বিজ্ঞাপন

চাকরিতে যোগ দিতে চায় রাবিতে বিতর্কিত নিয়োগের ১৩৭ জন

May 19, 2021 | 5:12 pm

রাবি করেসপন্ডেন্ট

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়: শিক্ষামন্ত্রণালয় অবৈধ ঘোষণা করলেও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে অস্থায়ী ভিত্তিতে নিয়োগপ্রাপ্ত ১৩৭ জন চাকরিতে যোগদান করতে চান। তারা বলছেন, যোগদান স্থগিত থাকায় তাদের পরিবার দুশ্চিন্তায় আছেন।

বিজ্ঞাপন

বুধবার (১৯ মে) দুপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে অস্থায়ী ভিত্তিতে নিয়োগ পাওয়া শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারীদের পক্ষে এসব কথা জানানো হয়। বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের দলীয় টেন্টে আয়োজিত ওই সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন টগর মোহাম্মদ সালেহ, ইলিয়াছ হোসেন, ফারুক হোসেন, আতিকুর রহমান সুমন, তৌহিদ মোর্শেদসহ প্রায় ৪০ জন।

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, বিশ্বস্ত সূত্রে তারা জানতে পারেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারীর সাত শতাধিক পদ দীর্ঘদিন ধরে শূন্য রয়েছে। ওই শূন্যপদে নিয়োগের জন্য তারা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের সঙ্গে যোগাযোগ করে জীবন বৃত্তান্ত জমা দেন। গত ৫ মে বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য ১৯৭৩-এর অধ্যাদেশের ক্ষমতা বলে শূন্য পদের বিপরীতে ছাত্রলীগ, যুবলীগের সাবেক ও বর্তমানের ১৩৭ জন নেতাকর্মীকে অস্থায়ী ভিত্তিতে ছয় মাসের জন্য নিয়োগ দেন। যারা স্বাধীনতাবিরোধী জামাত-শিবির চক্রের হাতে বিভিন্ন সময়ে হামলাসহ নানা ষড়যন্ত্রের শিকার হয়েছেন।

বিজ্ঞাপন

কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সদস্য ও নিয়োপ্রাপ্তদের একজন আব্দুল্লাহ আল মাসুদ লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন। লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, ১৯৭৩ এর অধ্যাদেশ অনুযায়ী নিয়োগকে অবৈধ বলার সুযোগ নেই। যদি অবৈধ ঘোষণা করতে হয় তাহলে ৭৩-এর অধ্যাদেশের সংশ্লিষ্ট ধারা বাতিল করা উচিত ছিল বলে দাবি করেন। এছাড়া যোগদানের ব্যবস্থা করতে প্রধানমন্ত্রী, শিক্ষামন্ত্রী, শিক্ষা উপমন্ত্রীর কাছে আবেদন জানান তারা।

উল্লেখ্য, গত ৫ মে বিদায়ী উপাচার্য অধ্যাপক আব্দুস সোবহান ১৩৭ জনকে অস্থায়ী ভিত্তিতে নিয়োগ দিয়ে যান। গত ৬ মে নিয়োগকে অবৈধ ঘোষণা করে তদন্ত কমিটি গঠন করে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। পরে ৮ মে যোগদান স্থগিত করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/পিটিএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন