় চট্টগ্রামের আদালতে আসলাম চৌধুরীসহ ৪২ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে বিচার শুরুর আদেশ দেন আদালত। ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে নাশকতার অভিযোগে সীতাকুণ্ড থানায় দায়ের হওয়া ওই মামলায় সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু হবে ২২ মার্চ থেকে।

গত শুক্রবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে আসলাম চৌধুরীর মুক্তি দাবি করেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/আরডি/এমআই

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন