বিজ্ঞাপন

এশিয়া কাপ নিয়ে সংশয়

March 1, 2021 | 3:55 pm

স্পোর্টস ডেস্ক

১৫তম এশিয়া কাপ অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল ২০২০ সালে। মহামারী করোনাভাইরাস সেটা হতে দেয়নি, এশিয়ান ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় আয়োজনটি পিছিয়ে দেওয়া হয় ২০২১ সালের জুনে। কিন্তু ওই সময়েও এশিয়া কাপ মাঠে গড়াবে কিনা তা নিয়ে শঙ্কিত পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের (পিসিবি) সভাপতি এহসান মানি। ভারত বরাবরই এশিয়া কাপের বড় পার্ট। জুনে ভারতের অংশগ্রহণের অনিশ্চয়তার কারণেই শঙ্কাটা দেখছেন মানি।

বিজ্ঞাপন

আইসিসির বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনাল আগামী জুনে। প্রথম দল হিসে্বে আগেই ফাইনাল নিশ্চিত করে রেখেছে নিউজিল্যান্ড। সম্ভবনা দেখা দিয়েছে ফাইনালের দ্বিতীয় দল হতে যাচ্ছে ভারত। বিরাট কোহলিরা যদি সত্যিই টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে উঠে যান তবে নিশ্চয় সেটা ছেড়ে এশিয়া কাপ খেলতে যাবেন না। আবার এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিলও ভারতকে ছাড়া এশিয়া কাপ আয়োজনের কথা ভাববে বলে মনে হয় না। সেই কারণেই এশিয়া কাপ ঠিক সময়ে অনুষ্ঠিত হবে কিনা শঙ্কিত মানি।

করাচিতে এক সংবাদ সম্মেলনে পিসিবি প্রধান বলেন, 'গত বছর এশিয়া কাপ হওয়ার কথা ছিল। স্থগিত করে এই বছরে আনা হলো। এখন মনে হচ্ছে এই বছরও হবে না। কারণ জুনে বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনাল আছে। শ্রীলঙ্কা জানিয়েছে তারা জুনে আয়োজন করতে প্রস্তুত। কিন্তু তারিখটা সাংঘর্ষিক হয়ে গেছে। আমার মনে হয় না টুর্নামেন্টটা এবার হবে। হয়তো ২০২৩ সালে পিছিয়ে দিতে হবে।'

বিজ্ঞাপন

পিসিবির প্রধান নির্বাহী ওয়াসিম খানও মনে করছেন, এশিয়া কাপ এ বছর হওয়ার সম্ভবনা নেই, 'মনে হচ্ছে ভারতই ফাইনাল খেলবে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে। সেকারণেই শ্রীলঙ্কায় এশিয়া কাপ আয়োজন সম্ভব হবে না। চূড়ান্ত সিদ্ধান্তের জন্য অপেক্ষা করতে হবে। কিন্তু এমন অবস্থায় হওয়ার নয়। আগামীর জন্য আমাদের ভাবতে হবে।'

উল্লেখ্য, ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজের চার নম্বর ম্যাচটাতে হার এড়ালেই টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনাল নিশ্চিত হয়ে যাবে ভারতের। সামনে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ বলে ২০২১ সালের এশিয়া কাপ অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে। অবশ্য প্রায় প্রতিবারই বিশ্বকাপের সঙ্গে সমন্বয় রেখে ফরম্যাট পরিবর্তন হয় এশিয়া কাপের।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এসএইচএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন