বিজ্ঞাপন

প্রত্যাবাসনই রোহিঙ্গা সংকটের একমাত্র সমাধান

May 18, 2021 | 7:56 pm

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: দেশের একাধিক অঞ্চলে আশ্রয় নিয়ে থাকা রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর সদস্যদের তাদের জন্মভূমি মিয়ানমারে ফিরে যাওয়াই হবে এই সংকটের একমাত্র সমাধান — এ কথা পুনরায় উল্লেখ করলেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম।

বিজ্ঞাপন

মঙ্গলবার (১৮ মে) চতুর্থ যৌথ পরিকল্পনা (জেআরপি) অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে প্রতিমন্ত্রী এমন মন্তব্য করেন।

মিয়ানমারের ১১ লাখেরও বেশি নাগরিক চার বছর ধরে বাংলাদেশের একাধিক অঞ্চলে স্থায়ী-অস্থায়ী ক্যাম্পে আশ্রয় নিয়েছেন। রোহিঙ্গা শরণার্থীদের প্রত্যাবাসন এবং নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণে জেআরপি গঠিত হয়। করোনা সংক্রমণের মুখে চতুর্থ যৌথ পরিকল্পনা বৈঠকটি ভার্চুয়ালি অনুষ্ঠিত হয়।

বিজ্ঞাপন

বৈঠক থেকে জানা যায়, এবারের যৌথ পরিকল্পনা বাস্তবায়নে ৯৪ কোটি ডলারের সমপরিমাণ অর্থ প্রয়োজন। তার মধ্যে ৩৬ কোটি ডলার দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে — যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, সুইজারল্যান্ড, কোরিয়া, কানাডাসহ আরও কয়েকটি দেশ। যৌথ পরিকল্পনার এই অর্থ খরচ হবে রোহিঙ্গা শরণার্থীদের নিরাপত্তা খাতে। আর এই অর্থ যেনো সুষ্ঠুভাবে খরচ হয় তা নিশ্চিত করবে বাংলাদেশ।

এ ব্যাপারে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম বলেন, 'প্রতিবারই যৌথ পরিকল্পনা ঘোষণা করার সময় চিন্তা করি যে, এটাই শেষ পরিকল্পনা। কিন্তু এবার নিয়ে চারবারের মত এই পরিকল্পনা ঘোষণা করতে হচ্ছে। বাংলাদেশ মানবিক দৃষ্টিকোণ থেকে ২০১৭ সালে রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়েছিল কিন্তু এখন বিষয়টি আমাদের জন্য বোঝা হয়ে দাঁড়াচ্ছে। এই সংকট সমাধানে এখন বিশ্ববাসীকে এগিয়ে আসতে হবে'।

বিজ্ঞাপন

তিনি আরও বলেন, বিগত দিনের অভিজ্ঞতা বলে মানবিক সহায়তা এই সংকট কোনো সমাধান না। এই সংকটের একমাত্র সমাধান হচ্ছে — রোহিঙ্গাদের তাদের জন্মভূমি মিয়ানমারে ফেরত যাওয়া। এই জন্য আন্তর্জাতিক মহলকে এগিয়ে আসতে হবে। সংকট সমাধানে প্রকৃতার্থে শক্তিশালী উদ্যোগ নিতে হবে।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/জেআইএল/একেএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন