বিজ্ঞাপন

আর্থিক প্রতিষ্ঠানের ঋণের কিস্তি পরিশোধে আবারও ছাড়

July 19, 2021 | 10:48 pm

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: করোনাভাইরাস সংক্রমণ পরিস্থিতির কারণে আর্থিক প্রতিষ্ঠানের ঋণ পরিশোধে আবারও ছাড় দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। নতুন নির্দেশনা অনুযায়ী চলতি বছরের ৩০ জুন পর্যন্ত ঋণের কিস্তি পরিশোধ না করলেও ঋণখেলাপি বিবেচনা করা হবে না। এর আগে গত বছরের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত কিস্তি পরিশোধ না করলেও খেলাপির তালিকায় নাম না ওঠানোর সুবিধা দেওয়া হয়েছিল।

বিজ্ঞাপন

সোমবার (১৯ জুলাই) বাংলাদেশ ব্যাংকের আর্থিক প্রতিষ্ঠান ও বাজার বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত একটি সার্কুলার জারি করা হয়েছে। সার্কুলারটি সব আর্থিক প্রতিষ্ঠানের প্রধান নির্বাহীদের কাছে পাঠানো হয়েছে।

সার্কুলার বলা হ‌য়ে‌ছে, গত ৫ জুলাইয়ের সার্কুলারে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছিল— ঋণ, লিজ, অগ্রিমের বিপরীতে ২০২১ সালের জুন পর্যন্ত প্রদেয় কিস্তির ন্যূনতম ৫০ শতাংশ আর্থিক প্রতিষ্ঠান-গ্রাহক সম্পর্কের ভিত্তিতে ৩১ আগস্ট ২০২১ তারিখের মধ্যে পরিশোধ করলে ওই সময়ে ঋণ, লিজ, অগ্রিম বিরূপ মানে শ্রেণিকরণ করা যাবে না।

বিজ্ঞাপন

সার্কুলার বলছে, এক্ষেত্রে জুন পর্যন্ত প্রদেয় কিস্তির অবশিষ্ট অংশ সবশেষ কিস্তির সঙ্গে প্রদেয় হবে। এছাড়া অন্যান্য কিস্তি যথাসময়ে পরিশোধ করতে হবে। অর্থাৎ জুন পর্যন্ত প্রদেয় কিস্তির বাকি অংশ গ্রাহক তার ঋণের সবশেষ কিস্তির সঙ্গে পরিশোধ করতে পারবেন। এছাড়াও ৫ জুলাইয়ের সার্কুলারের অন্যান্য নির্দেশনা অপরিবর্তি থাকবে বলে সোমবারের সার্কুলারে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

এর আগে, ২০২০ সালের মার্চে দেশে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব দেখা দিলে ঋণগ্রহীতাদের সুরক্ষা দিতে ঋণ পরিশোধের বাধ্যবাধকতায় স্থগিতাদেশ দেয় বাংলাদেশ ব্যাংক। পরে সরকারের নির্দেশনায় কেন্দ্রীয় ব্যাংক সার্কুলার জারি করে জানায়, ২০২০ সালের জানুয়ারি থেকে ২০২০ সালের জুন পর্যন্ত কোনো ঋণগ্রহীতা ঋণ শোধ না করলেও ঋণের শ্রেণিমানে কোনো পরিবর্তন আনা যাবে না। এরপর এই সুবিধার মেয়াদ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বাড়ানো হয়। পরে আরেক নির্দেশনায় তৃতীয় দফায় এ সুযোগ বাড়িয়ে ২০২০ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত  করা হয়। পরে এই সুবিধা এ বছরের ৩০ জুন পর্যন্ত বাড়ানো হয়।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/জিএস/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন