বিজ্ঞাপন

তৃতীয় দফায় ৫ দিনের রিমান্ডে মামুনুল হক

May 4, 2021 | 1:06 pm

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: বিলুপ্ত হেফাজতে ইসলামের কমিটির কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব ও ঢাকা মহানগরের সাধারণ সম্পাদক মাওলানা মামুনুল হককে ফের পৃথক দুই মামলায় ৫ দিনের রিমান্ড আবেদন মঞ্জুর করেছেন আদালত।

বিজ্ঞাপন

মঙ্গলবার (৪ মে) দুপুরে ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট সত্যব্রত শিকদার এ রিমান্ডের আদেশ দেন।

এর আগে সাত দিনের রিমান্ড শেষে রাজধানীর পল্টন থানার পৃথক দুই মামলায় মামুনুল হকের ১৭ দিন রিমান্ড আবেদন করে পুলিশ। এর মধ্যে একটি মামলায় ১০ দিন এবং অপর মামলায় ৭ দিনের রিমান্ড চাওয়া হয়। গত ২৫ ও ২৬ মার্চ মোদিবিরোধী আন্দোলনের নামে সহিংসতা ও নাশকতার অভিযোগ পল্টন থানায় এ মামলাগুলো দায়ের করেন পুলিশ।

বিজ্ঞাপন

এসময় তারপক্ষের আইনজীবীরা রিমান্ড বাতিল চেয়ে জামিনের আবেদন করেন। রাষ্ট্রপক্ষ এই জামিনের বিরোধিতা করেন। উভয়পক্ষের শুনানি শেষে বিচারক এ রিমান্ডের আদেশ দেন।

এর আগে গত ২৬ এপ্রিল ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট ম্যাজিস্ট্রেট মামুনুল হকের পল্টন থানার ৪ ও মতিঝিল থানার মামলায় ৩ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। গত ১৯ এপ্রিল মামুনুল হকের সাত দিনের রিমান্ডে পাঠিয়েছেন আদালত।

বিজ্ঞাপন

গত ১৮ এপ্রিল রাজধানীর মোহাম্মদপুরের জামিয়া রাহমানিয়া মাদরাসা থেকে তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

এর আগে সোনারগাঁওয়ের রিসোর্টে নারীসহ অবরুদ্ধ হন মামুনুল হক। ঘটনার দিন সোনারগাঁও রয়েল রিসোর্টে হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনায় হেফাজতের নেতাকর্মী‌দের আসামি করে তিনটি মামলা হয়। এর মধ্যে একটি মামলায় মামুনুল হক প্রধান আসামি।

বিজ্ঞাপন

পুলিশ জানায়, ২০২০ সালে মোহাম্মাদপুরে একটি ভাঙচুরের মামলায় মামুনুলকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। এ ছাড়া গত ২৬ মার্চ দেশের বিভিন্ন স্থানে নাশকতা করার অভিযোগে হেফাজত নেতাদের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। মুজিব জন্মশতবর্ষ ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির আগমনের বিরোধিতাকালে সহিংস পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। এ ছাড়া হেফাজতে ইসলাম হরতাল দিলে ওইদিনও নাশকতা চালানো হয়। এসব অভিযোগে হেফাজতের বেশ কয়েকজন নেতাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

একই আদালত হেফাজত ইসলামের আরেক নেতা মাওলানা জুনায়েদ আল হাবীবের পল্টন থানার পৃথক তিন মামলায় ৪ দিনের রিমান্ডের আদেশ দেন। জুনায়েদ আল হাবীবের বিরুদ্ধে পল্টন থানার পৃথক তিন মামলায় জিজেজ্ঞাবাদের জন্য ২৪ দিনের রিমান্ডের আবেদন করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা। পরে আদালত ৪ দিনের রিমান্ডের আদেশ দেন।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এআই/এসএসএ

বিজ্ঞাপন

Tags: ,

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন