বিজ্ঞাপন

ছিনতাইকারী ধরার পর পুলিশকে ছুরি মেরে পালানোর চেষ্টা

April 6, 2021 | 10:07 pm

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

চট্টগ্রাম ব্যুরো: চট্টগ্রাম নগরীতে হাতেনাতে ধরে ফেলার পর এক পুলিশ সদস্যকে ছুরিকাঘাত করে পালানোর চেষ্টা করেছে এক ছিনতাইকারী। ছুরিকাঘাতে ওই পুলিশ সদস্য ‍গুরুতর আহত হয়েছেন। পরে জনতা ওই ছিনতাইকারীকে ধরে পিটুনি দিয়ে পুলিশের হাতে তুলে দিয়েছে।

বিজ্ঞাপন

মঙ্গলবার (৬ এপ্রিল) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে নগরীর ডবলমুরিং থানার আগ্রাবাদ বাদামতলির মোড়ের অদূরে জনতা ব্যাংকের সামনে এ ঘটনা ঘটে। নগর পুলিশের সহকারী কমিশনার (ডবলমুরিং জোন) শ্রীমা চাকমা তথ্যটি জানিয়েছেন।

আহত পুলিশের সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) কামাল আদনান চট্টগ্রাম জেলা পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে কর্মরত আছেন বলে পুলিশ কর্মকর্তা শ্রীমা চাকমা জানান।

বিজ্ঞাপন

এদিকে ঘটনাস্থলে যাওয়া ডবলমুরিং থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) অর্ণব বড়ুয়া সারাবাংলাকে জানান, কামাল আদনান নগরীর ছোটপুল এলাকায় জেলা পুলিশ লাইনে পুলিশ সুপারের কার্যালয় থেকে বের হয়ে মোটরসাইকেল করে স্ত্রীকে নিয়ে যাচ্ছিলেন বারিক বিল্ডিংয়ের দিকে। মোটরসাইকেলটি বাদামতল পার হয়ে সেন্টমার্টিন হোটেলের অদূরে জনতা ব্যাংকের সামনে পৌঁছানোর পর পেছনে বসা কামালের স্ত্রীর গলা থেকে স্বর্ণের চেইন টান দিয়ে নিয়ে নেয় এক যুবক।

তিনি আরও জানান, স্ত্রী চিৎকার দেওয়ার পর কামাল মোটরসাইকেল থামিয়ে নেমে ওই যুবককে ধাওয়া দেন। একপর্যায়ে তাকে ধরে ফেলে হাতে থাকা হেলমেট দিয়ে যুবকের মাথায় আঘাত করেন। এতে যুবক রাস্তায় পড়ে যায়। কামাল তাকে আবার প্যান্টের কোমর ধরে টেনে তোলেন। তখন ওই যুবক পকেট থেকে ছুরি বের করে কামালের বামহাতে আঘাত করে পালিয়ে যেতে থাকে। সেটা দেখে স্থানীয় বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের নিরাপত্তা কর্মী ও জনতা একজোট হয়ে এসে তাকে ধরে ফেলে। এসময় তাকে গণপিটুনি দেওয়া হয়।

বিজ্ঞাপন

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে রক্তাক্ত অবস্থায় এএসআই কামাল আদনান এবং ওই ছিনতাইকারী যুবককে বিক্ষুব্ধ জনতার কাছ থেকে উদ্ধার করে। প্রথমে তাদের স্থানীয় ইসলামিয়া হাসপাতালে নিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়। পরে তাদের চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন এস আই অর্ণব বড়ুয়া।

সহকারী পুলিশ কমিশনার শ্রীমা চাকমা সারাবাংলাকে বলেন, ‘এএসআই কামাল আহত হয়েছেন। তার স্ত্রী নিরাপদ ছিলেন। তবে উনার গলা থেকে টান দিয়ে যে স্বর্ণের চেইনটা নিয়েছিল সেটা আর পাওয়া যায়নি। সেটা মিসিং আছে। আমরা আইনগত পদক্ষেপ নিচ্ছি।’

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/আরডি/পিটিএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন