বিজ্ঞাপন

শঙ্কার মেঘ অস্ট্রেলিয়ার বাংলাদেশ সফরে

July 23, 2021 | 12:24 pm

স্পোর্টস ডেস্ক

ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও অস্ট্রেলিয়ার মধ্যকার টি-টোয়েন্টি সিরিজটা ভালোই ভালোই শেষ করলেও ওয়ানডে সিরিজে এসে বিপত্তিতে ঘটেছে। বৃহস্পতিবার (২২ জুলাই) দ্বিতীয় ওয়ানডেতে টস হওয়ার পরেও ম্যাচটি স্থগিত করা হয়। ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলের এক কর্মী করোনা পজিটিভ হওয়ার পরপরই তড়িৎ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। তবে প্রশ্নের উদ্রেক ঘটতে পারে এতে করে বাংলাদেশ সফরে শঙ্কার মেঘ কেন? এর পেছনে রয়েছে অস্ট্রেলিয়ান সংবাদমাধ্যমের উদ্বেগ।

বিজ্ঞাপন

অস্ট্রেলিয়ার দুই স্বনামধন্য সংবাদমাধ্যম ফক্স স্পোর্টস এবং সিডনি মর্নিং হেরাল্ড বাংলাদেশের করোনা পরিস্থিতি নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেছে। সেই সঙ্গে অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটারদের নতুন করে করোনা পরীক্ষার ফলাফলের উপরেই বাংলাদেশ সফরের ভাগ্য নির্ভর করছে।

বর্তমানে ওয়েস্ট ইন্ডিজ এবং অস্ট্রেলিয়া দুই দলের সকল খেলোয়াড়ই আইসোলেশনে রয়েছেন। আর তাতেই শঙ্কা জেগেছি এই সিরিজের দ্বিতীয় এবং তৃতীয় ওয়ানডে নিয়েও। অবশ্য কেবল এই সিরিজ নয়, সামনে ওয়েস্ট ইন্ডিজের ঘরের মাঠে দুটি টেস্ট ও পাঁচ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি খেলতে আসা পাকিস্তান সিরিজ এবং অস্ট্রেলিয়ার বাংলাদেশ সফর নিয়েও জেগেছে শঙ্কা।

বিজ্ঞাপন

এখন পর্যন্ত কোনো ম্যাচ বাতিল বা স্থগিত করার কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি বলে ‘সিডনি মর্নিং হেরাল্ড’ ও ‘ফক্স স্পোর্টস’ জানিয়েছে। তবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলের এক সাপোর্ট স্টাফের করোনা পজিটিভ হওয়ায় এখন অস্ট্রেলিয়া দলের বাংলাদেশ সফরও জটিলতার মুখে পড়তে পারে এমনটা মত এই দুই সংবাদমাধ্যমের।

ফক্স স্পোর্টসের মতে, অস্ট্রেলিয়া দলের বাংলাদেশ সফর নিয়েও জটিলতা তৈরি হতে পারে। পাঁচ ম্যাচের এই টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলতে বাংলাদেশে আসবে অস্ট্রেলিয়া। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে তৃতীয় ম্যাচ শেষ করেই বাংলাদেশের উদ্দেশে উড়াল দেওয়ার কথা তাদের।

বিজ্ঞাপন

কিন্তু বাংলাদেশে করোনা পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে সিডনি মর্নিং হেরাল্ড। তাদের প্রতিবেদনে বলা হয় 'প্রতিদিন মৃত্যু প্রায় ২০০ আর সংক্রমণ ১১ হাজারের মতো, যদিও আসল সংখ্যাটা এর চেয়ে অনেক বেশি বলেই ধারণা।'

তবে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার (সিএ) দাবি, বাংলাদেশ সফর আইপিএল ও দক্ষিণ আফ্রিকার মতো হবে না। কারণ, এক মাঠে সবগুলো ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়াও কঠোর জৈব সুরক্ষাবলয় থাকছে। পুলিশবেষ্টিত হোটেলেও নিরাপত্তা দেওয়া হবে। দলের খেলোয়াড় থেকে সাপোর্ট স্টাফদের সবাই টিকাও নিয়েছেন, জানিয়েছে সিডনি মর্নিং হেরাল্ড।

বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশে এক সপ্তাহের ব্যবধানে ৫টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলার কথা অস্ট্রেলিয়ার। প্রথম টি-টোয়েন্টি শুরু হবে ৩ আগস্ট। ফক্স স্পোর্টস জানিয়েছে, ‘এসব ম্যাচের ভাগ্য অনেকাংশে নির্ভর করছে শুক্রবারের কোভিড-১৯ পরীক্ষার ফলাফলের ওপর।’

সারাবাংলা/এসএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন