বিজ্ঞাপন

এমন উইকেটে ১০-১৫ ম্যাচ খেললে ক্যারিয়ারই শেষ হয়ে যাবে: সাকিব

September 12, 2021 | 3:10 pm

স্পোর্টস ডেস্ক

ঘরের মাঠে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে বড় দুই দলের সঙ্গে টানা দুই সিরিজ জয়। অস্ট্রেলিয়াকে ৪-১ এরপর নিউজিল্যান্ডকে ৩-২ ব্যবধানে সিরিজে হারিয়েছে টাইগাররা। তবে প্রশ্ন উঠেছে টাইগারদের জন্য বানানো স্লো এবং টার্নিং উইকেট নিয়ে। এই পিচে অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ডের মতো দলের ব্যাটাররা বড় সংগ্রহের দেখা পাননি। এতদিন কেবল মিরপুরের উইকেটের সমালোচনা করছিলেন বিদেশি খেলোয়াড়রা, এবার সেই তালিকায় যুক্ত হয়েছেন বাংলাদেশের বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান।

বিজ্ঞাপন

সাকিব আল হাসান জানিয়েছেন, এমন উইকেটে কোনো ব্যাটার ১০-১৫ ম্যাচ খেললে তার ক্যারিয়ারই শেষ হয়ে যাবে। সেই সঙ্গে দুই সিরিজের পারফরম্যান্স দিয়ে ব্যাটারদের বিবেচনা না করার অনুরোধ করেছেন তিনি।

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে প্রত্যাশা অনুযায়ী ব্যাটে রান পাননি বাংলাদেশের কোনো ব্যাটাররই। ব্যর্থতার শেকল ভেঙে বের হতে পারেননি মুশফিকুর রহিমের মতো ব্যাটারও। তবে এতে ব্যাটারদের কোনো দোষ খুঁজছেন না সাকিব। বরং এই দুই সিরিজের ৯-১০টি ম্যাচে যারা প্রত্যাশা অনুযায়ী পারফরম্যান্স করতে পারেননি তাদের সমর্থন যুগিয়েছেন টি-টোয়েন্টির এক নম্বর অলরাউন্ডার।

বিজ্ঞাপন

সাকিব বলেন, ‘এই ৯-১০টা ম্যাচ যারা খেলেছে সবাই অফ ফর্মে আছে। উইকেটটাই এমন। এখানে কেউ খুব একটা ভালো করেনি যে বলতে পারবেন ও ভালো করেনি। ব্যাটারদের ক্ষেত্রে এই পারফরম্যান্স খুব একটা গণ্য না করাই ভালো।'

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সিরিজ থেকে শুরু করে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজের সবকটি ম্যাচেই ছিল স্লো এবং টার্নিং উইকেট। আর একারণেই বেশ সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডকে (বিসিবি)। তবে এসবের তোয়াক্কা না করেই দুটি সিরিজ জয় নিশ্চিত করেছে বাংলাদেশ। কিন্তু এতে করে যে ব্যাটারদের অপূরণীয় ক্ষতি হচ্ছে তা অকপটেই জানিয়ে দিলেন সাকিব।

বিজ্ঞাপন

‘এরকম উইকেটে কোনো ব্যাটার ১০-১৫টা ম্যাচ খেললে তার ক্যারিয়ার শেষ হয়ে যাবে। এটা কাউন্ট না করি আমরা। যারা দলে আছে সবাই দেশকে জেতানোর সামর্থ্য রাখে। যার যার জায়গা থেকে সবাই শতভাগ চেষ্টা করছে।’—বলেন সাকিব।

সাকিব অবশ্য টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ নিয়ে বেশ আশাবাদী। স্লো এবং টার্নিং উইকেটে দুটি সিরিজ জিতে ব্যাটারদের পারফরম্যান্স খুব একটা খুশি না হলেও প্রস্তুতি নিয়ে বেশ খুশি অভিজ্ঞ এই তারকা অলরাউন্ডার। তিনি বলেন, 'আমার কাছে তো মনে হয় ভালো সুযোগ আছে। আমাদের প্রস্তুতি খুবই ভালো হয়েছে। এর বড় কারণ হচ্ছে গত তিনটা সিরিজ আমরা জিততে পেরেছি। হয়তো পিচ, উইকেট, লো স্কোর নিয়ে অনেক সমালোচনা হয়েছে। কিন্তু জয়ের কোনো বিকল্প নেই। একটা দল যখন জিততে থাকে, জয়ের মানসিকতা থাকে, তা অন্য পর্যায়ের আত্মবিশ্বাস দেয়। আপনি অনেক ভালো খেলে ম্যাচ হারলে এই আত্মবিশ্বাস থাকবে না। এই আত্মবিশ্বাস নিয়ে আমরা বিশ্বকাপে যেতে চাই।'

বিজ্ঞাপন

এদিকে বিশ্বকাপের মূল পর্বের আগে বাংলাদেশকে উৎরাতে হবে বাছাইপর্ব। একারণেই ওমানে বিশ্বকাপ শুরুর ১৫-১৬ দিন আগে ক্যাম্প করতে পৌঁছাবে টিম টাইগার। সেখানকার কন্ডিশন এবং পিচের সঙ্গে নিজেদের মানিয়ে নেওয়ার যথেষ্ট সময় পাওয়া যাবে বলেও মত সাকিবের।

সারাবাংলা/এসএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন