বিজ্ঞাপন

হেফাজতের অপকর্মকারী কাউকে রেহাই দেওয়া হবে না: নানক

April 20, 2021 | 3:25 pm

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেছেন, বিএনপি, জামায়াত এবং হেফাজত- এই তিন শক্তি এক হয়ে দেশে এক অপশক্তিতে পরিণত হয়েছে। অঙ্কুরেই এই হেফাজতকে রুখে দিতে হবে। যারা অপকর্মের সঙ্গে জড়িত ছিল তাদের কাউকে রেহাই দেওয়া হবে না।

বিজ্ঞাপন

মঙ্গলবার (২০ এপ্রিল) দুপুরে বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ আয়োজিত করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের ফ্রি অক্সিজেন সেবা প্রদানের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। রাজধানীর কলাবাগান ক্রীড়া চক্র প্রাঙ্গণে ফ্রি অক্সিজেন সেবা কার্যক্রমের শুভ উদ্বোধন করা হয়।

জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেন, ‘একদিকে করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের ছোবল, আরেকদিকে পবিত্র মাহে রমজান। এই সময় আমরা যখন জননেত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে দুঃস্থ মানুষের পাশে গিয়ে দাঁড়াচ্ছি, আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ যখন মানুষের পাশে গিয়ে দাঁড়াচ্ছে, আমাদের সহযোগী সংগঠনসহ ছাত্রলীগ যখন মানুষের গিয়ে দাঁড়ায়, তখন যারা মনে করে জনগণের ওপর তাদের কোনো দায়-দায়িত্ব নেই, তারা এই বাংলাদেশকে একটি জঙ্গি রাষ্ট্রে পরিণতের চেষ্টা করে। তারা আন্তর্জাতিকভাবে প্রমাণ করতে চায়, বাংলাদেশ একটি ধর্মীয় উন্মাদনার দেশ, বাংলাদেশ একটি ধর্মান্ধ ইসলামী বিপ্লবের দেশ।’

বিজ্ঞাপন

তিনি বলেন, ‘আমরা যখন সেবামূলক কাযক্রম পরিচালনা করি, যখন আমরা দুঃস্থ মানুষের পাশে গিয়ে দাঁড়াই তখন বিএনপি, জামায়াত ও হেফাজত এই তিন অপশক্তি ঐক্যবদ্ধ হয়। অঙ্কুরেই যদি এই হেফাজতকে রুখে দেওয়া না যায়, তাহলে এই দেশ আফগানিস্তানে পরিণত হবে। আমরা বিশ্বাস করি, এদেশের ১৭ কোটি মানুষ ঐক্যবদ্ধ মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় ধর্মনিরপেক্ষ রাষ্ট্র ব্যবস্থার স্বপক্ষে। এই হেফাজতরা পাকিস্তানি আমলের একটি নতুন সংস্করণ, নয়া সংস্করণ। সেই হেফাজত সম্পর্কে সতর্ক থাকতে হবে।

তিনি আরও বলেন, ‘এই হেফাজত যখনই নামে তখনই বিএনপি-জামায়াত পেছন থেকে উসকানি দেয়, শক্তি জোগায়। আর অর্থ জোগায় জোগান দিয়ে দেশে একটি অরাজক পরিস্থিতি তৈরির চেষ্টা করে। সে লক্ষ্য নিয়ে দেশে একটি অরাজক পরিস্থিতি সৃষ্টির জন্য তারা ২৬ শে মার্চ প্রিয় মাতৃভূমির স্বাধীনতার ৫০ বছর পূর্তিতে হাটাজারি থেকে শুরু করে ব্রাক্ষ্মণবাড়িয়া এবং ঢাকার বায়তুল মোকারকম মসজিদে আস্ফালন করেছে, অগ্নিসংযোগ করেছে। তাদের প্রতি কোনো দুর্বলতা দেখানোর সুযোগ নেই। তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিতে হবে।’ তাই আজকের এই পরিস্থিতিতে অত্যন্ত সতর্ক থাকার জন্য নেতাকর্মীদের প্রতি আহ্বান জানান নানক।

বিজ্ঞাপন

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর এই সদস্য বলেন, ‘বিএনপির মহাসচিব বলেন, সরকার ক্র্যাকডাউন চালাচ্ছে। সরকার ক্র্যাকডাউন চালাচ্ছে না। আপনি এবং আপনার দল মোরালি ক্র্যাকডাউন হয়ে গিয়েছে। সেই কারণে আপনাদের মনে হয় যেন, আপনারা ক্র্যাকডাউনে পতিত হয়েছেন।’

আটককৃত হেফাজত নেতাদের মুক্তি দাবির পরিপ্রেক্ষিতে মির্জা ফখরুলের সমালোচনা করে নানক আরও বলেন, ‘তাদের মুক্তি চান? যেখানেই দেখেন একটু কচুরিপনা, মির্জা ফখরুল সাহেব সেটা ধরে একটু চেষ্টা করেন পার হওয়া যায় কি না।’

বিজ্ঞাপন

স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি নির্মল রঞ্জন গুহের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক আফজালুর রহমান বাবুর সঞ্চালনায় করোনা মোকাবিলায় স্বেচ্ছাসেবক লীগের ফ্রি অক্সিজেন সেবার উদ্বোধন অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহ-সভাপতি ম. আব্দুর রাজ্জাক,কাজী শহিদুল্লাহ লিটন, দেবাশীষ বিশ্বাস, কাজী মোয়াজ্জেল হোসেন, মানিক ঘোষ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোবাশ্বের চৌধুরী, একেএম আজিম, খায়রুল হাসান জুয়েল, সাংগঠনিক সম্পাদক নাফিউল করিম নাফা, মেহেদী হাসান মোল্লা, আ ফ ম মাহবুবুল হাসান, দফতর সম্পাদক আজিজুল হক আজিজ, প্রচার সম্পাদক রফিকুল ইসলাম বিটু, গ্রন্থনা ও প্রকাশনা সম্পাদক কেএম মনোয়ারুল ইসলাম বিপুলসহ স্বেচ্ছাসেবক লীগের কেন্দ্রীয় ও মহানগর নেতারা।

সারাবাংলা/এনআর/পিটিএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন