বিজ্ঞাপন

চীনে করোনার সংক্রমণ ফের ঊর্ধ্বমুখী

July 30, 2021 | 6:31 pm

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

নভেল করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) উৎপত্তিস্থল হিসেবে বিবেচিত চীনে ফের সংক্রমণ বাড়ছে। নতুন উদ্বেগ সৃষ্টিকারী ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট দেশটির অন্তত ১২টি বড় শহরে ছড়িয়ে পড়েছে। ইতিমধ্যে জিয়াংসু প্রদেশে কঠোর লকডাউন জারি করেছে কর্তৃপক্ষ। বিবিসির খবর।

বিজ্ঞাপন

দেশটির জিয়াংসু প্রদেশের রাজধানী নানজিং থেকে ফের এ ভাইরাসের বিস্তার ঘটছে। জানা গেছে, গত ১০ জুলাই নানজিং শহরের বিমানবন্দরে রাশিয়া থেকে আসা একটি বিমানের পরিচ্ছন্নতাকর্মীদের শরীরে করোনার ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের অস্তিত্ব শনাক্ত হয়েছে। তবে তাদের সময় মতো শনাক্ত করতে পারেনি ওই শহর কর্তৃপক্ষ। এর আগেই তারা বা তাদের সংস্পর্শে আসা বহু লোক বেইজিংসহ অন্যান্য প্রদেশে ছড়িয়ে পড়েন। এতে ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট বেইজিং, চেংদুসহ বহু শহরে ছড়িয়ে পড়েছে। নানজিং শহর থেকে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাসে নতুন করে চীনে ২০৬ জন আক্রান্ত হয়েছেন।

জানা গেছে, শুক্রবার থেকে নানজিং প্রদেশে কঠোর লকডাউন জারি করেছে কর্তৃপক্ষ। নানজিং প্রদেশের স্বাস্থ্য বিভাগ জানিয়েছে, আক্রান্তদের মধ্যে অন্তত ৭ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। এছাড়া নতুন করে আক্রান্তদের অনেকেই করোনার ভ্যাকসিন নেননি।

বিজ্ঞাপন

খবরে বলা হয়েছে, এবার দেশটির যে বিশাল অঞ্চলজুড়ে নতুন করে ভাইরাসের বিস্তার ঘটেছে, তা গত কয়েকমাসের মধ্যে সবচেয়ে বেশি। ইতিমধ্যে বেইজিংয়ের চাংপিং এলাকার ৪১ হাজার মানুষকে বাড়িতে থাকার নির্দেশ দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। এছাড়া জিয়াংসু প্রদেশে কঠোর লকডাউন জারি করা হয়েছে।

চীনের রাষ্ট্রায়ত্ত সংবাদমাধ্যম শিনহুয়া নিউজের খবরে বলা হয়েছে, গত কয়েকদিন নানজিং শহরের বাসিন্দারা যেখানেই গিয়েছেন সেসব এলাকার সবার করোনা পরীক্ষা করা হবে।

বিজ্ঞাপন

উল্লেখ্য, করোনার ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট প্রথম ভারতে শনাক্ত হয়। এ ভ্যারিয়েন্টের বিস্তার ক্ষমতা অতিসংক্রামক জলবসন্ত বা হামের মতোই বলে সতর্কবার্তা জানিয়েছেন মার্কিন সংস্থা সিডিসি।

প্রসঙ্গত, ২০১৯ সালের শেষ দিকে চীনের হুবেই প্রদেশের রাজধানী উহানে প্রথম নভেল করোনাভাইরাসে আক্রান্ত শনাক্ত হয়। সে সময় ওই প্রদেশে কঠোর লকডাউন জারি করে চীন সরকার। তবে হুবেই প্রদেশে থাকা বহু বিদেশি নাগরিক লকডাউনের মধ্যেও নিজ নিজ দেশে ফেরত যান। পরে ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারি মাস নাগাদ এ ভাইরাসের সংক্রমণ এশিয়া, ইউরোপ, আমেরিকা মহাদেশের বহু দেশে ছড়িয়ে পড়ে। ২০২০ সালের মাঝামাঝি সময়ে এ ভাইরাসে সারা বিশ্বকে কার্যত অচল করে রাখে। তবে গোটা বিশ্ব যখন করোনায় আক্রান্ত, তখন চীনে কঠোর বিধিনিষেধ ও লকডাউনের কারণে করোনার প্রাদুর্ভাব নিয়ন্ত্রণে চলে আসে।  এবার ফের সংক্রমণ বাড়ায় ফের কঠোর পদক্ষেপ নিচ্ছে বেইজিং।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/আইই

বিজ্ঞাপন

Tags:

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন