বিজ্ঞাপন

‘বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ বিশ্বের শ্রেষ্ঠ বক্তব্যের একটি’

April 21, 2021 | 11:39 pm

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: একাত্তরের ৭ মার্চ রেসকোর্স ময়দানে (বর্তমানে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান) জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানে দেওয়া ঐতিহাসিক ভাষণকে বিশ্বের অন্যতম শ্রেষ্ঠ ভাষণ হিসেবে অভিহিত করেছেন ব্রুনাইয়ে নিযুক্ত ভারতের হাইকমিশনার আজানেষ কুমার।

বিজ্ঞাপন

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু ছিলেন একজন বৈশ্বিক নেতা। ঐতিহাসিক ৭ ই মার্চে দেওয়া বঙ্গবন্ধুর অলিখিত বক্তব্য বিশ্বের শ্রেষ্ঠ বক্তব্যের সমপর্যায়ভুক্ত।

ব্রুনাইয়ে বাংলাদেশ হাইকমিশনের আয়োজনে বুধবার (২১ এপ্রিল) বঙ্গবন্ধু লেকচার সিরিজের উদ্বোধনী পর্বে বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি এমন মন্তব্য করেন। ব্রুনাইয়ে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার নাহিদা রহমান সুমনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ আয়োজনে প্রধান বক্তা হিসেবে ভারতীয় হাইকমিশনার ‘৫০ বছরের বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক’ শীর্ষক বক্তৃতায় প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন।

বিজ্ঞাপন
‘বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ বিশ্বের শ্রেষ্ঠ বক্তব্যের একটি’
বিজ্ঞাপন

তুরস্ক, ভিয়েতনাম, কম্বোডিয়া, মিয়ানমার, ইরানের রাষ্টদূত ও মালেশিয়ার চার্জ দ্য অ্যাফেয়ারর্স, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, স্থানীয় বুদ্ধিজীবী, সাংবাদিক ও বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে আয়োজতি এ স্মারক বক্তৃতায় বাংলাদেশ-ভারতের সম্পর্কের ঐতিহাসিক ও অকৃত্রিম বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কের ওপর গুরুত্বারোপ করা হয়।

ভারতের হাইকমিশনার তার বক্তব্যে বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্কের সুদৃঢ় বন্ধন, বর্তমান গতিপ্রকৃতি ও এ সম্পর্কের ওপর প্রভাব বিস্তারকারী বিভিন্ন উপাদানের ওপর বিশদ আলোচনা করেন। বক্তব্যে ভারতীয় রাষ্ট্রদূত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করতে গিয়ে উল্লেখ করেন, মহান নেতা বঙ্গবন্ধু তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের মানুষকে অর্থনৈতিক শোষণ ও রাজনৈতিক নিপীড়নের শেকল থেকে বাংলাদেশের মানুষের মুক্তির জন্য সংগ্রাম করে গেছেন।

বিজ্ঞাপন
‘বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ বিশ্বের শ্রেষ্ঠ বক্তব্যের একটি’
বিজ্ঞাপন

সভাপতির বক্তব্যে বাংলাদেশের হাইকমিশনার প্রধান বক্তাকে অনুষ্ঠানে তার জ্ঞানগর্ভ বক্তব্য ও সর্বকালের শ্রেষ্ঠ বাঙালি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি অকৃত্রিম সম্মান প্রদর্শনের জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ জানান। বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশের প্রতি অনুষ্ঠানে উপস্থিত অতিথিদের, বিশেষ করে ভারতীয় নাগরিকদের অকৃত্রিম ভালোবাসা ও শ্রদ্ধাজ্ঞাপনের পরিপ্রেক্ষিতে তিনি বলেন, বাংলাদেশের স্বাধীনতার যুদ্ধে ভারতের অবদান বাংলাদেশের মানুষ কোনোদিন ভুলে যাবে না।

বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ও বঙ্গবন্ধু জন্মশতবার্ষিকী অনুষ্ঠানে ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সাম্প্রতিক সফরের কথা স্মরণ করে ভারতীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রতি বিশেষ কৃতজ্ঞতাও জ্ঞাপন করেন হাইকমিশনার নাহিদা রহমান সুমনা। স্মারক বক্তৃতা শেষে তিনি প্রধান বক্তার হাতে একটি সম্মানা ক্রেস্ট তুলে দেন।

সারাবাংলা/জেআইএল/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন