বিজ্ঞাপন

সাড়া দিয়েছেন ‘মিয়া ভাই’ ফারুক

April 7, 2021 | 7:19 pm

আহমেদ জামান শিমুল

‘আজীবন সম্মননা’প্রাপ্ত বাংলা চলচ্চিত্রের কিংবদন্তি নায়ক ফারুক গত দুই সপ্তাহ ধরে হাসপাতালের আইসিইউতে কোন প্রকার সাড়া দিচ্ছেন না, পুরো অচেতন অবস্থায় রয়েছেন। সোমবার (৫ এপ্রিল) এমনটা গণমাধ্যমকে জানিয়েছিলেন তার ছেলে রওশন হোসেন পাঠান শরৎ। তবে বুধবার (৭ এপ্রিল) সন্ধ্যায় তিনি সারাবাংলাকে জানিয়েছেন ডাক্তারদের ডাকে সাড়া দিয়েছেন ফারুক।

বিজ্ঞাপন

শরৎ বলেন, ‘আজ বিকেলের দিকে (বুধবার) আব্বু ডাক্তারদের ডাকে সাড়া দিয়েছেন। একই সঙ্গে হাতও নাড়িয়েছেন। ডাক্তাররা বলেছেনে তার অবস্থা উন্নতির দিকে। তবে পুরোপুরি সুস্থ হতে বেশ কিছুদিন সময় লাগবে।’

সাড়া দেওয়া খবরটি তাকে জানিয়েছেন সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেধ হাসপাতালে ফারুকের সঙ্গে থাকা স্বজনরা।

বিজ্ঞাপন

নিয়মিত স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য গত মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহে সিঙ্গাপুরে যান বরেণ্য অভিনেতা ও সাংসদ আকবর হোসেন পাঠান ফারুক। পরীক্ষায় তার রক্তে সংক্রমণ ধরা পড়ে। এরপর থেকেই শারীরিকভাবে অসুস্থ অনুভব করছিলেন তিনি। সিঙ্গাপুরে নিজের পরিচিত চিকিৎসকের পরামর্শে দ্রুত হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তাকে।

গত ২১ মার্চ তাকে আইসিইউতে স্থানান্তর করা হয়। ২৩ মার্চ থেকে তিনি অচেতন অবস্থায় ছিলেন।

বিজ্ঞাপন

গত বছরের মধ্য নভেম্বরে সপরিবারে করোনায় আক্রান্ত হন বাংলা চলচ্চিত্রের ‘মিয়া ভাই’। সেখান থেকে সুস্থ হয়ে বাসায় ছিলেন।

গত কয়েক বছর যাবত অসুস্থ ফারুক। বেশ কয়েকবার সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন তিনি। সেখানে কিডনি বিশেষজ্ঞ ডাঃ লাইয়ের তত্ত্বাবধানে তিনি চিকিৎসা নেন।

বিজ্ঞাপন

১৯৭১ সালে এইচ আকবর পরিচালিত ‘জলছবি’ চলচ্চিত্রে অভিনয়ের মাধ্যমে ফারুকের চলচ্চিত্রে অভিষেক ঘটে। তিনি লাঠিয়াল, সুজন সখী, নয়নমনি, সারেং বৌ, গোলাপী এখন ট্রেনে, সাহেব, আলোর মিছিল, দিন যায় কথা থাকে, মিয়া ভাই-সহ শতাধিক চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন।

‘লাঠিয়াল’-এ অভিনয়ের জন্য তিনি ১৯৭৫ সালে ‘শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব অভিনেতা’ হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার লাভ করেন এবং ২০১৬ সালে ‘আজীবন সম্মাননা’ অর্জন করেন। বাংলাদেশের চলচ্চিত্রের ইতিহাসে তিনি সবচেয়ে সফল ও সেরা নায়কদের একজন হিসেবে স্বীকৃত।

বিজ্ঞাপন

সবশেষে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ‘ঢাকা-১৭’ আসন থেকে আওয়ামী লীগের হয়ে সংসদ সদস্য হন।

সারাবাংলা/এজেডএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন