বিজ্ঞাপন

শেষ মুহূর্তেও টোকিও অলিম্পিক বাতিলের শঙ্কা

July 21, 2021 | 1:00 pm

স্পোর্টস ডেস্ক

'টোকিও অলিম্পিক ২০২০' এর ওপর থেকে কালো ছায়া কিছুতেই সরছে না। একের পর এক বাধার সম্মুখীন হতে হচ্ছে আয়োজকদের। তবে সব বাধা বিপত্তি কাটিয়ে গেমস আয়োজনের ঠিক সামনে দাঁড়িয়েও শঙ্কা জেগেছে বাতিলের। কেননা ইতোমধ্যেই খেলোয়াড়দের ভিলেজে ঢুকে পড়েছে করোনাভাইরাস। আর একারণেই শেষ মুহূর্তে এসেও অলিম্পিক বাতিলের শঙ্কা দেখছেন ‘টোকিও অলিম্পিক ২০২০’-এর আয়োজক কমিটির প্রধান।

বিজ্ঞাপন

অলিম্পিকে অংশ নিতে যাওয়া অ্যাথলেটদের মধ্যে ইতোমধ্যেই মিলেছে কোভিড-১৯ এর উপস্থিতি। কেবল খেলোয়াড়ই নয়, সেই সঙ্গে সম্পৃক্তদের অনেকের মধ্যেই এই ভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া গেছে। আর অ্যাথলেট ও সম্পৃক্তদের সঙ্গে সঙ্গে আয়োজক শহরেও করোনাভাইরাস ছড়াচ্ছে নতুন আতঙ্ক। এমন পরিস্থিতিতে জাপানে অলিম্পিক বাতিলের দাবি ক্রমশ জোরালো হচ্ছে।

এর আগে জাপানের সাধারণ মানুষ 'টোকিও অলিম্পিক-২০২০' বাতিলের দাবিতে রাস্তায় আন্দোলনেও নেমেছিল। তবে এসব বাধা ডিঙিয়ে যখনই গেমস আয়োজনের দ্বারপ্রান্তে আয়োজকরা ঠিক তখনই একের পর এক অ্যাথলেট এবং অ্যাথলেটদের ভিলেজে করোনা আক্রান্তের দুঃসংবাদ।

বিজ্ঞাপন

বিশ্বের সবচেয়ে বড় এই ক্রীড়া আসর শুরু হতে বাকি আর মাত্র দুই দিন। এর আগেই আসরটি বাতিল হওয়ার সম্ভবনার প্রসঙ্গে আয়োজক কমিটির প্রধান তোশিরো মুতো বলেন, তিনি সংক্রমণ সংখ্যার ওপর নজর রাখবেন এবং প্রয়োজনে অন্য আয়োজক প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে আলোচনায় বসবেন।

'করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা কেমন হবে তা আমরা অনুমান করতে পরছি না। তাই আক্রান্তের সংখ্যা বাড়লে আমরা আলোচনা চালিয়ে যাব।'

বিজ্ঞাপন

তিনি আরও বলেন, 'করোনাভাইরাস পরিস্থিতির ওপর ভিত্তি করে আবারও আমরা পাঁচ পক্ষের বৈঠকে বসব। এই মুহূর্তে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়তে পারে, আবার কমতেও পারে। আক্রান্তের সংখ্যা বাড়লে আমাদের কি করণীয় সেটা ভেবে দেখব।'

সামগ্রিকভাবে জাপানে করোনাভাইরাস পরিস্থিতি অন্যান্য দেশের তুলনায় খারাপ না হলেও দেশটিতে এখন পর্যন্ত আট লক্ষের বেশি মানুষ এই রোগে আক্রান্ত হয়েছেন এবং প্রাণ হারিয়েছেন পনের হাজার মানুষ।

বিজ্ঞাপন

শনিবার টোকিওতে নতুন করে এক হাজার ৩৮৭ জনের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। টানা ছয় দিন ধরে শনাক্ত রোগী এক হাজার ছাড়িয়েছে শহরটিতে।

সারাবাংলা/এসএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন