বিজ্ঞাপন

দেশ ছাড়লেন তালেবান নেতার সাক্ষাৎকার নেওয়া সেই নারী উপস্থাপক

August 31, 2021 | 1:56 pm

ফিচার ডেস্ক

তালেবান নেতার সাক্ষাৎকার নিয়ে শিরোনাম হওয়া নারী উপস্থাপক বেহেস্তা আরঘান্দ এবার নিজ দেশ আফগানিস্তান ছেড়ে গেলেন। মঙ্গলবার পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের সঙ্গে কাতার এয়ারফোর্সের একটি ফ্লাইটে দেশ ছাড়েন তিনি।

বিজ্ঞাপন

টলো নিউজের উপস্থাপক বেহেস্তা সিএনএনকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে দেশ ছাড়ার কারণ হিসেবে বলেন, ‘লাখো আফগানদের মতো, আমিও তালেবানদের ভয়ে ভীত।’ তিনি আরো বলেন, ‘তালেবান যা বলছে তা যদি সত্যি হয়, পরিস্থিতি যদি ভালো হয় এবং যদি নিজেকে নিরাপদ মনে করি তাহলে অবশ্যই আমি আমার দেশে ফিরে যাব। আমি আমার দেশের জন্য কাজ করতে চাই, দেশের মানুষের জন্য কাজ করতে চাই।’

এ বিষয়ে টলো নিউজের কর্ণধার সাদ মোহসেনি সিএনএনকে বলেন, ‘বেহেস্তার ঘটনা আফগানিস্তানের বর্তমান চিত্রই তুলে ধরে।’ তিনি আরো বলেন, ‘আমাদের প্রায় সব প্রতিবেদক ও সাংবাদিক দেশ ছেড়ে গেছেন। তাদের জায়গায় নতুন লোকজন নেওয়া ও তাদের দিয়ে কাজ করতে আমাদের বেগ পেতে হচ্ছে।’

বিজ্ঞাপন

১৫ আগস্ট কাবুল দখল করার পর ১৭ আগস্ট টলো নিউজে এক তালেবান মুখপাত্রের সাক্ষাৎকার নেন বেহেস্তা। সেই সাক্ষাৎকারে তিনি তালেবানদের বাড়ি বাড়ি তল্লাশি ও তাদের ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা সম্পর্কে জানতে চান।

এর দুদিন পরই বেহেস্তা নোবেল বিজয়ী পাকিস্তানি তরুনী মালালা ইউসুফজাই এর সাক্ষাৎকার নেন। এই প্রথম কোন আফগান টেলিভিশনে সাক্ষাৎকার দেন মালালা। এর ২ দিন পর মালালার কাছে দেশ ছাড়ার জন্য সাহায্য চান বেহেস্তা।

বিজ্ঞাপন

কাবুল দখলে নেওয়ার পর তালেবানরা জানিয়েছিল, শরীয়া আইনের আওতায় নারীদের স্বাধীনতা দেওয়া হবে এবং তারা বাইরে কাজ করতে পারবে। কিন্তু বেহেস্তার কাছে তালেবানের সাক্ষাৎকারের একদিন পরই আফগানিস্তানের একটি সরকারি নিউজ চ্যানেলে নারী উপস্থাপকদের নিষিদ্ধ করা হয়।

এর আগে ক্ষমতায় থাকাকালীন(১৯৯৬-২০০১) নারীদের চলাফেরার ওপর কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করে তালেবান। নারীদের পড়ালেখা ও বাইরে কাজ করা সম্পূর্ণ নিষেধ ছিল। সবসময় বাড়িতে থাকতে হতো। প্রকাশ্যে কোন নারীর মুখ বা পায়ের অংশ দেখা গেলে কঠোর নির্যাতন ও শাস্তি পেতে হতো।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এসএসএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন