বিজ্ঞাপন

রোমাঞ্চকর লড়াইয়ে বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের রুখে দিল হাঙ্গেরি

June 19, 2021 | 8:59 pm

স্পোর্টস ডেস্ক

ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপ ২০২০ মাঠে গড়ানোর আগে থেকেই ফেভারিটের তকমা বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ফ্রান্সের গায়ে। টুর্নামেন্টের শুরুটা জার্মানিকে হারিয়ে করে ফ্রান্স। তবে দ্বিতীয় ম্যাচে এসেই রোমাঞ্চকর এক লড়াইয়ে হাঙ্গেরির বিপক্ষে ১-১ গোলে ড্র করল ফ্রান্স।

বিজ্ঞাপন

ম্যাচের প্রথমার্ধের অতিরিক্ত সময়ে হাঙ্গেরি গোল করে এগিয়ে যায়। নির্ধারিত ৪৫ মিনিট শেষে যোগ করা অতিরিক্ত সময়ের দুই মিনিটের মাথায় আত্তিয়া ফিওলার গোলে লিড নেয় হাঙ্গেরি। এরপর দ্বিতীয়ার্ধের ৬৬তম মিনিটে অ্যান্তোনিও গ্রিজম্যানের দুর্দান্ত এক গোলে সমতায় ফিরলেও শেষ পর্যন্ত জয়সূচক গোলের দেখা মেলেনি ফ্রান্সের। তাতেই হাঙ্গেরির সঙ্গে ১-১ গোলে সমতায় এক পয়েন্টেই সন্তুষ্ট থাকতে হয়েছে এবারের ইউরোর হট ফেভারিট গ্রিজম্যান-এমবাপে-বেনজেমাদের।

এবারের ইউরোর গ্রুপ এফ-এ বর্তমান বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স, সাবেক বিশ্বচ্যাম্পিয়ন জার্মানি, বর্তমান ইউরো চ্যাম্পিয়ন পর্তুগালের সঙ্গে জায়গা মিলেছে হাঙ্গেরির। ইউরোর তিন হট ফেভারিট দল একই গ্রুপে। যেখান থেকে সরাসরি মাত্র দুটি দল জায়গা পাবে নকাউট পর্বের। আর সম্ভবনা থাকবে তৃতীয় দলেরও পরের রাউন্ডে যাওয়ার। তবে সেজন্য তাকিয়ে থাকতে হবে অন্যান্য গ্রুপ গুলোর দিকেও।

বিজ্ঞাপন

রোমাঞ্চকর লড়াইয়ে বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের রুখে দিল হাঙ্গেরি

নিজেদের প্রথম ম্যাচে জার্মানিকে ১-০ গোলের ব্যবধানে পরাজিত করে ফ্রান্স। আর পর্তুগালকে ম্যাচের ৮৪ মিনিট পর্যন্ত রুখে রেখেও শেষ পর্যন্ত ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর জোড়া গোলে ৩-০ ব্যবধানে হেরে বসে হাঙ্গেরি। এবার গ্রুপ পর্বের তৃতীয় ম্যাচে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ফ্রান্সের বিপক্ষে লড়াইটা দারুণ করেছে হাঙ্গেরি। বুদাপেস্টের পুস্কাস অ্যারেনায় মাঠ ভর্তি দর্শকদের সামনে বুকে বুক ঠেকিয়ে লড়াই চালিয়েছে হাঙ্গেরি।

বিজ্ঞাপন

খাতা কলমে ফ্রান্স এগিয়ে থাকলেও ছেড়ে কথা বলেনি হাঙ্গেরি। নিজেদের রক্ষণকে দৃঢ় রেখে আক্রমণেও ফ্রান্সের রক্ষণে কাঁপন ধরিয়েছে ফেরেঙ্ক পুস্কাসের দেশ। অবশ্য ম্যাচে হাঙ্গেরিকে ধরে রাখার জন্য বাহ্বা পেতেই পারেন গোলরক্ষক পিটার গুলাচসি।

ম্যাচের ১৪তম মিনিটে এমবাপের বাড়ানো বল পেয়ে মাটি কামড়ানো শট নেন করিম বেনজেমা। তাঁর শট কোনো রকমে ঠেলে দেন গুলাচসি, তবে ফিরতি বল পেয়ে যান গ্রিজম্যান আর বল পেয়ে শটও নেন কিন্তু তা চলে যায় সরাসরি গোলরক্ষকের কাছে। এর মিনিট তিনেক পরে বেনজেমার দুর্দান্ত এক ক্রসে ডি-বক্সের ভেতর লাফিয়ে উঠে মাথ ছোঁয়ান এমবাপে কিন্তু তাঁর হেড লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়ে বেরিয়ে যায়।

বিজ্ঞাপন

রোমাঞ্চকর লড়াইয়ে বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের রুখে দিল হাঙ্গেরি

প্রথমার্ধে ফ্রান্সের সবচেয়ে বড় গোলের সুযোগ আসে ম্যাচের ৩১তম মিনিটে। পল পগবার বাড়ানো বল ডান দিকে পেয়ে যান এমবাপে। সেখান থেকে ডি-বক্সের ঠিক মাঝখানে বেনজেমার উদ্দেশে বাড়ান। ফাঁকায় থাকা বেনজেমা প্রথম সুযোগে শট নেন আর বল গোলপোস্টের বাইরে দিয়ে বেরিয়ে গেলে হতাশ হয় ফ্রান্স। এমবাপের বাড়ানো বল নিয়ন্ত্রণে নিয়ে শট নেওয়ারও সময় ছিল বেনজেমার হাতে তবে তড়িঘড়ি করে শট নিতে গিয়েই তা লক্ষ্যের বাইরে পাঠিয়ে দিলেন।

বিজ্ঞাপন

প্রথমার্ধের শেষ দিকে এসে যোগ করা অতিরিক্ত সময়ের দুই মিনিটের সময় পাভার্ডের ভুল থেকে বল পেয়ে যান রোলান্ড সাল্লাই। এরপর প্রতি-আক্রমণে সাল্লাই থ্রু বল দেন আত্তিয়া ফিওলার উদ্দেশে। রাফায়েল ভারানকে কাটিয়ে কাছের পোস্ট দিয়ে বল জালে জড়িয়ে বুনো উল্লাসে মাতেন ফিওলা আর সঙ্গে গোটা পুস্কাস অ্যারেনা।

দ্বিতীয়ার্ধে ম্যাচে ফিরে আক্রমণের ধার বাড়ান ফ্রান্স কোচ দিদিয়ের দেশাম। অ্যাদ্রিয়েন র‍্যাবিওটকে তুলে নিয়ে মাঠে নামান ওসমান দেম্বেলেকে। আর মাঠে নামার দুই মিনিটের মাঝেই ঝলক দেখান দেম্বেলে। ডান দিক দিয়ে বল নিয়ে হাঙ্গেরির দুই ডিফেন্ডারকে কাটিয়ে জোরালো শট নেন দেম্বেলে আর পরাস্ত করেন গোলরক্ষককেও। তবে জোরালো শটটি গোলপোস্ট কাঁপিয়ে বেরিয়ে যায় বাইরে। আর তাতেই হতাশা আরও বাড়ে ফ্রান্স শিবিরে।

রোমাঞ্চকর লড়াইয়ে বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের রুখে দিল হাঙ্গেরি

এরপরে আর বেশি সময় সমতায় ফিরতে অপেক্ষা করতে হয়নি ফ্রান্সকে। ম্যাচের ৬৬তম মিনিটে হুগো লরিসের কাছ থেকে বল পেয়ে দুর্দান্ত গতিতে বল নিয়ে ছোটেন এমবাপে, বাঁ দিক থেকে বল ডি-বক্সের ভেতরে ক্রসও করেননি তিনি। কিন্তু এমবাপের ক্রস বিপদমুক্র করতে গিয়ে ডি-বক্সে ঢুকে পড়া গ্রিজম্যানের কাছে দিয়ে দেন ওরবান। ডি-বক্সের ভেতর সহজ সুযোগ পেয়ে ট্যাপইনে বল জালে জড়ান অ্যান্তোনিও গ্রিজম্যান। আর তাতেই ম্যাচে ১-১ গোলে সমতায় ফেরে ফ্রান্স।

ম্যাচের বাকি থাকা প্রায় ২৫ মিনিটে আরও বেশ কয়েকটি গোলের সুযোগ তৈরি করে ফ্রান্স তবে আর কাঙ্ক্ষিত গোলের দেখা পায়নি গ্রিজম্যানরা। শেষ পর্যন্ত ওই ১-১ গোলের ড্রতে সন্তুষ্ট থাকতে হয়েছে বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের। এই ড্র'তে গ্রুপ-এফ এর শীর্ষে অবস্থান করছে ফ্রান্স চার পয়েন্ট নিয়ে। দিনের অপর ম্যাচে জার্মানি ও পর্তুগালের মধ্যকার ম্যাচের ফলাফলে পরিবর্তন আসতে পারে পয়েন্ট টেবিলেও।

গ্রুপের শেষ দুটি ম্যাচ বুধবার (জুন ২৩)। জার্মানি বনাম হাঙ্গেরি (ফুটবল অ্যারেনা মুনশেন, মিউনিখ, জার্মানি; বাংলাদেশ সময় রাত ১টা) আর পর্তুগাল বনাম ফ্রান্স, (দ্য পুস্কাস অ্যারেনা, বুদাপেস্ট, হাঙ্গেরি; বাংলাদেশ সময় রাত ১টা)।

সারাবাংলা/এসএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন