বিজ্ঞাপন

গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্সের দারুণ জয়

June 11, 2021 | 6:56 pm

স্পোর্টস ডেস্ক

দুই তরুণ শেখ মেহেদি হাসান ও ইয়াছির আলি রাব্বির ব্যাটে বড় স্কোর পাওয়া গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্সকে বোলিংয়ে ভরসা দিলেন নাসুম আহমেদ। যাতে ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে (ডিপিএল) আরেকবার জয়ের দেখা পেল গাজী গ্রুপ। ডিপিএলের ৪১ নম্বর ম্যাচে ডিআর ম্যাথডে ব্রাদার্স ইউনিয়নকে আজ ১৫ রানে হারিয়েছে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের দল। এদিকে, লিগে দিনের অপর ম্যাচে পারটেক্স স্পোর্টিং ক্লাবের বিপক্ষেও ডিএল ম্যাথডে ১৫ রানে জিতেছে খেলাঘর সমাজ কল্যাণ সংঘ।

বিজ্ঞাপন

শুক্রবার (১১ জুন) সাভারের বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বিকেএসপির তিন নম্বর মাঠে প্রথমে ব্যাটিংয়ে নামা গাজী গ্রুপের হয়ে ইনিংস শুরু করতে নেমেছিলেন তরুণ শেখ মেহেদি। সাধারণত মিডল অর্ডারে বা লোয়ার অর্ডারে ব্যাটিং করে অভ্যস্ত এই তরুণ। তবে আজ ওপেনার হয়ে গিয়ে দারুণ সাফলই পেয়েছেন।

সৌম্য সরকারকে নিয়ে প্রথম ৩.৩ ওভারে ৪৮ রান তোলেন মেহেদি। ৯ বলে সৌম্য ১৫ করে ফিরলে মেহেদি ঝড় চলেছে আরও কিছুক্ষণ। ২১ বলে ৬টি চার ৩টি ছয়ে ৪৭ রান করে আউট হয়েছেন তরুণ ক্রিকেটার। মিডল অর্ডারে ইয়াছির আলি ৩৯ বলে ৩ চার ২ ছয়ে ৪৭ এবং আরিফুল ইসলাম ২১ বলে অপরাজিত ৩৫ রান করলে গাজী গ্রুপের সংগ্রহ দাঁড়ায় ১৭৩।

বিজ্ঞাপন

বিকেএসপির উইকেটে এই রান এমনিতেই কঠিন। বৃষ্টি ব্রাদার্সের কাজটা করে দেয় আরও কঠিন। বৃষ্টি আইনে ব্রাদার্সের টার্গেট দাঁড়ায় ১১.২ ওভারে ১০১ রান। নাসুম আহমেদের দারুণ বোলিংয়ে নির্ধারিত ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ৮৫ রান তুলতে পেরেছে ব্রাদার্স।

১৬ বলে সর্বোচ্চ ২৬ রান করেছেন সুজন হাওলাদার। ১৯ বলে ২২ করেছেন নাজিমুদ্দিন। নাসুম ৩ ওভারে ১৬ রান খরচায় তুলে নিয়েছেন ৩ উইকেট।

বিজ্ঞাপন

বিকেএসপির চার নম্বর মাঠে পারটেক্স-খেলাঘরের ম্যাচে আলো ছড়িয়েছেন আরেক মেহেদি। খেলাঘরের বোলিং তোপে ২০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ১০৬ রানের বেশি তুলতে পারেনি পারটেক্স। ২৬ বলে সর্বোচ্চ ২৮ করেছেন রাজিবুল হাসান। খেলাঘরের হয়ে ২৩ রানে তিন উইকেট নিয়েছেন ইরফান হাসান। মেহেদি হাসান মিরাজ ৪ ওবারে মাত্র ১৫ রান খরচায় নিয়েছেন দুই উইকেট, তার মধ্যে একটা মেডেনও আছে।

পরে খেলাঘরের ইনিংসের সপ্তম ওভারে বৃষ্টির কারণে খেলা বন্ধ হয়ে যায়। দলটির রান স্কোর ছিল তখন ৫০/২। পরে বৃষ্টি আইনে ১৫ রানের জয় নিশ্চিত হয় দলটির। মিরাজ ১০ বলে ১২ রান করে অপরাজিত ছিলেন। ১৫ বলে ২৭ রান করেন ইমতিয়াজ হোসেন।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এসএইচএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন