বিজ্ঞাপন

বেড়েছে মুরগি ও চিনির দাম, অপরিবর্তিত সবজির

May 7, 2021 | 1:09 pm

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: ঈদের বাকি আর মাত্র সপ্তাহখানেক। এর আগেই বাড়লো মুরগি ও চিনির দাম। ব্রয়লার মুরগির কেজিতে বেড়েছে ১৫ থেকে ৪০ টাকা। আবার চিনির দামও বেড়েছে। খোলা চিনিতে বেড়েছে ২-৩ টাকা আর প্যাকেট চিনিতে বেড়েছে ৩ টাকা করে। তবে সবজির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে।

বিজ্ঞাপন

শুক্রবার (৭ মে) বসুন্ধরা কাঁচাবাজার ঘুরে দেখা গেছে, গত সপ্তাহে যে ব্রয়লার মুরগি বিক্রি হয়েছে ১৩৫ থেকে ১৪০ টাকা সেটা এখন বিক্রি হচ্ছে ১৫০ থেকে ১৫৫ টাকা। আর লাল লেয়ার মুরগির দামও বেড়েছে। গত সপ্তাহে লাল লেয়ার মুরগি বিক্রি হয়েছে ২০০ থেকে ২১০ টাকা যা আজকে বিক্রি হচ্ছে ২৩০ থেকে ২৪০ টাকা। পাকিস্তানি কক গত সপ্তাহে বিক্রি হয়েছে ২৫০ টাকা যা আজকে বিক্রি হচ্ছে ২৯০ টাকা কেজি প্রতি। ফলে সব ধরনের মুরগির দাম বেড়েছে।

বসুন্ধরা বাজারে বাজার করতে আসা বেসরকারি চাকরিজীবী হুমায়ন আহমেদ সারাবাংলাকে বলেন, রমজান মাসে যেখানে বিভিন্ন দেশে পণ্য সামগ্রীর দাম কমে সেখানে আমাদের দেশে সবকিছুর দাম বাড়ে। গত সপ্তাহে তেল ও পেঁয়াজের দাম বাড়ে। আজ আজকে মুরগির দাম বেড়েছে। আসলে আমরা যারা ঢাকা শহরে থাকি তাদের বেঁচে থাকা খুব কষ্টের। আমাদের হয়তো আবার গ্রামেই চলে যেতে হবে। এভাবে মনের ইচ্ছা মতো যদি পণ্য সামগ্রীর দাম বাড়ে তাহলে না খেয়েই আমাদের মরতে হবে।

বিজ্ঞাপন

বসুন্ধরা বাজারের মুরগি বিক্রেতা আব্দুল হাকিম সারাবাংলাকে বলেন, গতকাল মোকামে মুরগি ছিল না। এখন কেন ছিল না, সেটা তো আর আমরা বলতে পারি না। আমরা যখন যেমন কিনি ঠিক তখন তেমনি বিক্রি করি। আমরা কম কিনলে কম বিক্রি আর বেশি কিনলে বেশি বিক্রি করি।

অপরদিকে চিনির দামও বেড়েছে। খোলা চিনি কেজি প্রতি বিক্রি হচ্ছে ৭৫-৭৬ টাকা। যা গত সপ্তাহে ছিল ৭২-৭৪ টাকার মধ্যে। আর প্যাকেট চিনি কেজি প্রতি বিক্রি হচ্ছে ৭৮ টাকা। যা গত সপ্তাহে ছিল ৭৫ টাকা কেজি প্রতি।

বিজ্ঞাপন

এদিকে সবজির বাজার ঘুরে দেখা গেছে, বেগুন কেজি প্রতি বিক্রি হচ্ছে ২৫-৩০ টাকা, শশা ৩০-৩৫ টাকা, টমেটো, ঢেঁড়স, করোলা ৩০-৩৫ টাকা, পেঁপে ৪০ টাকা পিচ, কাঁচা মরিচের কেজি ৫০ টাকা, পেঁয়াজ ৩৫-৪০ টাকা, বরবটি ৪০ টাকা, কাকরোল ৫০ টাকা, গাজর ৪০ টাকা এবং আলু ২০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে। এছাড়াও পেঁয়াজের কেজি ৩৫ টাকা, দেশি আদা ১০০ টাকা, দেশি রসুন ৮০-৯০ টাকা ও চায়না রসুন ১০০ থেকে ১১০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। গত সপ্তাহে দাম সবজির দাম প্রায় একই রকম ছিল।

অপরদিকে অপরিবর্তিত রয়েছে ভোজ্য তেলের দাম। ৫ লিটার সয়াবিন তেল বিভিন্ন ব্র্যান্ড ভেদে বিক্রি হচ্ছে ৬৬০ থেকে ৬৭৫ টাকায়। খোলা সয়াবিন তেল কেজি প্রতি বিক্রি হচ্ছে ১৩০ টাকা।

বিজ্ঞাপন

মাছ বাজারে গিয়ে দেখা গিয়েছে, বিভিন্ন আকারের রুই মাছের কেজি ২৫০ থেকে ৩০০ টাকা, তেলাপিয়া ১২০ থেকে ১৫০ টাকা, বাইন ২৫০ থেকে ৩৫০ টাকা, গলদা চিংড়ি ৬০০ থেকে ৮০০ টাকা, শিং মাছ ৪০০-৫০০ টাকা ও কৈ মাছ ৩০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

সারাবাংলা/এসজে/এনএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন