বিজ্ঞাপন

বোনসহ বাবা-মাকে হত্যা: বড় মেয়ের দোষ স্বীকার

June 24, 2021 | 7:31 pm

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: রাজধানীর কদমতলী থানার মুরাদপুরের হাইস্কুল রোডের একটি বাসা থেকে বাবা-মা ও ছোটবোনকে খুনের অভিযোগে দায়ের করা মামলায় গ্রেফতার ওই দম্পতির বড় মেয়ে মেহেজাবিন মুন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।

বিজ্ঞাপন

বৃহস্পতিবার (২৪ জুন) চারদিনের রিমান্ড শেষে মামলাটির তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশ পরিদর্শক জাকির হোসাইন আসামিকে আদালতে হাজির করেন। এরপর আসামি স্বেচ্ছায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিতে সম্মত হওয়ায় তা রেকর্ড করার আবেদন করেন তদন্তকারী কর্মকর্তা।

আবেদনের পর ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট ইয়াসমিন আরার আদালত মুনের জবানবন্দি গ্রহণ করেন। এরপর তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

বিজ্ঞাপন

একইসঙ্গে মুনের বাচ্চাকে হেফাজতের জন্য তার দাদা-দাদির জিম্মায় দিয়েছেন ঢাকার আরেক মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট।

গত ২০ জুন আসামির চার দিনের রিমান্ডে পাঠিয়েছিলেন আদালত।

বিজ্ঞাপন

গত ১৯ জুন সকাল সাড়ে ১১টার দিকে নিহতদের লাশ উদ্ধার করা হয়। ওই ঘটনায় তাদের মেয়ে মেহেজাবিন মুনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। নিহতরা হলেন- মাসুদ রানা (৪৫), তার স্ত্রী জোসনা ওরফে মৌসুমী (৪০) এবং তাদের কন্যা সন্তান জান্নাত (১৮)।

মেহজাবিন পুলিশকে জানান, পারিবারিক কলহের জেরে এই হত্যা। পরিবারের সদস্যদের প্রতি প্রচণ্ড ক্ষোভ ছিল তার। বিশেষ করে বোন জান্নাতুলের সঙ্গে নিজের স্বামী শফিকুলের সম্পর্ক রয়েছে বলে তার সন্দেহ ছিল। এ নিয়ে পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে মনোমালিন্য চলছিল তার। এ বিষয়টি মা বাবাকে বলার পরও কোনো লাভ হয়নি। উল্টো মায়ের সঙ্গে ঝগড়া হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

উল্লেখ্য, তিন জনকে হত্যার ঘটনায় মেহজাবিন ইসলাম ও তার স্বামী শফিকুল ইসলামকে আসামি করে মামলা করে তার চাচা সাখাওয়াত হোসেন মামলাটি দায়ের করেছেন।

সারাবাংলা/এআই/এমও

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন