বিজ্ঞাপন

স্ট্যামফোর্ড ব্রিজে ফাইনালের টিকিটের লড়াই চেলসি-রিয়ালের

May 5, 2021 | 11:47 am

স্পোর্টস ডেস্ক

উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগের ২০২০/২১ মৌসুমের সেমিফাইনালের প্রথম লেগে রিয়ালের ঘরের মাঠে ১-১ গোলে সমতায় শেষ করে চেলসি। আর আকর্ষণ জমিয়ে রাখে স্ট্যামফোর্ড ব্রিজে ফাইনালের টিকিটের লড়াইয়ের দ্বিতীয় লেগ। বুধবার (৫ মে) বাংলাদেশ সময় রাত একটায় ইস্তনাবুলের টিকিটের লড়াইয়ে মাঠে নামবে দুই দল।

বিজ্ঞাপন

এস্তাদিও আলফ্রেড ডি স্টেফানোতে রিয়ালের ওপর ছড়ি ঘুরিয়েছিল অল ব্লুজরা। গোটা ম্যাচে রিয়ালের ওপর কর্তৃত্ব দেখিয়েও শেষ পর্যন্ত ১-১ গোলে ড্র করেই ফিরতে হয়েছিল তাদের। তবে সঙ্গে আছে মূল্যবান একটি অ্যাওয়ে গোল। আর তাই তো দ্বিতীয় লেগে ঘরের মাঠে গোলশূন্য ড্র করলেও ফাইনালের টিকিট মিলবে থমাস তুখেলের চেলসির হাতেই।

ঘরের মাঠে চোট জর্জরিত দল নিয়ে একাদশ সাজাতেই হিমশিম খেতে হয়েছে জিনেদিন জিদানকে। মধ্যমাঠে ভরসার প্রতীক তরুণ ফেদে ভালভার্দে করোনা আক্রান্ত হয়ে ছিলেন না স্কোয়াডে। ইনজুরির কারণে ছিলেন না দলের অধিনায়ক এবং রক্ষণের পরীক্ষিত সেনা সার্জিও রামোস, ছিলেন না লেফট ব্যাক ফারল্যান্ড মেন্ডি, আবার ম্যাচের মাঝপথেই চোট পেয়ে উঠে যেতে হয়েছিল রাইট ব্যাক দানি কার্ভাহালকে। এছাড়াও ছিলেন না লুকাস ভাস্কেজও।

বিজ্ঞাপন

দ্বিতীয় লেগে সার্জিও রামোস ইনজুরি কাটিয়ে ফিরলেও মাংসপেশিতে টান পেয়ে ১০ দিনের জন্য মাঠের বাইরে ছিটকে গেছেন রাফায়েল ভারান। আর মৌসুমের বাকি সময়টার জন্য ছিটকে গেছেন রাইট ব্যাক দানি কার্ভাহাল। এছাড়াও শঙ্কা দেখা দিয়েছিল মার্সেলো এবং ফেদে ভালভার্দের স্কোয়াডে ফেরা নিয়েও। মাদ্রিদের নির্বাচনের জন্য লটারির মাধ্যমে পোলিং এজেন্ট হিসেবে নাম উঠে আসে মার্সেলোর। অর্থাৎ মঙ্গলবার (৪ মে) মাদ্রিদে অনুষ্ঠিত নির্বাচনের পোলিং এজেন্ট হিসেবে কাজ করতে হবে মার্সেলোকে তাই তাকে নিয়ে শঙ্কায় ছিল মাদ্রিদ কর্তৃপক্ষ। যদিও শেষ পর্যন্ত বয়স্ক এক নারী মার্সেলোর পরিবর্তে পোলিং এজেন্টের কাজ করে দেওয়ার প্রস্তাবে ছাড়া পায় এই ব্রাজিলিয়ান ডিফেন্ডার।

আর ফেদেরিখো ভালভার্দের জন্য রিয়ালের লন্ডনের ফ্লাইটের দেরি হয় ২০ মিনিটের। কয়েক দফায় কোভিড-১৯ টেস্ট করানোর পর শেষমেশ নেগেটিভ আসে এই উরুগুইয়ান মিডফিল্ডারের। আর তাতেই লন্ডনের উদ্দেশ্যে যাত্রা দেয় এই মিডফিল্ডার।

বিজ্ঞাপন

তবে ইনজুরি সমস্যা তেমন একটা নেই চেলসির স্কোয়াডে। কেবল ক্রোয়শিয়ান মিডফিল্ডার মাতেও কোভাসিস চোটে পড়ে আছে দলের বাইরে। এছাড়া প্রিমিয়ার লিগে নিজেদের শেষ ম্যাচে হালকা চোট অনুভব করছিলেন মেসন মাউন্ট। তবে শঙ্কা কাটিয়ে ঠিকই স্কোয়াডে নাম লিখিয়েছেন তিনি।

স্ট্যামফোর্ড ব্রিজে ইস্তানবুলের টিকিটের লড়াইয়ের সমীকরণ বেশ সোজা। যে দল জিতবে তারাই খেলবে ম্যানচেস্টার সিটির বিপক্ষে আগামি ৩০ মে'র ফাইনালে। তবে ম্যাচটি গোলশূন্য ড্র হলে অ্যাওয়ে গোলের সুবিধা নিয়ে ফাইনালে যাবে চেলসি। ১-১ গোলে ড্র হলে ম্যাচ গড়াবে অতিরিক্ত সময়ে। এছাড়া আর যেকোনো সমীকরণের ড্র'তে ফাইনালের টিকিট কাটবে জিনেদিন জিদানের দল।

বিজ্ঞাপন

এদিকে দীর্ঘদিন পর ইনজুরি কাটিয়ে ফেরা এডেন হ্যাজার্ডকে এদিন সাবেক ক্লাবের বিপক্ষে দেখা যেতে পারে শুরুর একাদশে। আর চোট কাটিয়ে ফেরা সার্জিও রামোসেরও একাদশে ফেরার সম্ভবনা প্রবল। সব মিলিয়ে চেলসির বিপক্ষে পূর্ণ শক্তির দল নিয়েই মাঠে নামার কথা জিনেদিন জিদানের দলের।

রিয়ালের সম্ভাব্য একাদশ: থিবো কোর্তোয়া, ফারল্যান্ড মেন্ডি, সার্জিও রামোস, এডার মিলিতাও, নাচো ফার্নান্দেজ, টনি ক্রুস, ক্যাসেমিরো, লুকা মদ্রিচ, ফেদেরিখো ভালভার্দে, করিম বেনজেমা এবং এডেন হ্যাজার্ড।

বিজ্ঞাপন

চেলসির সম্ভাব্য একাদশ: এডুয়ার্ড মেন্ডি, ক্রিস্তিয়ানসেক, থিয়াগো সিলভা, অ্যান্তোনিও রুডিগার, আজপিলিকুয়েটা, এনগোলো কান্তে, জর্জিনহো, বেন চিলওয়েল, ক্রিশ্চিয়ান পুলিসিচ, মেসন মাউন্ট এবং কাই হার্ভাটজ।

সারাবাংলা/এসএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন