বিজ্ঞাপন

ভাষার চেতনা ছড়িয়ে দিতে সমন্বিত প্ল্যাটফর্ম প্রতিষ্ঠার তাগিদ

February 24, 2021 | 8:45 pm

শাহীনূর সরকার

ঢাকা: পৃথিবীব্যাপী বাংলা ভাষার চেতনা ছড়িয়ে দিতে সরকারি-বেসরকারি সমন্বয়ে একটি প্ল্যাটফর্ম প্রতিষ্ঠার তাগিদ দিয়েছেন বিশিষ্টজনেরা। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সমন্বয় ও উদ্যোগের দায়িত্ব নিতে পারে বলে মত তাদের।

বিজ্ঞাপন

শনিবার (২০ ফেব্রুয়ারি) সমসাময়িক বিষয় নিয়ে সারাবাংলা.নেটের বিশেষ আয়োজন সারাবাংলা ফোকাসে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে তারা এমন মতামত জানান।

অনুষ্ঠানের এ পর্বের বিষয় ছিল ‘বিশ্বায়ন এবং বাংলাভাষা ও সংস্কৃতি’। সারাবাংলা.নেটের স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট এম এ কে জিলানীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে যুক্ত ছিলেন বেলজিয়াম এবং ইউরোপীয় ইউনিয়নে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মাহবুব হাসান সালেহ, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব ও সম্প্রীতি বাংলাদেশ-এর আহ্বায়ক পীযূষ বন্দ্যোপাধ্যায় এবং রবীন্দ্র সঙ্গীত শিল্পী অদিতি মহসিন।

বিজ্ঞাপন

অনুষ্ঠানে পীযূষ বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘বাংলা ভাষা শুধুমাত্র বাঙালিরাই চর্চা করেছে এমনটি নয়। ইতিহাসে অনেক দেশ, বিশ্ববিদ্যালয় ও বিদেশির নাম আছে যারা বাংলা ভাষার চর্চা করেছেন এবং এখনো করছে।’

অদিতি মহসিন বলেন, ‘বাংলাভাষার মাধ্যমে শত বছর আগে রবীন্দ্রনাথ প্রাচ্যের সঙ্গে পাশ্চাত্যের যোগাযোগ তৈরি করেছিলেন।’ তবে আধুনিক এ যুগে বিশ্ব যখন যোগাযোগের দিক দিয়ে অনেক বেশি এগিয়েছে, সেই গতিতে বাংলার সংস্কৃতি, ভাষা ও ঐতিহ্যকে বিশ্বের কাছে কতটুকু পৌঁছে দিতে পারছি সে বিষয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

এছাড়া আমাদের সংস্কৃতি ও ভাষার জায়গাগুলোতে আমরা এখনো দ্বিধায় আছি বলে মনে করেন অদিতি মহসিন।

নতুন প্রজন্মের বাংলা ভাষার প্রতি যে অবজ্ঞা এর জন্য তরুণরা দায়ী বলে মনে করেন না মাহবুব হাসান সালেহ। এজন্য তাদের প্রজন্মকে দায়ী করেন তিনি। বলেন, ‘ভাষা আন্দোলন, মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস ও বঙ্গবন্ধুকে নতুন প্রজন্মের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দিতে আমরা পারিনি।’

বিজ্ঞাপন

এর পেছনে অন্যতম কারণ হিসেবে মনে করেন, আমাদের প্রাতিষ্ঠানিক সরকারি প্ল্যাটফর্ম এখন পর্যন্ত তৈরি হয়নি। এছাড়া বহির্বিশ্বে আমাদের সংস্কৃতিকে তুলে ধরার জন্য এই প্ল্যাটফর্মের গুরুত্ব তুলে ধরে মাহবুব হাসান বলেন, ‘আমাদের ভাষা ও সংস্কৃতি এখনো অনেক শক্তিশালী।’

তিনি আরও বলেন, ‘বিদেশের মাটিতে আমরা আপ্রাণ চেষ্টা করে যাচ্ছি বাংলাদেশের ভাষা ও সংস্কৃতিকে তুলে ধরার জন্য। প্রাতিষ্ঠানিক প্ল্যাটফর্ম থাকলে সেই অগ্রযাত্রা আরও ত্বরান্বিত হবে।’

বিজ্ঞাপন

এ ধরনের সাংস্কৃতিক প্ল্যাটফর্ম পরিচালনা করার সক্ষমতা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের রয়েছে বলে মনে করেন মাহবুব সালেহ। তিনি বলেন, ‘ভাষা ও সংস্কৃতিকে এগিয়ে নিতে এই প্ল্যাটফর্ম বাংলাদেশকে বিশ্বের দরবারে আরও সম্মানের জায়গায় পৌঁছে দেবে।’

এ বিষয়ে একমত পোষণ করেন অদিতি মহসিনও।

সারাবাংলা ফোকাসে পীযূষ বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘আমাদের হাজার বছরের সম্পদ আছে। সেই সম্পদকে বিশ্ববাসীর কাছে তুলে ধরার ক্ষেত্রও প্রস্তুত আছে। এখন শুধু প্রয়োজন একটি পরিকল্পিত যাত্রা। এরজন্য মুক্তিযুদ্ধের সরাসরি পক্ষের, অসাম্প্রদায়িক, গণতান্ত্রিক, বাংলা সংস্কৃতির প্রতি শ্রদ্ধাশীল, বঙ্গবন্ধু যার শিরোমণি তাদের নিয়ে প্ল্যাটফর্ম তৈরি করতে হবে। তাহলেই বাংলাদেশ সম্মানের সঙ্গে দাঁড়াতে পারবে।’

প্রসঙ্গত সারাবাংলা ফোকাস প্রতি শনি, সোম ও বুধবার সারাবাংলা.নেটের ফেসবুক পেজ ও ইউটিউব চ্যানেলে সরাসরি সম্প্রচারিত হয়।

সারাবাংলা/এসএসএস/এমআই

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন