বিজ্ঞাপন

বাঁশখালীতে নিহত প্রতি পরিবারকে ৫ লাখ টাকা দেওয়ার নির্দেশ

May 4, 2021 | 2:59 pm

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: চট্টগ্রামের বাঁশখালী উপজেলায় কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্রে পুলিশের গুলিতে নিহত শ্রমিকদের প্রতি পরিবারকে আপাতত ৫ লাখ টাকা করে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে ওই ঘটনায় কেন বিচার বিভাগীয় তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন আদালত।

বিজ্ঞাপন

পাশাপাশি ওই ঘটনায় পুলিশ ও জেলা প্রশাসকের তদন্ত প্রতিবেদন, আহতদের চিকিৎসার সর্বশেষ তথ্য দেওয়াসহ শ্রমিকদের নিরাপত্তা বিধানের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।

মঙ্গলবার (৪ মে) ছয়টি সংগঠনের পৃথক দুই রিট আবেদনের শুনানি নিয়ে বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি সরদার মো. রাশেদ জাহাঙ্গীরের সমন্বয়ে গঠিত ভার্চুয়াল হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন। আদালতে আজ রিট আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী জেড আই খান পান্না, সৈয়দা রিজওয়ানা হাসান ও সৈয়দা নাসরিন। আর রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল অরবিন্দ কুমার রায় ও বিপুল বাগমার।

বিজ্ঞাপন

আদেশের বিষয়টি সারাবাংলাকে নিশ্চিত করে রিটকারীদের আইনজীবী সৈয়দা নাসরিন বলেন, বাঁশখালীতে নিহত শ্রমিকদের প্রত্যেক পরিবারকে আপাতত ৫ লাখ টাকা প্রদানের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে এ ঘটনায় কেন বিচার বিভাগীয় তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হবে না, তা জানতে চেয়েছেন আদালত। পাশাপাশি পুলিশের গুলিতে নিহত ও আহত শ্রমিকদের পরিবারের নিরাপত্তা বিধানের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

এ ছাড়া এই ঘটনায় পুলিশ ও জেলা প্রশাসকের করা তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল এবং আহতদের চিকিৎসার বিষয়ে জানাতে নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

বিজ্ঞাপন

আরও পড়ুন: বাঁশখালীতে পুলিশের গুলিতে নিহত শ্রমিকের সংখ্যা বেড়ে ৫

এর আগে গত ২৮ এপ্রিল পাঁচটি সংগঠনের পক্ষে এবং গত ২২ এপ্রিল মানবাধিকার সংগঠন আইন ও সালিশ কেন্দ্রের পক্ষে থেকে হাইকোর্টে রিট দায়ের করা হয়। ওই দুই রিটের শুনানি নিয়ে আদালত এ আদেশ দেন।

বিজ্ঞাপন

রিটকারী সংগঠনগুলো হ0লো: বাংলাদেশ পরিবেশ আইনজীবী সমিতি (বেলা), বাংলাদেশ লিগ্যাল এইড অ্যান্ড সার্ভিসেস ট্রাস্ট (ব্লাস্ট), নিজেরা করি, সেফটি অ্যান্ড রাইটস ও অ্যাসোসিয়েশন ফর ল্যান্ড রিফর্ম অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট (এএলআরডি) এবং আইন ও সালিশ কেন্দ্র।

গত ১৭ এপ্রিল বেতনভাতা নিয়ে অসন্তোষ থেকে চট্টগ্রামের বাঁশখালীর গণ্ডামারা ইউনিয়নের পশ্চিম বড়ঘোনায় কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্রে শ্রমিকদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে ৭ শ্রমিক নিহত এবং ৩ পুলিশসহ অন্তত ৩০ জন আহত হয়েছেন। আহত শ্রমিকেরা এ ঘটনায় পুলিশকে দায়ী করেছেন। পুলিশের অভিযোগ, বিনা উসকানিতে ইটপাটকেল ছোড়ায় ঘটনার সূত্রপাত হয়।

বিজ্ঞাপন

শিল্প গ্রুপ এস আলমের মালিকানায় এসএস পাওয়ার প্ল্যান্ট নামে এই বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মিত হচ্ছে। চীনা প্রতিষ্ঠান সেফকো থ্রি পাওয়ার কনস্ট্রাকশন কোম্পানি লিমিটেড এখানে অর্থায়ন করেছে। ওই ঘটনায় বাঁশখালী থানায় পৃথক দুটি মামলা হয়েছে। এতে সাড়ে তিন হাজার ব্যক্তিকে আসামি করা হয়েছে।

সারাবাংলা/কেআইএফ/এএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন