বিজ্ঞাপন

পঞ্চম দিনেও ছিল পেসারদের দাপট

June 23, 2021 | 1:19 am

স্পোর্টস ডেস্ক

টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালের ওপর প্রকৃতি বেশ নারাজ। তাই তো টেস্টের প্রথম পাঁচ দিনের খেলা ঠিকমতো মাঠেই গড়াতে পারল না। আর তাতেই শেষের রোমাঞ্চের জন্য রিজার্ভ ডে'র দিকে তাকিয়ে থাকতে হচ্ছে। ৫ম দিনে অবশ্য জমে উঠেছে ব্যাট-বলের লড়াই। সাউদাম্পটনে দেখা মিললো দুই দলের পেসারদের সুইং বোলিংয়ের দারুণ প্রদর্শনী।

বিজ্ঞাপন

প্রথম ইনিংসে মোহাম্মদ শামির দুর্দন্ত সুইংয়ে চার কিউই ব্যাটার ধরাশায়ী। এরপর দিনের শেষ দিকে এসে নিউজিল্যান্ডের টিম সাউদির জোড়া আঘাতে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনাল জমে উঠেছে।

বৃষ্টিতে ফাইনালের পাঁচ দিনের মধ্যে দুই দিনের খেলা ভেসে গেলেও এখনো রোমাঞ্চ ছড়াচ্ছে ম্যাচটি। ম্যাচের ভাগ্য এখনও ষষ্ঠ দিনের অপেক্ষায় রইলো। বৈরি আবহাওয়ার কথা ভাবনায় রেখেই ষষ্ঠ দিনের যে নিয়ম রাখা হয়েছিল, সেই দিনটিতেই এখন তাকিয়ে সবাই। এখনও হতে পারে যে কোনো ফল।

বিজ্ঞাপন

ভারতের করা প্রথম ইনিংসে ২১৭ রানের জবাবে কিউইরা ২৪৯ রানে থামে। আর তাতেই লিড ৩২ রানের। দ্বিতীয় ইনিংসে ২ উইকেটে ৬৪ রান তুলে দিনশেষে ভারত এগিয়ে ৩২ রানেই।

মঙ্গলবার সাউদাম্পটনে ২ উইকেটে ১০১ রান নিয়ে দিন শুরু করে নিউজিল্যান্ড। তবে কিউইদের ব্যাটিং কঠিন করে তোলেন ভারতীয় পেসার মোহাম্মদ শামি। তাঁর দুর্দান্ত সুইংয়ে একের পর কিউই ব্যাটাররা পরাস্ত হতে থাকে। তবে এক প্রান্তে একের পর ডট বল খেলে উইকেটে পড়ে থাকেন কিউই অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন। টেস্ট ক্রিকেটের আদর্শতম এক ইনিংস দেখান উইলিয়ামসন। তবে অর্ধশতক থেকে মাত্র ১ রান দূরে থাকতে ফিরতে হয় তাকে। শেষ দিকে টিম সাউদির ঝড়ো ইনিংসে ভর করে কিউইরা পায় ৩২ রানের লিড।

বিজ্ঞাপন

পঞ্চম দিনেও ছিল পেসারদের দাপট

মঙ্গলবারের শুরু থেকেই দারুণ বোলিং করতে থাকা শামিকে কিছুটা সময় সামাল দিতে পারলেও শেষ পর্যন্ত বিদায় নেন রস টেইলর (১১)। এরপর ইশান্ত শর্মার শিকার হেনরি নিকোলস। অসাধারণ এক ডেলিভারিতে শামি বোল্ড করেন বিজে ওয়াটলিংকে। ১৩৫ রানে নিউজিল্যান্ড হারায় ৫ উইকেট। লিড তখনও দূরের পথ। শামি পরে জমে উঠতে দেননি কলিন ডি গ্র্যান্ডহোমকেও।

বিজ্ঞাপন

তবে উইকেটের অপরপ্রান্তে একের পর ব্যাটারদের যাওয়ার আসার ভিড়েও নিজের খুঁটি নড়বড়ে হতে দেননি উইলিয়ামসন। ক্রিজে থেকে যখন নিজের শততম বলটি খেললেন তখন নামের পাশে রান সংখ্যা মাত্র ১৫। উইলিয়ামসনকে লোয়ার মিডল অর্ডারে সঙ্গ দেন কাইল জেমিসন ও সাউদি। কিন্তু লিড পাওয়ার পরপরই থামে উইলিয়ামসনের লড়াই। প্রায় ৫ ঘণ্টা উইকেটে কাটিয়ে ১৭৭ বলে ৪৯ রানের ইনিংস শেষ হয় আলগা শটে স্লিপে ক্যাচ দিয়ে। শেষ দিকে সাউদির ২১ বলে ৩০ রানের ইনিংসে ভর করে ২৪৯ রানে থামে কিউইদের প্রথম ইনিংস।

দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে টিম সাউদির দুটি ইনসুইং বলের কোনো জবাব ছিল না ভারতীয় দুই ওপেনার রোহিত শর্মা এবং শুভমন গিলের কাছে। দুইজনই সাউদির বলে এলবিডাব্লিউ হয়ে ফেরেন প্যাভিলিয়নে। পেসারদের স্বর্গে পরিণত হওয়া সাউদাম্পটনে শেষ বিকেলে ৩০ ওভার কাটিয়ে দুটি উইকেট হারিয়ে ভারতের সংগ্রহ ৬৪। গিল ৮ রানে এবং রোহিত শর্মা ৮১ বলে ৩০ করে আউট হন।

বিজ্ঞাপন

দিনের শেষভাগে নাইটওয়াচম্যান না নামিয়ে উইকেটে আসেন ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলি। চেতেশ্বর পুজারাকে নিয়ে দিনটি পার করে দেন তিনি। চা-বিরতির পর ৪০ ওভার খেলা হওয়ার কথা থাকলেও হতে পারে ৩০ ওভার। অপেক্ষা এবার শেষ দিনের রোমাঞ্চের।

সংক্ষিপ্ত স্কোরকার্ড:

ভারত ১ম ইনিংস: ২১৭/১০; (রাহানে ৪৯, কোহলি ৪৪); (জেমিসন ৫/৩১, ওয়াগনার ২/৪০)।

নিউজিল্যান্ড ১ম ইনিংস: ২৪৯/১০; (উইলিয়ামসন ৪৯, টেইলর ১১, নিকোলস ৭, ওয়াটলিং ১, ডি গ্র্যান্ডহোম ১৩, জেমিসন ২১, সাউদি ৩০, ওয়্যাগনার ০, বোল্ট ৭*; ইশান্ত ২৫-৯-৪৮-৩, বুমরাহ ২৬-৯-৫৭-০, শামি ২৬-৮-৭৬-৪, অশ্বিন ১৫-৫-২৮-২, জাদেজা ৭.২-২-২০-১)।

ভারত ২য় ইনিংস: ৩০ ওভারে ৬৪/২ (রোহিত ৩০, গিল ৮, পুজারা ১২*, কোহলি ৮*; সাউদি ৯-৩-১৭-২, বোল্ট ৮-১-২০-০, জেমিসন ১০-০-১৫-০, ওয়াগনার ৩-০-৮-০)।

সারাবাংলা/এসএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন