বিজ্ঞাপন

পশ্চিমবঙ্গে বিরোধী দলনেতা হলেন শুভেন্দু অধিকারী

May 10, 2021 | 3:50 pm

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের বিধানসভায় প্রথমবারের মতো প্রধান বিরোধী দলের মর্যাদা পেয়েছে বিজেপি। তবে বিরোধী দলনেতা কে হতে যাচ্ছেন এ নিয়ে জল্পনা চলছিল। সোমবার জানা গেল— গত ডিসেম্বরে তৃণমূল কংগ্রেস থেকে বিজেপিতে যোগ দেওয়া শুভেন্দু অধিকারীই এ পদের ভার সামলাবেন। পশ্চিমবঙ্গের স্থানীয় সংবাদমাধ্যমগুলোতে এ খবর প্রকাশ হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

নন্দীগ্রামে কংগ্রেস সভানেত্রী মমতা ব্যানার্জিকে হারিয়ে এবারে বিধায়ক হয়েছেন শুভেন্দু অধিকারী। এর ফলও পেয়েছেন দলের তরফ থেকে। সোমবার বিজেপির পরিষদীয় দলের বৈঠকে তার নাম প্রস্তাব করেন সর্বভারতীয় বিজেপি সহসভাপতি মুকুল রায়। ওই প্রস্তাব ২২ জন বিধায়ক সমর্থন করেন। তবে বাকি বিধায়করা অন্য কোনো নাম প্রস্তাব না করায় শুভেন্দু অধিকারীই বিধানসভায় দলটির নেতা হলেন।

এর আগে টানা আট দফা নির্বাচন শেষে ২ মে ফলাফল প্রকাশ হয় ওই রাজ্যে। এতে টানা তৃতীয়বারের মতো ভুমিধস জয় পায় তৃণমূল কংগ্রেস। ইতিমধ্যে তৃণমূলের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি ও তার মন্ত্রিসভা শপথ নিয়েছে। বাকি ছিল বিজেপির তরফ থেকে বিরোধী দলনেতার নাম ঘোষণা।

বিজ্ঞাপন

নির্বাচনের ফল প্রকাশের পর দেখা যায়, ৭৭টি আসনে জয় পেয়েছে বিজেপি। এতে দলটি পশ্চিমবঙ্গে প্রথমবারের মতো প্রধান বিরোধীদলের মর্যাদা লাভ করে। তবে বিধানসভায় দলের নেতা কে হবেন তা ঠিক করতে প্রায় ১০ দিন লেগেছে বিজেপির। মুকুল রায়, শুভেন্দু অধিকারী নাকি অন্য কেউ— কে হতে পারেন বিরোধী দলনেতা— তা ঠিক করতে কেন্দ্র থেকে দল পাঠায় বিজেপি। কেননা, ওই রাজ্যে বিজেপির অভিজ্ঞ বিধায়কের সংখ্যা একেবারেই হাতেগোনা।

শেষ পর্যন্ত শুভেন্দু অধিকারীকেই বিরোধী দলনেতা হিসেবে বেছে নেয় বিজেপি। মুকুল রায় সর্বভারতীয় কংগ্রেসের সহসভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন, তাই তাকে দলের সাংগঠনিক কাজেই বেশি দেখতে চাইছে দলটি। স্থানীয় সংবাদমাধ্যমগুলো অবশ্য মুকুল রায়ের ঘনিষ্ঠ রাজনৈতিক সঙ্গীদের বরাতে খবর প্রকাশ করছিল, তিনি নিজেই এ পদের জন্য আগ্রহী ছিলেন না। সাংগঠনিক কাজে ব্যস্ত থাকাই পছন্দ তার।

বিজ্ঞাপন

আরও পড়ুন- পশ্চিমবঙ্গ নির্বাচনে আসলে কে জিতল, হারল কে? [পর্ব-১]

সারাবাংলা/আইই

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন