বিজ্ঞাপন

৪০ লাখ কর্মসংস্থান সৃজনে একডজন দূতকে প্রবাসীমন্ত্রীর চিঠি

February 25, 2021 | 10:34 pm

এমএকে জিলানী, স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: বিদেশে নতুন শ্রমবাজার তৈরিতে রোডম্যাপ করেছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এবং প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান বিষয়ক মন্ত্রণালয়। রোডম্যাপ অনুযায়ী, আগামী ২০৩০ সালের মধ্যে বিদেশের শ্রমবাজার থেকে ১০০ বিলিয়ন ডলার আয় এবং আফ্রিকা অঞ্চলের চারটি দেশে ৪০ লাখ নতুন কর্মসংস্থান তৈরি করতে চায় বাংলাদেশ। এই রোডম্যাপ সফল করতে কমপক্ষে একডজন দূতকে চিঠি পাঠিয়েছেন প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান বিষয়ক মন্ত্রী ইমরান আহমদ। কূটনৈতিক এই চিঠিতে কর্মসংস্থান তৈরিতে দূতদের সহযোগিতা চেয়েছেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান বিষয়ক মন্ত্রীর লেখা এ সংক্রান্ত কূটনৈতিক চিঠির একাধিক কপি সারাবাংলার হাতে রয়েছে।

এর মধ্যে একটি চিঠিতে মন্ত্রী ইমরান আহমদ লিখেছেন, সুদানে কন্ট্রাক্ট ফার্মিংয়ের ওপরে সাবেক রাষ্ট্রদূত গোলাম মসীহ দীর্ঘদিন ধরে অত্যন্ত আগ্রহের সঙ্গে গবেষণা করে বাংলাদেশের শ্রমবাজারের জন্য উজ্জ্বল ও সম্ভাবনাময় খাত সংক্রান্ত একটি প্রশংসনীয় প্রতিবেদন তৈরি করেছেন। প্রতিবেদনটি গত ২০ জানুয়ারি ফরেন সার্ভিস একাডেমিতে আয়োজিত সেমিনার পেপারে উপস্থাপন করা হয়।

বিজ্ঞাপন

সুদানে এরই মধ্যে কাতার, সৌদি আরব, সিরিয়া, জর্ডান, ইয়েমেন, লেবানন, সংযুক্ত আরব আমিরাত, চীন, ভারত ও পাকিস্তানসহ কয়েকটি দেশ কৃষি জমি লিজ নিয়েছে বলে উল্লেখ করা হয় ওই চিঠিতে। এতে আরও বলা হয়, দেশগুলো লিজ নেওয়া জমিতে খাদ্যশস্যসহ অন্যান্য কৃষিজ ফসল আবাদ করার জন্য নানামুখী প্রকল্প হাতে নিয়েছে। ওই কৃষি প্রকল্পে বাংলাদেশি কৃষক ও কর্মী পাঠানোর নতুন সম্ভাবনাময় শ্রমবাজার তৈরির জন্য দেশগুলোতে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূতদের চিঠি পাঠানো হয়েছে।

কূটনৈতিক সূত্রগুলো বলছে, কাতার, সৌদি আরব, সিরিয়া, জর্ডান, ইয়েমেন, লেবানন, সংযুক্ত আরব আমিরাত, চীন, ভারত ও পাকিস্তানসহ একাধিক দেশে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূতদের কাছে কূটনৈতিক চিঠি পাঠিয়ে বিদেশে দেশীয় শ্রমবাজার সৃজনে সহযোগিতা চেয়েছেন মন্ত্রী ইমরান আহমদ।

বিজ্ঞাপন

চিঠি পাওয়া রাষ্ট্রদূতদের একজন সারাবাংলাকে বলেন, ‘প্রবাসী মন্ত্রী জানিয়েছেন যে সুদানে অনেক দেশ কৃষি খাতে বিনিয়োগ করছে। অন্যদিকে, বাংলাদেশে কৃষি বিষয়ক প্রচুর দক্ষ কর্মী রয়েছেন। তাই যেসব দেশ সুদানে কৃষিকাজ করছে, তারা যেন বাংলাদেশি কর্মীদের কাজে লাগায়, সেটি নিশ্চিত করতে মন্ত্রী যথাসাধ্য চেষ্টা করছেন।’

এ বিষয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন বলেন, ‘এরই মধ্যে ঢাকায় নিযুক্ত সুদানের দূতের সঙ্গে আমাদের আলোচনা হয়েছে। তাদের ওখানে সুযোগ আছে। আমরা এই সুযোগ কাজে লাগাতে চাই।’

বিজ্ঞাপন

কূটনৈতিক সূত্রগুলো জানাচ্ছে, বিদেশে নতুন শ্রমবাজার তৈরির ক্ষেত্রে আফ্রিকা অঞ্চল নিয়ে গুরুত্বের সঙ্গে পরিকল্পনা করছে সরকার। আফ্রিকা অঞ্চলে শিক্ষা, স্বাস্থ্যসহ একাধিক বিষয়ে সুযোগ-সুবিধা কম থাকায় পররাষ্ট্রের কমমকর্তারা সেখানে যেতে চান না। তাই পরিকল্পনা অনুযায়ী সাফল্য নিশ্চিত করতে হলে আফ্রিকা অঞ্চলে বাংলাদেশের মিশনগুলোকে শক্তিশালী করতে হবে।

সরকারি সূত্রগুলো বলছে, স্বল্পোন্নত দেশ থেকে মধ্য আয়ের দেশে পরিণত হওয়ার পথ পাড়ি দিয়ে ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত রাষ্ট্রের কাতারে যুক্ত হওয়ার জন্য ‘রূপকল্প ২০৪১’ শীর্ষক পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করছে সরকার। বিদেশে নতুন শ্রমবাজার তৈরির রোডম্যাপটি এই ‘রূপকল্প ২০৪১’ বাস্তবায়নে সহায়ক ভূমিকা রাখবে।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/জেআইএল/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন