বিজ্ঞাপন

বিমানবন্দরে পিসিআর পরীক্ষার দায়িত্ব একটি ল্যাবকে দেওয়ার পাঁয়তারা

September 11, 2021 | 10:30 am

সৈকত ভৌমিক, সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: প্রবাসীসহ বিদেশগামী যাত্রীদের নভেল করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) সংক্রমণ শনাক্তের নমুনা পরীক্ষার জন্য দেশে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে র‍্যাপিড পিসিআর মেশিন স্থাপনের উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। এই ল্যাবের পরিচালনার দায়িত্বে থাকবে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়।

বিজ্ঞাপন

অভিযোগ উঠেছে, ল্যাব পরিচালনার জন্য ‘এক্সপ্রেশন অব ইন্টারেস্ট’ ঘোষণা করে বেসরকারি প্রতিষ্ঠানকে নির্বাচিত করার কথা থাকলেও কেবল ডিএমএফআর মলিউকুলার ল্যাব অ্যান্ড ডায়াগনস্টিকস লিমিটেড নামের একটি একটি প্রতিষ্ঠানকেই কাজ দেওয়ার পাঁয়তারা চলছে।

সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, এরই সুযোগ নিয়ে প্রতিষ্ঠানটি তাদেরই প্রস্তাবিত নমুনা পরীক্ষার মূল্য পরিবর্তন করে মূল্য বাড়িয়ে নতুনভাবে আবেদন করেছে সরকারের কাছে। এই মূল্য যাচাই করার জন্য আবার সংশ্লিষ্ট টেকনিক্যাল কমিটির কাছে পাঠানো হয়েছে। অথচ অন্যান্য প্রতিষ্ঠান কম মূল্যে নমুনা পরীক্ষার প্রস্তাবনা জমা দিয়েছে। ওই সব প্রতিষ্ঠানকে এ বিষয়ে কোনো অগ্রগতি এখনও জানানো হয়নি।

বিজ্ঞাপন

আরও পড়ুন- বিমানবন্দরে পিসিআর ল্যাব চায় আমিরাত প্রবাসীরা

অভিযোগ রয়েছে অন্য প্রতিষ্ঠানের প্রস্তাবনা মূল্যায়ন না করে, পত্রিকায় কোনো এক্সপ্রেশন অব ইন্টারেস্ট ছাড়াই একটি প্রতিষ্ঠানকে কারিগরি কমিটির বৈঠকে ডাকা হয়েছে। এ ক্ষেত্রে সবাইকে সমানভাবে সুযোগ দেওয়া উচিত বলে মন্তব্য প্রস্তাবে অংশ নেওয়া অন্য প্রতিষ্ঠানগুলোর।

বিজ্ঞাপন

এর আগে ৬ সেপ্টেম্বর মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়, বিমানবন্দরে ল্যাব চালানোর জন্য খুব দ্রুতই এক্সপ্রেশন অব ইন্টারেস্ট ঘোষণা করে বেসরকারি প্রতিষ্ঠানকে নির্বাচিত করা হবে । প্রাথমিকভাবে একটি বেসরকারি ল্যাবকে বিবেচনা করা হচ্ছে।

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা ও মন্ত্রণালয়ের দ্রুত চালু করার ঘোষণা থাকলেও এসব কারণে ৭২ ঘণ্টা পার হয়ে গেলেও বিমানবন্দরে নমুনা পরীক্ষা বিষয়ে তেমন কোনো অগ্রগতি নেই। এমন অবস্থায় বিপাকে পড়েছেন সংযুক্ত আরব আমিরাতে যেতে ইচ্ছুক প্রবাসীরা।

বিজ্ঞাপন

সম্প্রতি আরব আমিরাত সরকারের নির্দেশনায় দেশের প্রায় ২০ হাজারের অধিক প্রবাসী বিপাকে পড়ে। দেশটির পক্ষ থেকে নির্দেশনা দিয়ে জানানো হয় বিমানবন্দরে র‌্যাপিড পিসিআর টেস্টের ব্যবস্থা না থাকলে, সে দেশে নাগরিকরা প্রবেশ করতে পারবেন না। এমন পাঁচটি দেশের মধ্যে আছে বাংলাদেশও।

বিমানবন্দরে র‍্যাপিড পিসিআর মেশিন বসবে ‘বেসরকারিভাবে’ — শিরোনামে ৬ সেপ্টেম্বর সারাবাংলা ডটনেটে সংবাদ প্রকাশিত হয়।

বিজ্ঞাপন

প্রকাশিত সংবাদে উল্লেখ করা হয়, দেশের বিমানবন্দরে র‍্যাপিড পিসিআর মেশিন স্থাপনের জন্য উদ্যোগ নেয় প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়। ১ সেপ্টেম্বরের আন্তঃমন্ত্রণালয় সভায় বিমানবন্দরে র‌্যাপিড আরটি-পিসিআর টেস্ট মেশিন বসানোর জন্য দু’টি কমিটি করে দেওয়া হয়।

প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়, দু’একদিনের মধ্যে জাতীয় পত্রিকায় ‘এক্সপ্রেশন অব ইন্টারেস্ট’ আহ্বান করে পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দেওয়া হবে। যারা আবেদন করবেন, তাদের মধ্যে থেকে সক্ষমতা যাচাই করে কাউকে অনুমোদন দেওয়া হবে বলেও জানানো হয় মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে।

জানতে চাইলে ৬ সেপ্টেম্বর প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ বলেন, ‘আমরা মোটামুটিভাবে একটা সিদ্ধান্ত নিয়েছি। সরকারিভাবে পিসিআর ল্যাব করতে যেহেতু এখন সময় লাগবে সেজন্য আমাদের কাছে যাদের যাদের প্রস্তাব আছে তাদের মধ্য থেকে সিলেকশন করে ল্যাব চালু করার একটা ব্যবস্থা করব। আমি আশা করছি যে চার থেকে পাঁচ দিনের মধ্যে আমরা এই ল্যাব চালু করতে পারব। একটু সীমিত পরিসর হলেও চালু করতে পারব।’

খোঁজ নিয়ে দেখা যায়, জাতীয় পত্রিকায় ‘এক্সপ্রেশন অব ইন্টারেস্ট’ আহ্বান করে বিজ্ঞাপন দেওয়া কথা থাকলেও সেটি এখন পর্যন্ত দেওয়া হয় নি। কিন্তু ৬ সেপ্টেম্বর রাতে একটি টেকনিক্যাল কমিটির বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন ডিএমএফআর মলিউকুলার ল্যাব এন্ড ডায়াগনস্টিকস লিমিটেডের একজন প্রতিনিধি।

প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, ২৯ আগস্ট ডিএমএফআর মলিউকুলার ল্যাব অ্যান্ড ডায়াগনস্টিকস লিমিটেড কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকে মধ্যপ্রাচ্যসহ বিভিন্ন দেশের এয়ারলাইন্সের যাত্রীদের কোভিড-১৯ পিসিআর পরীক্ষার নমুনা সংগ্রহ, পরীক্ষা ও সনদ—প্রদানের কার্যক্রম শুরু করার জন্য আবেদন করা হয়। আবেদন পত্রে প্রতিষ্ঠানটি নমুনা পরীক্ষার পুরো প্রক্রিয়ার জন্য এক হাজার ৭০০ টাকা প্রস্তাবনা আকারে জানায়। একই সঙ্গে মোবাইল পিসিআর ল্যাব স্থাপনের জন্য দুই থেকে তিন দিন সময় লাগবে বলেও প্রতিষ্ঠানটি উল্লেখ করে প্রস্তাবনায়।

প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. ফাইজুর রহমানের সই করা প্রস্তাবনায় সেখানে ব্যবহৃত পিসিআর মেশিন ও কিটের নামও উল্লেখ করে। ২৪ ঘণ্টায় তাদের চার হাজার নমুনা পরীক্ষার করার সামর্থ্য আছে এ বিষয়টিও তারা জানায়।

জানতে চাইলে নাম প্রকাশ না করার শর্তে প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা জানান, ডিএমএফআর ল্যাবের কর্তৃপক্ষ আগে থেকেই মন্ত্রণালয়ে তাদের প্রস্তাবনা লিখিতভাবে জানায়। তবে এরসঙ্গে তারা যেসব কাগজপত্র দেয় সেগুলোতে ছিল নানা রকমের অসঙ্গতি। তাদের নমুনা পরীক্ষার ফলাফল ও যেভাবে তারা নমুনা পরীক্ষা করাবে বলছে সেগুলো অন্যান্য দেশে গ্রহণযোগ্য হবে কিনা সে বিষয়েও তারা পরিষ্কারভাবে কিছু জানাতে পারেনি।

তিনি জানান, ডিএমএফআর মলিউকুলার ল্যাবের বিষয়ে ৬ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত একটি বৈঠকে আলোচনা হয়। সেখানে তাদের প্রস্তাবনা বিষয়েও আলোচনা হয়। একইদিন রাতে আরেকটি বৈঠক অনুষ্ঠিত হয় ল্যাব সংক্রান্ত টেকনিক্যাল কমিটির।

সেখানে প্রতিষ্ঠানটীর কর্মকর্তারা জানান, তারা এক হাজার ৭০০ টাকায় নমুনা পরীক্ষা করাতে পারবে না। তাদেরকে দুই হাজার ৭০০ টাকা করে দিতে হবে প্রতিটি নমুনা পরীক্ষার জন্য। এ বৈঠকেই তাদের জানানো হয় কিটের দাম মাত্র ৬০০ থেকে ৭০০ টাকা হলেও নমুনা পরীক্ষা মূল্য কেনো দুই হাজার ৭০০ টাকা হবে। তবে এ বিষয়টি এখন টেকনিক্যাল কমিটির কাছে পাঠানো হয়েছে দাম বিবেচনা করার জন্য।

তিনি আরও বলেন, প্রতিষ্ঠানটি জানায় তাদের সংযুক্ত আরব আমিরাতে পিউর হেলথ নামে একটি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে সমঝোতা স্মারক চুক্তি সই করা আছে। টেকনিক্যাল কমিটির বৈঠকে তারা লাইফ ডিএক্স নামে আরেকটি প্রতিষ্ঠানের নামও উল্লেখ করে। কিন্তু এ সংক্রান্ত কোনো কাগজপত্র তারা দেখাতে পারেনি।

সারাবাংলার পক্ষ থেকেও লাইফ ডিএক্স নামে প্রতিষ্ঠানটির সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়। প্রতিষ্ঠানটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ফুয়াদ সারাবাংলাকে বলেন, ‘আমাদের সঙ্গে তেমন কোনো কিছু এখনও হয়নি। যদি হয়ে থাকে তবে আমরা অবশ্যই ইমেইলের মাধ্যমে জানাব। আমাদের পক্ষ থেকে তাই এ সংক্রান্ত কোনো বিষয়ে আর কথা বলতে চাচ্ছি না।’

আরও পড়ুন- বিমানবন্দরে আরটি-পিসিআর টেস্টের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

ডিএমএফআর মল্যিকুলার ল্যাব অ্যান্ড ডায়াগন্সটিক বিডি লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. ফাইজুর রহমান সারাবাংলাকে বলেন, ‘আমাদের পক্ষ থেকে প্রথমে যে প্রস্তাবনা দেওয়া হয়েছিল সেটি আসলে একটা খসড়া ছিল। পরবর্তীতে আমরা আরও কাজ করি এ বিষয়ে। ল্যাব স্থাপন, জনবল, নমুনা সংগ্রহ বুথ থেকে শুরু করে নমুনা পরীক্ষার জন্য প্রয়োজনীয় সকল কিছু বিবেচনা করে আমরা পরবর্তীতে মূল্য প্রস্তাব করি।’

সংযুক্ত আরব আমিরাতের লাইফ ডিএক্স নামে একটি প্রতিষ্টানের সঙ্গে তাদের সমঝোতা স্মারক সই করা আছে জানান তিনি। তবে প্রতিবেদক তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করে এ বিষয়ে কোনো সত্যতা পাওয়া যায়নি জানালে তিনি বলেন, তারা এমন কেন বলেছে তা আমাদের বোধগম্য নয়।

সরকারিভাবে কোনো প্রজ্ঞাপন দেওয়া হয়নি, পত্রিকায় কোনো এক্সপ্রেশন অব ইন্টারেস্টও দেওয়া হয় নি। এগুলো ছাড়াই কীভাবে সবার আগে প্রস্তাবনা দেওয়া হয়েছে জানতে চাইলে তিনি কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি।

কবে নাগাদ বিমানবন্দরে পিসিআর মেশিন স্থাপন করা হবে জানতে চাইলে জনশক্তি , কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোর মহাপরিচালক শহীদুল আলম সারাবাংলাকে বলেন, এ বিষয়ে আমার কোনো মন্তব্য করা ঠিক হবে না। এটি মন্ত্রণালয় থেকে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের তত্ত্বাবধানে কাজ করা হচ্ছে।’

জানতে চাইলে বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের (সিভিল অ্যাভিয়েশন) চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল মো. মফিদুর রহমান বলেন, ‘ল্যাবের বিষয়টি প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের তত্ত্বাবধানে হচ্ছে। এর কারিগরি দিক দেখবে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। এ বিষয়ে একটি কমিটি করে দেওয়া হয়েছে যেখানে আমি একজন সদস্য। অনেকেই নমুনা পরীক্ষা কাজের জন্য আগ্রহ দেখিয়েছে এবং তারা প্রস্তাবনা পাঠাচ্ছে তাদের। এক্ষেত্রে কারা কাজ করবে সেগুলো নির্ধারণ করবে স্বাস্থ্য অধিদফতর। সিভিল এভিয়েশনের পক্ষ থেকে আমাদের জায়গা দিতে হবে। সেটি আমাদের রেডি আছে।’

তিনি বলেন, ‘ডিএমএফআরকে প্রাথমিকভাবে নির্বাচন করা হয়েছে-এমনটা দুইদিন আগে শুনেছিলাম। কিন্তু এরপরে কোনো আপডেট হয়েছে কিনা তা জানা নেই।’

জানতে চাইলে প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. আহমেদ মুনিরুছ সালেহীনের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তিনি ফোন ধরেননি।

প্রাথমিকভাবে ডিএমএফআর মলিকুলার ল্যাবকে নির্বাচন করার বিষয়ে জানালেও তাদের কাজের অগ্রগতি কতটুকু জানতে চাইলে প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী ইমরান আহমেদ ফোন ধরেননি।

জানতে চাইলে ল্যাব এইডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডা. মো. শামীম সারাবাংলাকে বলেন, প্রধানমন্ত্রী প্রবাসী ও বিদেশগামী যাত্রীদের কথা ভেবে নির্দেশনা দিয়েছেন বিমানবন্দরে পিসিআর ল্যাব স্থাপনের বিষয়ে। এক্ষেত্রে প্রবাসীদের একটা বিশাল উপকার হবে। আমরা এ বিষয়ে জানার পরে আমাদের প্রস্তাবনা জানিয়েছি। এক্ষেত্রে অবশ্যই আমরা আশা করি গণতান্ত্রিক দেশে সকল সিদ্ধান্ত সবার ভালোর জন্যেই বিবেচনা করা হবে।’

তিনি বলেন, ‘শুধুমাত্র একটি প্রতিষ্ঠান যাদের দীর্ঘদিন কাজ করার অভিজ্ঞতা এখনো নেই- তাদের যদি দেওয়া হয় এমন কিছু যেখানে প্রবাসীদের ভাগ্য জড়িত তবে তা দুর্ভাগ্যজনক হবে। আমরা চাই এ বিষয়ে সকলের সঙ্গে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হোক।’

সারাবাংলা/এসবি/একে

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন