বিজ্ঞাপন

কর্ণাটকে সরকার হটাতে পেগাসাস ব্যবহার

July 21, 2021 | 2:33 pm

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

ইসরাইলি গোয়েন্দা প্রযুক্তি পেগাসাস ম্যালওয়্যার ব্যবহার করে ভারতের কর্ণাটক রাজ্যে তৎকালীন ক্ষমতাসীন কংগ্রেস-জেডিএস জোট নেতাদের সেলফোনেও আড়িপাতার মাধ্যমে সরকার হটিয়েছিল বিজেপি এমন অভিযোগ উঠেছে। খবর ডয়চে ভেলে।

বিজ্ঞাপন

সম্প্রতি ভারতে পেগাসাস ব্যবহার করে দেশটির বিভিন্নখাতের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের ফোনে আড়িপাতার নতুন নতুন অভিযোগ সামনে আসছে। সেই তালিকায় রাহুল গান্ধীর মতো নেতার নাম যেমন রয়েছে। তেমনি রয়েছে প্রশান্ত কিশোরের মতো ভোটকৌশলীর নামও।

এছাড়াও, ভারতের দুই কেন্দ্রীয় মন্ত্রী, শিল্পপতি এবং সরকারি শীর্ষ আমলাদের ওপর পেগাসাস ম্যালওয়্যার ব্যবহার করে নজরদারির অভিযোগ আগে থেকেই উঠে আসছে। এবার, কর্ণাটক সরকার পতনের জন্য পেগাসাস ম্যালওয়্যার ব্যবহার করে আড়িপাতার অভিযোগ উঠলো।

বিজ্ঞাপন

আরও পড়ুন - সরকারিভাবে ফোনে আড়িপাতার ঘটনা ফাঁস

কর্ণাটকে জেডিএস নেতা কুমারস্বামীর নেতৃত্বে জেডিএস-কংগ্রেস জোট সরকার গঠিত হয়েছিল। পরে বিজেপি ওই দুই দল থেকে বিধায়ক ভাগিয়ে এনে সরকার পতন ঘটায় বলে বিরোধীরা অভিযোগ করে থাকেন।

বিজ্ঞাপন

পেগাসাস ম্যালওয়্যার নিয়ে প্রকাশিত নতুন এক অনুসন্ধানী প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সেই সময় মুখ্যমন্ত্রী কুমরস্বামী, উপমুখ্যমন্ত্রী পরমেশ্বর, কংগ্রেস নেতা সিদ্দারামাইয়ার সেলফোন হ্যাক করার চেষ্টা করা হয়।

এছাড়াও, সাবেক প্রধানমন্ত্রী দেবগৌড়ার এক দেহরক্ষীর ফোনেও আড়িপাতার অভিযোগ উঠেছে। সেই সময় ১৭ জন কংগ্রেস-জেডিএস বিধায়ক পদত্যাগ করায় সরকার পতন হয়য়। বিরোধীদের অভিযোগ, পুরোটাই বিজেপি'র সাজানো অপারেশন কমল কৌশলের অঙ্গ।

বিজ্ঞাপন

এদিকে, পেগাসাস কেলেঙ্কারিতে যে সব ফোন নম্বর ফাঁস হয়েছে, তাতে কর্ণাটকের নেতাদের নম্বরও আছে। কিন্তু মোবাইলের ফরেনসিক পরীক্ষা হয়নি বলে, তাতে পেগাসাসের মাধ্যমে আড়িপাতা হয়েছিল কি না, তা নিশ্চিতভাবে বলা সম্ভব নয়।

এ ব্যপারে সাবেক মুখ্যমন্ত্রী কুমারস্বামী ডয়চে ভেলেকে বলেছেন, তিনি অবাক নন। তার সরকার ফেলার জন্য আড়ি পাতার প্রশ্ন আগেও উঠেছিল।

বিজ্ঞাপন

অন্যদিকে, পেগাসাস ম্যালওয়্যারের নির্মাতা ইসরাইলি প্রতিষ্ঠান এনএসও ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম এনডিটিভিকে জানিয়েছে, ভারতের যেসব ফোন নম্বরের তালিকা প্রকাশিত হয়েছে। তা তাদের কাছে কখনোই ছিল না। মনগড়া তথ্য পরিবেশন করা হচ্ছে।

এনএসও জানিয়েছে, যারা পেগাসাস কিনেছে, তাদের তথ্যে অন্য কোনো কোম্পানি অ্যাকসেস করতে পারে না।

সংস্থার মুখপাত্র জানিয়েছেন, যদি তাদের সফটওয়্যারের অপব্যবহারের কোনো তথ্য কেউ দিতে পারেন, তা হলে তারা বিস্তারিত তদন্ত করে দেখবেন।

সারাবাংলা/একেএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন