বিজ্ঞাপন

সাবিনার ‘১১’ আর কৃষ্ণার জার্সি নম্বর ‘৮’

March 27, 2018 | 3:00 pm

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

বিজ্ঞাপন

ভারতের ভিসা পেয়ে দুই বাংলাদেশি নারী ফুটবলার সাবিনা খাতুন ও কৃষ্ণা রানী সরকার চলে গেছেন। প্রথমবারের মতো ভারতীয় মহিলা লিগে অংশ নিতে যাওয়া এই দুই তারকাকে তাদের ক্লাব জার্সি বুঝিয়ে দিয়েছে। সাবিনা ও কৃষ্ণা ক্লাবে পৌঁছানোর পর তাদের হাতে জার্সি তুলে দিয়েছেন ক্লাব কর্মকর্তারা। সাবিনা খেলবেন ১১ নম্বর জার্সি পরে এবং কৃষ্ণার জার্সি নম্বর ৮।

তাদের ভিসা পাওয়ার খবর রোববার (২৫ মার্চ) এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানায় ঢাকায় নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশন। ১৫ মার্চের মধ্যে ভারতের থাকার কথা ছিল দেশসেরা নারী ফুটবলার সাবিনা ও কৃষ্ণার। ভিসার জন্য আবেদন করা হয় সেই ৭ মার্চ। অর্ধমাস পেরিয়ে গেলেও দ্বিতীয় দফায়ও ভিসা হাতে পায়নি সাবিনারা। অনিশ্চিত হয়ে পড়েছিল তাদের ভারতে লিগ খেলা। তবে, বসে ছিল না বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন। ভারত ফুটবল ফেডারেশন ও ক্লাব সেথু এএফসির কাছে সাহায্য চেয়ে মেইল পাঠায় বাফুফে।

১৩ মার্চ অল ইন্ডিয়া ফুটবল ফেডারেশন থেকে চিঠি দেয়া হয়েছিল ঢাকাস্থ ভারতীয় হাই কমিশনকে। ২৫ মার্চ থেকে শুরু হওয়া প্রথমবারের মতো ফ্র্যাঞ্চাইজি ভিত্তিক নারী ফুটবল লিগের ভারতীয় ক্লাব সেথু এএফসির জার্সিতে খেলবে সাবিনারা।

বিজ্ঞাপন


কলকাতা, গুয়াহাটি হয়ে সোমবার তারা শিলং পৌঁছেছেন। যেখানে হচ্ছে ভারতীয় উইমেন্স ফুটবল লিগ। ৭ দল নিয়ে ভারতের উইমেন্স লিগ হবে শিলংয়ে। তামিল নাড়ুর ক্লাব সেথু এফসি তাদের বিদেশি কোটায় রেজিস্ট্রেশন করিয়েছে বাংলাদেশের এ দুই তারকা ফুটবলারকে।

অনুশীলনের সুযোগ না পাওয়ায় সাবিনা-কৃষ্ণাদের ক্লাব সেথু এএফসির প্রথম ম্যাচে খেলার সম্ভাবনা কম। ক্লাবসূত্র বলছে, পরের ম্যাচে সাবিনাকে বদলি হিসেবে খেলানো হতে পারে। আর কৃষ্ণাকে তার পরের ম্যাচে খেলানো হতে পারে।

সাবিনা খাতুন বাংলাদেশের প্রথম নারী ফুটবলার হিসেবে খেলেছেন বিদেশে। দুই দুইবার মালদ্বীপে ঘরোয়া আসরে খেলে কাঁপিয়েছেন প্রতিপক্ষের জাল। এবার ভারতে তার সঙ্গী হচ্ছেন জাতীয় দলের আরেক ফরোয়ার্ড কৃষ্ণা রানী সরকার। অনূর্ধ্ব-১৬ দলের অধিনায়কের জন্য হবে এটা নতুন অভিজ্ঞতা।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এমআরপি

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন