বিজ্ঞাপন

শিল্পী টাইগার নাজিরের পাশে

July 6, 2021 | 7:54 pm

আবু হাসান

শিল্পী টাইগার নাজির। ফোক ঘরানার শিল্পী। বাঘের চিত্রকে প্রাধান্য দিয়ে ছবি আঁকেন বলে নামের আগে ‘টাইগার’ বিশেষণে ডাকেন বন্ধু ও পরিচিতজনেরা। হ্যাঁ টাইগার নাজিরের কথাই বলছি। করোনা মহামারিতে দারুন অর্থসংকটে পড়ে হিমশিম খাচ্ছিলেন তিনি। সেটা জানা গেল তার ফেসবুক পোস্টের মাধ্যমে। গত ৩ জুলাই তিনি তার ফেসবুকে একটি পোস্ট দেন। সেই পোস্ট হুবহু তুলে ধরছি-

বিজ্ঞাপন

‘প্রিয় বন্ধুরা সবাইকে শুভেচ্ছা, আমি দীর্ঘ দুই যুগ ধরে আমাদের দেশের লোকজ চিত্রকে আন্তর্জাতিকভাবে তুলে ধরার চেষ্টা করছি। মানুষকে সবসময় সুসংবাদ দেওয়ার চেষ্টা করেছি প্রতিটা মুহূর্ত। এই করোনার কারণে আমার মত ফ্রিল্যান্স শিল্পীর পরিবার নিয়ে ঢাকায় বসবাস করতে খুব সমস্যা হয়ে যাচ্ছে। আমার দুই যুগের সংগ্রহের ক্যাটালগ ছবি, বই, আমার শিল্পকর্ম পানির দামে বিক্রয় করতে চাচ্ছি। আগ্রহী দেশপ্রেমিক বন্ধুগণ যোগাযোগ করতে পারেন। ধন্যবাদ।’

শিল্পী টাইগার নাজিরের পাশে

বিজ্ঞাপন

এ তো গেল ৩ জুলাইয়ের ঘটনা। কিন্তু সোমবার (৬ জুলাই) দুপুরে আলোকচিত্রী ও মঞ্চ অভিনেতা বন্ধু তারেকুল ইসলামের শেয়ার দেওয়া খবরেও চোখ আটকে যায়। খবরের শিরোনাম- ‘অভাব টান দিয়েছে ঘরের আসবাবে!’ একটি দৈনিকের ওই নিউজটি আমি আমার টাইমলাইনে সহায়তা চেয়ে পোস্ট করি। পোস্টটি দেখে একজন শিল্পবান্ধব ব্যবসায়ী আমার সঙ্গে যোগযোগ করেন। এবং তিনি আগ্রহ প্রকাশ করেন যে, প্রতিমাসে ১০ হাজার টাকা করে তিনি ছয় মাস শিল্পীকে সহযোগিতা করতে চান! খবরটা পেয়ে দারুণ ভালো লাগে। তারপরের ঘটনা। প্রায় ঘণ্টাখানেক সময়ের মধ্যে শিল্পীর মোবাইলে বিকাশের মাধ্যমে প্রথম মাসের টাকাটা দেন মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ জুয়েল । তিনি মাল্টিমিডিয়া কিংডম নামক প্রতিষ্ঠানের ফাউন্ডার অ্যান্ড সিইও। প্রতিষ্ঠানটি কার্যালয় এলিফ্যান্ট রোডের মাল্টিপ্লান সেন্টারে। সংবাদে নিজের এবং প্রতিষ্ঠানের ছবিও দিতে রাজি নন এই ব্যবসায়ী। তবে অনুরোধে এই এগিয়ে আসার কথাটা জানালেন এইভাবে- ‘আমি আজকে যে জায়গায় বা অবস্থানে আছি, তা শুধু এই আর্টিস্টদের কল্যাণেই। তাদের বিপদে নিজেকে সম্পৃক্ত করতে পারা বিশাল সৌভাগ্যের ব্যাপার।’ সৌভাগ্য আমাদেরও যে আপনাদের মতো ব্যবসায়ী বন্ধু আছ বলে।

শিল্পী টাইগার নাজিরের পাশে

বিজ্ঞাপন

কৃতজ্ঞতায় নুইয়ে আসা শিল্পী টাইগার নাজিরকে কিছু বলতে বললে তিনি বার বার ধন্যবাদ দিচ্ছেন। কেমন লাগছে এখন? এই যে কেউ কেউ এগিয়ে আসছেন আপনার জন্য? উত্তরে তিনি বলেন ‘আমার জন্য আমার বন্ধু বা শুভাকাঙ্ক্ষীরা এগিয়ে আসছেন এটা পরম সৌভাগ্যের ব্যাপার। আমি সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা ও ভালোবাসা জানাচ্ছি।’

শত মহামারিতেও বেঁচে থাকুক আমাদের শিল্প-সাহিত্যের মানুষের। আপনারা যে যার অবস্থান থেকে এগিয়ে আসুন। বাঁচিয়ে রাখুন সম্ভাবনাগুলোকে...

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/পিটিএম

বিজ্ঞাপন

Tags:

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন