বিজ্ঞাপন

ক্র্যাব নিউজ পোর্টালে কেউ যেন প্রভাব খাটাতে না পারে: তথ্যমন্ত্রী

September 1, 2021 | 3:46 pm

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, ক্র্যাব যে নিউজ পোর্টাল করেছে; সেই নিউজ পোর্টালে কেউ যেন নিউজ বন্ধ করতে না পারে। কেউ যেন প্রভাব খাটাতে না পারে। কোনো প্রভাবশালী যেন ক্ষমতা প্রয়োগ করতে না পারে। সবসময় যেন সত্য প্রকাশ পায়।

বিজ্ঞাপন

বুধবার (১ সেপ্টেম্বর) দুপুরে ডিআরইউ নসরুল হামিদ মিলনায়তনে ক্র্যাব নিউজ পোর্টাল (crabnewsbd.com) উদ্বোধন উপলক্ষে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

সেই সঙ্গে তথ্যমন্ত্রী অনুরোধ করে বলেন, কেউ যেন অহেতুক হয়রানির শিকার না হয়। কারো লঘু অপরাধ যেন বড় করে প্রকাশ করা না হয়।

বিজ্ঞাপন

এ সময় মন্ত্রী বলেন, সারাদেশে ব্যাঙ্গের ছাতার মতো অনলাইন পোর্টালগুলো মাথা ব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। শুধু বাংলাদেশেই নয় সারাবিশ্বেই এটা মাথা ব্যাথার কারণ। অনেক পোর্টাল বন্ধ করা হয়েছে। অনেককে নিবন্ধন দেওয়া হয়েছে। এখনও নিবন্ধন চালু আছে। আরও কিছু নিবন্ধন দেওয়ার পর ম্যাসিভ অ্যাকশনে যাওয়া হবে।

আইপিটিভির বিষয়ে তথ্যমন্ত্রী বলেন, আইপিটিভির ক্ষেত্রেও একই অবস্থা। সারা বিশ্বেই আইপিটিভি রয়েছে। তবে তারা কোনো সংবাদ প্রকাশ করতে পারবে না। টিভির মতো তারা প্রেস কার্ড ব্যবহার করতে পারবে না। কয়েকটি আইপিটিভির নিবন্ধন দিয়ে বাকীগুলো বন্ধ করে দেওয়া হবে।

বিজ্ঞাপন

সচিবালয়ের অ্যাক্রিডিটেশন কার্ডের বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানতে চেয়েছে কয়েক হাজার কার্ড কারা ব্যবহার করেন। এরা কারা তাদের তালিকা চেয়েছেন। আমরা তালিকা দিয়েছি। তালিকা দিতে গিয়ে সেখানে উঠে এসেছে একেকটি পত্রিকা হাউস ২৫ থেকে ৩০টি কার্ড নিয়েছেন। কিন্তু এত কার্ডধারী ব্যক্তিরা কি সচিবালয় বিট কাভার করেন। বড়জোড় ৩/৪ জন কাভার করেন। এসব কার্ড বাতিল করা হবে।

নির্বাচন কমিশনে সাংবাদিকদের কর্ম পরিবেশ নিয়ে মন্ত্রী বলেন, যে সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে সেটি সাংবাদিকদের একটি প্রতিনিধিদল গেলেই আশা করছি সমাধান হয়ে যাবে। সমাধান না হলে তথ্য মন্ত্রণালয় হস্তক্ষেপ করবে। কারণ সেখানে একজন জ্ঞান শূন্য পুলিশ কর্মকর্তার কারণে সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের বিষয়ে তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ বলেন, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে সকল নাগরিক সুফল পাচ্ছে এবং পাবে। তবে সাংবাদিকরা কোনোভাবেই যেন হয়রানির শিকার না হন, সেদিক দেখা হচ্ছে। এরইমধ্যে আগের চেয়ে সাংবাদিকদের হয়রানি কমে এসেছে। কোনো সাংবাদিকের ওপর এই আইন যেন অপপ্রয়োগ করা না হয় সেদিক আমরা দেখছি।

ডিজিটাল নিরাপত্তার বিষয়ে বলতে গিয়ে তিনি নারী ও শিশু নির্যাতন মামলার প্রসঙ্গ টেনে বলেন, এক সমীক্ষায় দেখা গেছে, নারী ও শিশু নির্যাতন মামলাগুলোর ক্ষেত্রে ৮০ ভাগই হয়রানি বা অপপ্রয়োগের শিকার হচ্ছে। যেটি হওয়া উচিত না। কোনো আইনেই অপপ্রয়োগ কাম্য নয়।

বিজ্ঞাপন

বিএনপির বিষয়ে ড. হাছান মাহমুদ বলেন, বিএনপির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী সামনে। প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে বিএনপিকে বলব, তারা যেন জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাসবাদ ও অগ্নি সন্ত্রাস থেকে বেরিয়ে আসে। তাহলে কেবল বিএনপির রাজনীতি জনগণের কাজে আসবে।

এছাড়াও অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ক্র্যাবের সভাপতি মিজান মালিক, সাধারণ সম্পাদক আলাউদ্দিন আরিফ, ডিআরইউ সভাপতি মোরসালিন নোমানী ও সাধারণ সম্পাদক মশিউর রহমান খান প্রমুখ।

সারাবাংলা/ইউজে/এএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন