বিজ্ঞাপন

সিতসিপাসকে হারিয়ে ১৯তম গ্র্যান্ড স্ল্যাম জিতলেন জোকোভিচ

June 13, 2021 | 11:56 pm

স্পোর্টস ডেস্ক

১৯তম গ্র্যান্ড স্ল্যাম জয়ের লক্ষ্যে ফ্রেঞ্চ ওপেনের ফাইনালে স্তেফানো সিতসিপাসের মুখোমুখি নোভাক জোকোভিচ। অন্যদিকে ইতিহাস গড়ার জন্যই মাঠে নেমেছিলেন সিতসিপাস।প্রথম কোনো গ্র্যান্ড স্ল্যামের ফাইনালে উঠেছিলেন সিতসিপাস। তবে তাঁর সেই স্বপ্নকে ভেঙে দিলেন জোকোভিচ। ফাইনালের প্রথম দুই সেটে জোকোভিচকে এক প্রকার উড়িয়ে দিয়েছিলেন তিনি। তবে শেষ তিন সেট টানা জিতে নিজের ১৯তম গ্র্যান্ড স্ল্যাম জয় করলেন জোকোভিচ।

বিজ্ঞাপন

রোলাঁ গ্যারোয় রোববার পুরুষ এককের ফাইনালে প্রথম দুই সেট ৭-৬ (৮-৬) এবং ৬-২'তে জিতে নেয় সিতসিপাস। এরপরই পথ হারান তিনি। আর দুর্দান্তভাবে ঘুরে দাঁড়ান জোকোভিচ। চার ঘণ্টারও বেশি সময়ের দুর্দান্ত লড়াইয়ে শেষ তিন সেট ৬-৩, ৬-২, ৬-৪ গেমে জিতে দ্বিতীয়বারের মতো ফ্রেঞ্চ ওপেনের শিরোপা জয় করেন বিশ্বের এক নম্বর তারকা।

সিতসিপাসকে হারিয়ে ১৯তম গ্র্যান্ড স্ল্যাম জিতলেন জোকোভিচ

বিজ্ঞাপন

২০১৬ সালে প্যারিসের এই কোর্টেই ফ্রেঞ্চ ওপেনের প্রথম শিরোপা জিতেছিলেন জোকোভিচ। এরপর আরও চারবার অংশগ্রহণ করলেও আর জেতা হয়নি রোঁলা গ্যারোরর শিরোপা। এবারে এসে সেই আশাপূর্ণ হলো। আর সেই সঙ্গে ১৯তম গ্র্যান্ড স্ল্যাম জিতে রজার ফেদেরার ও রাফায়েল নাদালের আরও কাছে পৌঁছে গেলেন এই সার্বিয়ান মহাতারকা। টেনিসের জীবন্ত দুই কিংবদন্তি নাদাল এবং ফেদেরার প্রত্যেকেই ২০টি করে গ্র্যান্ড স্ল্যাম জিতেছেন।

ফ্রেঞ্চ ওপেনের এবারের আসরে বেশ কয়েক ম্যাচেই প্রথমে পিছিয়ে পড়েও শেষ পর্যন্ত ঘুরে দাঁড়িয়েছেন জোকোভিচ। এই তো চতুর্থ রাউন্ডে লরেঞ্জো মুসেত্তির বিপক্ষে ম্যাচের প্রথম দুই সেট হেরে বিদায়ের দ্বারে পৌঁছে গিয়েছিলেন বিশ্বের এক নম্বর তারকা। তবে পরের তিন সেটে ঘুরে দাঁড়িয়ে জিতেছিলেন ম্যাচটি। আর সেমিফাইনালে তো ক্লে কোর্টের রাজা রাফায়েল নাদালের কাছেও হেরে বসেছিলেন জোকো। তবে পরের তিন সেট টানা জিতে ফাইনালের টিকিট কাটেন।

বিজ্ঞাপন

মাত্র ২৪ ঘণ্টারও কম সময়ের ব্যবধানে নাদালের বিপক্ষে সেমিফাইনাল আর সিতসিপাসের বিপক্ষে ফাইনালে খেলতে নামেন জোকোভিচ। আর দুর্দান্ত দুটি ম্যাচ জোকোভিচের আনন্দকে বাড়িয়ে দিয়েছে আরও বহুগুণে। ম্যাচ শেষেও সে কথাই জানালেন বিশ্বসেরা এই তারকা।

সিতসিপাসকে হারিয়ে ১৯তম গ্র্যান্ড স্ল্যাম জিতলেন জোকোভিচ

বিজ্ঞাপন

জোকোভিচ বলেন, 'আমার দারুণ লাগছে। গত ৪৮ ঘণ্টার প্রায় ৯ ঘণ্টা খেলেছি আমি, দুই চ্যাম্পিয়নের বিপক্ষে। শারীরিকভাবে গত তিনটা দিন খুব কঠিন কেটেছে। কিন্তু আমার নিজের সামর্থ্যে বিশ্বাস ছিল, জানতাম আমি পারব। আমি আমার কোচ ও ফিজিও এবং এই যাত্রায় সঙ্গে থাকা সবাইকে ধন্যবাদ জানাতে চাই।'

২০১৯ সালের এটিপি ট্যুর ফাইনালসের চ্যাম্পিয়ন সিৎসিপাসকে তৃতীয় সেটের পর কিছুটা ভুগতে দেখা যায়। ট্রেনারকে ডেকে পিঠের নিচের অংশে মাসাজ করান তিনি। তবে ওই বিরতি জোকোভিচের ফিরে পাওয়া ছন্দে কোনো প্রভাব ফেলতে পারেনি।

বিজ্ঞাপন

এদিকে জোকোভিচের কাছে হেরেও তাঁর স্তুতি গাইতে একটুও ভুলেননি সিতসিপাস। তিনি বলেন, 'তাকে (জোকোভিচ) দেখে আমি অনুপ্রেরণা পাই। আমি আমার সর্বোচ্চ চেষ্টা করেছি। টুর্নামেন্টটা দারুণ কেটেছে আমার। আর আমি নিজের পারফরম্যান্সেও অনেক খুশি।'

সারাবাংলা/এসএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন