বিজ্ঞাপন

ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টে তরুণদের ঝুঁকি নিয়ে বিশেষজ্ঞদের সতর্কবার্তা

July 26, 2021 | 3:31 pm

লাইফস্টাইল ডেস্ক

করোনাভাইরাসের ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট তরুণদের জন্য যথেষ্ট ঝুঁকির কারণ বলে সতর্ক করেছেন বিশেষজ্ঞরা। অস্ট্রেলিয়ার সিডনীতে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ত্রিশ বছর বয়সী এক নারীর মৃত্যুর পর তরুণদের প্রতি এ সতর্কবার্তা দিয়েছেন তারা। শনিবার রাতে সিডনীর রয়েল প্রিন্স আলফ্রেড হাসপাতালে মারা যাওয়া ঐ নারীর আগে তেমন কোন শারীরিক অসুস্থতা ছিল না।

বিজ্ঞাপন

নতুন করে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব শুরু হওয়ার পর অস্ট্রেলিয়ার নিউ সাউথ ওয়েলসয়ে এখন পর্যন্ত করোনায় আটজনের মৃত্যু হয়েছে।

নোবেল পুরস্কারজয়ী সংক্রমণ বিশেষজ্ঞ পিটার ডোহার্টি বলেছেন, ‘আগে শুধু বয়স্কদের জন্য কোভিড-১৯ কে মারাত্মক ধরা হতো। এখন কিন্তু তা নয়।’

বিজ্ঞাপন

ডোহার্টি আরো বলেন, ‘এটা অত্যন্ত দুঃখের বিষয় যে করোনা বা এই সম্পর্কিত যেকোন কিছু থেকে একজন কম বয়সী নারীও মারা যেতে পারে। তবে আমি মনে করি, এই ঘটনার কারণে এটা সামনে এসেছে যে করোনাভাইরাসের ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট তরুণদের জন্য অনেক সমস্যা তৈরি করতে পারে।’

তিনি বলেন, ‘ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের কারণে তরুণরা যথেষ্ট ঝুঁকিতে আছে এবং আগের ভ্যারিয়েন্টগুলোর তুলনায় এটি বেশ ঝুঁকিপূর্ণ। তাই তরুণদের এমন ভাবলে চলবে না যে করোনায় তাদের ঝুঁকি নেই বা তারা কম ঝুঁকিতে আছেন। কারণ এটি তরুণদেরও মৃত্যুর কারণ হচ্ছে।’

বিজ্ঞাপন

নিউ সাউথ ওয়েলস প্রিমিয়ারের সংসদ সদস্য গ্ল্যাডিস বেরেজিক্লিয়ান, কঠিন এ রোগের বিষয়ে তরুণদের সতর্ক করেছেন। তিনি বলেন, ‘যদি কেউ মনে করে থাকেন যে এ রোগে শুধু বয়স্করা আক্রান্ত হন, তাহলে দয়া করে আরেকবার ভাবুন।’

করোনায় মৃত্যু হওয়া পরিবারগুলোর প্রতি সমবেদনা জানিয়ে তিনি বলেন, আগের কোন শারীরিক অসুস্থতা ছাড়াও কম বয়সীরা এ রোগে আক্রান্ত হতে পারেন।

বিজ্ঞাপন

নিউ সাউথ ওয়েলসে গত রোববার ১৪১ জনের করোনা সংক্রমণ পাওয়া গেছে। এদের মধ্যে ৪৩ জনকে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। তাদের মধ্যে রয়েছেন একজন টিনেজার, ২০ বছর বয়সী ৭জন, ৩০ বছর বয়সী আছেন ৩ জন, ৫০ বছরের ১৪ জন, ৬০ বছরের ১২ জন এবং ৭০ বছরের আছেন ৬জন।

নিউ সাউথ ওয়েলস এর স্বাস্থ্য কর্মকর্তা জেরেমি ম্যাকএন্টি জানান, ‘ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট সব বয়সীদেরই মারাত্মকভাবে আক্রান্ত করছে।’

বিজ্ঞাপন

নিউ সাউথ ওয়েলস অস্ট্রেলিয়ান মেডিক্যাল এসোসিয়েশনের সভাপতি ডেনিয়েল ম্যাকমুলেন বলেন, ‘কোভিড-১৯ এ ৩০ বছর বয়সী নারীর মৃত্যুর ঘটনাটি আমাদের খুব শক্তভাবে মনে করিয়ে দেয় যে, এটি কতটা মারাত্মক।’

ডেনিয়েল আরো বলেন, ‘কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত হয়ে যেকোন মৃত্যুই দুঃখজনক, বিশেষ করে যখন খুব অল্প বয়সী কেউ এ রোগে মারা যায়। এ ঘটনা থেকে আমাদের অবশ্যই শিক্ষা নিতে হবে এবং অবশ্যই মনে রাখতে হবে যে, কোভিড-১৯ খুবই মারাত্মক একটি রোগ।’

তরুণদের জন্য এটি সত্যিই কঠিন উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আমি কম বয়সী রোগীদের মধ্যে টিকা নেওয়ার আগ্রহ দেখেছি। তবে এটি খুবই হতাশাজনক যে, যারা নিজেরা কোভিড আক্রান্ত হতে পারেন বলে জানেন তারা এখনো ভ্যাকসিন নিতে পারছেন না।’

সারাবাংলা/এসএসএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন