বিজ্ঞাপন

খরুচে মোস্তাফিজ, কাছে গিয়ে হারল রাজস্থান

April 13, 2021 | 12:42 am

স্পোর্টস ডেস্ক

এবারের আইপিএল যাত্রাটা ভালো হলো না মোস্তাফিজুর রহমানের। বোলিংয়ে রান বিলিয়েছেন ওভারপ্রতি ১১'র বেশি। দুইশর বেশি রান তুললেও জিততে পারেনি তার দল রাজস্থান রয়্যালসও। আইপিএলে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই শেষে নিজেদের প্রথম ম্যাচে পাঞ্জাব কিংসের বিপক্ষে আজ ৪ রানে হেরেছে রাজস্থান।

বিজ্ঞাপন

মোস্তাফিজ আজ রাজস্থানের জার্সি গায়ে চাপাবেন সেটা আন্দাজ করতে পারেনি অনেকেই। জাতীয় দলের খেলা শেষে কিছুটা দেরিতে আইপিএলে যোগ দেওয়া তরুণ বাংলাদেশি পেসার কোয়ারেন্টাইন শেষ করেছেন গতকাল। তার একদিন পরেই মোস্তাফিজকে যে ম্যাচ খেলতে নামাবে রাজস্থান সেটা আন্দাজ করেনি অনেকেই।

বেশ কয়েকদিন অনুশীলনের বাইরে থাকা বাংলাদেশি পেসার সুযোগটা পেলেও কাজে লাগাতে পারলেন না। নিজেকে দুর্ভাগাও ভাবতে পারেনি বাঁহাতি পেসার। উইকেট পেতে পারতেন নিজের প্রথম ওভারেই। পাঞ্জাবের ওপেনার মায়াঙ্গ আগারওয়ালের বিপক্ষে এলবিডব্লিউয়ের আবেদন করেছিলেন। আম্পায়ার তাতে সাড়া না দেওয়াতে রিভিউ নিতে মোস্তাফিজের পরামর্শ নিতে আসলেন রাজস্থান অধিনায়ক সাঞ্জু স্যামসন। কিন্তু মোস্তাফিজ বুঝালেন বল লেগ স্ট্যাম্পের বাইরে পিচ করেছে, রিভিউ আর নেননি স্যামসন। কিন্তু রিপ্লেতে দেখা গেল, বল পিচ করেছিল মিডল স্ট্যাম্পে, স্ট্যাম্পের লাইনেও ছিল। অর্থাৎ রিভিউ নিলেই উইকেট পেতেন মোস্তাফিজ।

বিজ্ঞাপন

ওই ওভারে ১১ রান খরচ করা মোস্তাফিজ ভয়ঙ্কর ক্রিস গেইল ও লোকেশ রাহুলের বিপক্ষে দ্বিতীয় ওভারে দিয়েছেন ৮ রান। তৃতীয় ওভারেও উইকেট পেতে পারতেন যদি কিনা জস বাটলার সহজ ক্যাচটা মিস না করতেন। ঝড়ো ব্যাট চালাতে থাকা দিপক হুদা মোস্তাফিজের কাটার বুঝতে না পেরে বল হাওয়ায় ভাসিয়েছিলেন। বেন স্টোকস সহজেই ক্যাচটা নিতে পারতেন। কিন্তু জস বাটলার অনেকদূর দৌড়ে ঝাঁপিয়ে পড়ে বল মাটিতে ফেলে দিলেন। মোস্তাফিজের আর উইকেট পাওয়া হয়নি। ভালো বোলিং করতে করতে হঠাৎ-ই দু একটা বাজে বল দিয়ে বাউন্ডারি, ওভার বাউন্ডারি হজম করা বাংলাদেশি পেসার শেষ পর্যন্ত ৪ ওভারে ৪৫ রান খরচায় উইকেটশূন্য।

রাজস্থানের কোনো বোলারই অবশ্য সুবিধা করতে পারেনি রাহুল, হুদাদের বিপক্ষে। নির্ধারিত ২০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ২২১ রান তোলে পাঞ্জাব। লোকেশ রাহুল ৫০ বল খেলে ৭টি চার ৫টি ছক্কায় ৯২ রান করেন। দ্বিপক হুদা মাত্র ২৮ বল খেলে ৪টি চার ৬টি ছক্কায় ৬৪ রান করেছেন। এছাড়া ক্রিস গেইল ২৮ বলে করেছেন ৪০ রান। রাজস্থানের হয়ে ২ উইকেট পাওয়া ক্রিস মরিচ ৪ ওভারে খরচ করেছেন ৪১ রান।

বিজ্ঞাপন

পরে ২৫ রানে দুই ওপেনারকে হারিয়ে শুরুতেই বিপদে পড়ে যায় রাজস্থান। দলটির দুই তারকা বেন স্টোকস (০) ও জস বাটলার (২৫) আজ পুরো ব্যর্থ। তবে অধিনায়ক স্যাঞ্জু স্যামসন দুর্দান্ত ব্যাটিং করেছেন। একপ্রান্ত আগলে রেখে দুর্দান্ত ব্যাটিং করে রাজস্থানকে জয়ের কাছাকাছি নিয়েছেন তিনি। কিন্তু ইনিংসের শেষ বলে ছক্কা হাঁকাতে গিয়ে আউট হওয়া স্যামসন শেষ পর্যন্ত দলকে জেতাতে পারেননি।

২০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ২১৭ রানে থেমেছে রাজস্থানের ইনিংস। স্যামসন ৬৩ বল খেলে ১২টি চার ৭টি ছয়ে ১১৯ রান করেছেন। এছাড়া রাজস্থানের পক্ষে রায়ান পরাগ ২৫ রান করেন। পাঞ্জাবের হয়ে আরশিদ্বীপ ৩৫ রানে তিন উইকেট নিয়েছেন।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এসএইচএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন