বিজ্ঞাপন

আরও দুই ফাইনাল থেকে সরে দাঁড়ালেন বাইলস

July 31, 2021 | 11:16 am

স্পোর্টস ডেস্ক

মানসিকভাবে সুস্থবোধ না করায় টোকিও অলিম্পিকের অল-রাউন্ড জিমন্যাস্টিক থেকে সরে দাঁড়িয়েছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের সাইমন বাইলস। এবার নতুন করে আরও দুই ফাইনাল থেকে নিজের নাম প্রত্যাহার করে নিলেন এই জিমন্যাস্ট। আগামী রোববারের ভল্ট এবং আনইভেন বার্সের ফাইনাল থেকে নিজেকে সরিয়ে নিয়েছেন চারবারের অলিম্পিক সোনাজয়ী বাইলস।

বিজ্ঞাপন

চিকিৎসকদের সঙ্গে আলোচনা করে প্রথমে গত বৃহস্পতিবারের ফাইনাল থেকে সরিয়ে নেওয়ার ঘোষণা দেন যুক্তরাষ্ট্রের তারকা এই অ্যাথলেট। তবে যদি তিনি সুস্থবোধ করেন তবেই কেবল আগামী সপ্তাহের চারটি এককের ফাইনালে অংশগ্রহণ করবেন-এমনটাই জানিয়েছিলেন সে সময়।

আরও পড়ুন: মানসিক স্বাস্থ্যের কারণে ফাইনাল থেকে সরে দাঁড়ালেন সাইমন

বিজ্ঞাপন

তবে এখনো নিজেকে প্রস্তুত মনে করছেন না বাইলস। তাই তো আরও দুটি ফাইনলা থেকে নিজেকে সরিয়ে নিলেন। ২ ও ৩ আগস্টের ফ্লোর এবং ব্যালান্স বিমের ফাইনালে বাইলস অংশগ্রহণ করবেন কিনা তা নিয়ে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেননি।

বাইলসের পরিবর্তে মাইকাইলা স্কিনার যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষে ফাইনালে লড়বেন। বাছাইপর্বে দেশটির হয়ে তাঁর স্কোরই ছিল সর্বোচ্চ। স্কিনারের সঙ্গে থাকবেন জেড ক্যারি।

বিজ্ঞাপন

প্রসঙ্গত, ২৪ বছর বয়সী এই জিমন্যাস্ট পাঁচটি এককেরই ফাইনালে উঠেছিলেন। বৃহস্পতিবার নিজের মুকুট ধরে রাখার লড়াইয়ে নামার কথা ছিল। এছড়াও আগামী রোব, সোম, মঙ্গল এবং বুধবার আরও চারটি পৃথক ইভেন্টের ফাইনালেও সোনা জয়ের লক্ষ্যে তাঁর মাঠে নামার কথা ছিল।

যুক্তরাষ্ট্রের জিমন্যাস্টিক থেকে এক বিবৃতিতে সাইমনের সিদ্ধান্তকে অনেক সাহসী সিদ্ধান্ত বলে আখ্যা দিয়ে সমর্থন জানিয়েছে।

বিজ্ঞাপন

আরও দুই ফাইনাল থেকে সরে দাঁড়ালেন বাইলস

'আমরা সবাই সাইমনের সাহসী সিদ্ধান্তের প্রশংসা করছি। সে অনেক সাহসিকতা দেখিয়েছে নিজের মানসিক স্বাস্থ্যের গুরুত্ব দিয়ে। সে একজন আদর্শ।'

বিজ্ঞাপন

সাইমন অলিম্পিকে নিজের সবচেয়ে কম স্কোর করেছিলেন দলগত ফাইনালে। এবং এরপরই স্টেডিয়াম ছাড়েন সাইমন কিন্তু পরবর্তিতে নিজের সতীর্থদের সমর্থন দিতে ফেরত আসেন মাঠে।

দলগত ইভেন্টে রূপা জয়ের পর সাইমনের অলিম্পিক এবং বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপের পদক সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩০টিতে।

ফাইনাল থেকে নিজেকে সরিয়ে নেওয়ার পর সাইমন বলেন, 'ওমন পারফরম্যান্স করার পর আমি আর এগোতে চাচ্ছিলাম না। আমাকে আমার মানসিক স্বাস্থ্যের দিকেও নজর দিতে হবে। আমার মস্তিষ্ক এখন খেলাধুলার দিকে নেই। আমাদের নিজেদের মন এবং শরীরকে সুস্থ রাখতে হবে। কেবলই গোটা বিশ্ব যা দেখতে চায় তাই করে যেতে হবে এমনটা না।'

'আমি আত্মবিশ্বাস হারিয়ে ফেলেছিলাম। মনে হচ্ছে আমি বুড়িয়ে যাচ্ছি। অনেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আমাদের নিয়ে অনেক আলোচনা করে এবং সেটাই চাপের কারণ হয়ে দাঁড়ায়। আমরা কেবল অ্যাথলেট নই, দিন শেষে আমরাও তো একজন সাধারণ মানুষ। আর তাই মাঝেমধ্যে আমাদেরও একটু পিছু হটতে হয়।'-যোগ করেন সাইমন।

যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসের অন্যতম সেরা অ্যাথলেট সাঁতারু মাইকেল ফেলপ্স-সহ আরও অনেক অ্যাথলেটই সাইমনের এমন সিদ্ধান্তের প্রতি সমর্থন দিয়েছেন।

সারাবাংলা/এসএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন