বিজ্ঞাপন

সাকিব প্রসঙ্গে ম্যাচ রেফারির রিপোর্টের অপেক্ষায় সিসিডিএম

June 11, 2021 | 8:38 pm

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের (ডিপিএল) আবাহনী-মোহামেডান ম্যাচে প্রশ্নবোধক আচরণে জন্য শাস্তি পাবেন সাকিব আল হাসান? এই প্রশ্নের উত্তর এখনো মিলেনি। ক্রিকেট কমিটি অব ঢাকা মেট্রোপলিস-সিসিডিএমের চেয়ারম্যাচ কাজী ইনাম আহমেদ জানালেন, এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে ম্যাচ রেফারির প্রতিবেদনের অপেক্ষা করছেন তারা।

বিজ্ঞাপন

শুক্রবার (১১ জুন) মিরপুরে আবাহনী-মোহামেডান ম্যাচ শেষে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন কাজী ইনাম। এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, 'খেলার মাঠে অনেক কিছুই হয়। আজকে আবাহনী-মোহামেডানের ম্যাচ ছিল। সেখানে আমরা অনেক উত্তেজনা দেখলাম। সাকিব আল হাসানকে ঘিরে কিছু ঘটনা আমরা দেখেছি। এটা ফেসবুক লাইভ, ইউটিউব থেকেও সবাই দেখতে পেয়েছে। বিষয়টা দুঃখজনক। ক্রিকেট এমন একটা খেলা, যেখানে এমন উত্তেজনাপূর্ণ সময় এসে যেতে পারে। তবে আমরা আশা করব খেলোয়াড়রা তাদের আবেগ নিয়ন্ত্রণে রাখবে। এই খেলাটি আইসিসি স্বীকৃত ম্যাচ। এসব বিষয় নিয়ন্ত্রণ করার জন্য ম্যাচ রেফারি, আম্পায়াররা আছেন। তারা একটা রিপোর্ট দেবেন। সবকিছুরই নিয়ম আছে। কোন নিয়ম ভাঙলে কী শাস্তি, সে অনুযায়ীই ব্যবস্থা নেয়া হবে।'

শাস্তির মাত্রা কেমন হতে পারে? এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, 'শাস্তি কেমন হবে সেটা রিপোর্টের ওপর নির্ভর করছে। তারা যা বলবে, সেভাবেই সিদ্ধান্ত হবে।'

বিজ্ঞাপন

সাকিব প্রসঙ্গে ম্যাচ রেফারির রিপোর্টের অপেক্ষায় সিসিডিএম

সাকিব কাণ্ড আজ আবাহনী ইনিংসের পঞ্চম ওভারে। মোহামেডানের ১৪৫ রানের জবাব দিতে নেমে শুরুতেই বিপদে পড়া আবাহনীর অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম ছিলেন ব্যাটিংয়ে। সাকিব নিজের প্রথম ওভার করতে এসেছিলেন। এক চার এক ছয়ে প্রথম তিন বল থেকে ১০ রান তুলে নেন মুশফিক। ওভারের পঞ্চম বলে জাতীয় দলের দীর্ঘ দিনের সতীর্থের বিপক্ষে জোড়ালো আবেদন করেন সাকিব। কিন্তু আম্পায়ার তাতে সাড়া দেননি। তারপর সাকিব যা করলেন দেশের ক্রিকেটে অতীতে তা কখনো দেখা গেছে কিনা সন্দেহ!

বিজ্ঞাপন

আম্পায়ার সাড়া না দিলে নিজেকে যেন হারিয়ে ফেললেন সাকিব আল হাসান। লাথি দিয়ে কাছের স্টাম্প ভেঙে ফেললেন। মুখোমুখি হয়ে তর্কে জড়ান আম্পায়ারের। কিছুক্ষণ পর ফিরে এসে আম্পায়ারের সামনের থাকা তিন স্টাম্পই তুলে মাটিতে আছড়ে ফেলেন। এখানেই শেষ নয়।

বৃষ্টিতে খেলা বন্ধ হলে ড্রেসিংরুমে ফেরার পথে আবাহনী কোচ খালেদ মাহমুদ সুজনের সঙ্গে কথা কাটাকাটিতে জড়ান সাকিব। মাঠ ছাড়ার পথে কিছু একটা বলছিলেন সাকিব। খালেদ মাহমুদ তেড়ে যান তাতে। পরে দুই দলের ক্রিকেটাররা এসে দুজনকে দুই ড্রেসিংরুমের দিকে টেনে নিয়ে গেছেন।

বিজ্ঞাপন

পরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ক্ষমা প্রার্থণা করেছেন সাকিব। আবাহনীর ড্রেসিংরুমে গিয়েও ক্ষমা চেয়েছেন। দাবি করেছেন, মাঠ ছাড়ার সময় আবাহনীর কয়েজন দর্শক আপত্তিকর কথা বলেছেন তাকে। ফলে তাদেরকেই কিছু একটা বলেছেন তিনি, আবাহনী দলের কাউকে নয়।

সারাবাংলা/এমআরএফ/এসএইচএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন