বিজ্ঞাপন

৫৬০ দিন পর বার্নাব্যুতে ফিরে বেনজেমার হ্যাটট্রিকে রিয়ালের জয়

September 13, 2021 | 3:05 am

স্পোর্টস ডেস্ক

দীর্ঘ ৫৬০ দিন পর আবারও এস্তাদিও সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে ফিরল রিয়াল মাদ্রিদ। করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের ফলে স্পেনের স্টেডিয়ামগুলোতে দর্শক উপস্থিতির ওপর নিষেধাজ্ঞা আসে, আর এই সময়েই স্টেডিয়াম সংস্করণের কাজে নেমে পড়ে রিয়াল। তাই তো ২০২০ সালের ১ মার্চ শেষবার বার্নাব্যুতে খেলেছিল রিয়াল, এরপর ২০২১ সালের ১২ সেপ্টেম্বর আবারও ফিরল নিজেদের মাঠে। আর ফেরার ম্যাচেই দুইবার পিছিয়ে পড়েও শেষ পর্যন্ত করিম বেনজেমার হ্যাটট্রিকে ৫-২ গোলের ব্যবধানে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে রিয়াল মাদ্রিদ।

বিজ্ঞাপন

মহামারি শুরুর ঠিক আগ মুহূর্তে ১ মার্চ ২০২০ বার্সেলোনার বিপক্ষে সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে খেলেছিল রিয়াল মাদ্রিদ। সেই ম্যাচে ২-০ গোলের জয়ও পেয়েছিল লস ব্ল্যাঙ্কোসরা। এরপর ৫৬০ দিনের বিরতির পর আবারও ফেরা বার্নাব্যুতে।

৫৬০ দিন পর বার্নাব্যুতে ফিরে বেনজেমার হ্যাটট্রিকে রিয়ালের জয়

বিজ্ঞাপন

ঘরের মাঠে ম্যাচের শুরুতেই সেল্টা ভিগোর লিড। এরপর রিয়ালকে সমতায় ফেরান করিম বেনজেমা। কিন্তু তারপরেই আবারও লিড নেয় সেল্টা। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে আবারও রিয়ালকে সমতায় ফেরান বেনজেমা। এরপর আর ফিরে তাকাতে হয়নি লস ব্ল্যাঙ্কোসদের। ভিনিসিয়াস জুনিয়র, এরপর অভিষিক্ত এডুয়ার্ড কামাভিঙ্গা এবং শেষ দিকে এসে বেনজেমার হ্যাটট্রিক পূর্ণ করার গোলে ৫-২ ব্যবধানে জিতে বার্নাব্যুতে ফেরা রাঙায় রিয়াল মাদ্রিদ।

বিজ্ঞাপন

দীর্ঘদিন পরে বার্নাব্যুতে ফিরেই যেন খেই হারিয়ে ফেলল রিয়াল মাদ্রিদ। ম্যাচের চার মিনিটের মাথায় রক্ষণের ভুলে গোল হজম রিয়ালের। এর আগে ভালভার্দের কাছ থেকে বল কেড়ে নিয়ে তা ইয়াগো আসপাসকে বাড়ান মেন্ডেজ। ইয়াগো আসপাস বল নিয়ে এগিয়ে গিয়ে বাড়িয়ে দেন সান্তি মিনার দিকে। আক্রমণ রুখতে এগিয়ে আসা কোর্তোয়াকে বোকা বানিয়ে বল জালে জড়িয়ে সেল্টা ভিগোকে ১-০ গোলের লিড এনে দেন মিনা।

৫৬০ দিন পর বার্নাব্যুতে ফিরে বেনজেমার হ্যাটট্রিকে রিয়ালের জয়

বিজ্ঞাপন

এরপরে খেলার নিয়ন্ত্রণে যায় রিয়াল। একের পর এক আক্রমণে সেল্টার রক্ষণকে দম ফেলারও সুযোগ দিচ্ছিল না কার্লো আনচেলোত্তি বাহিনী। ২৪তম মিনিটে ক্যাসেমিরোর দারুণ এক পাস থেকে বল দূর পোস্টে বল পেয়ে ভলি শটে তা গোলমুখে বাড়িয়ে দেন ফেদে ভালভার্দে। সেখান থেকে বল পেয়ে  ভলিতেই তা জালে জড়িয়ে রিয়ালকে সমতায় ফেরান করিম বেনজেমা।

রিয়ালকে অবশ্য বেশি সময় সমতায় থাকতে দেয়নি সেল্টা। রিয়ালের সমতায় ফেরার মাত্র সাত মিনিটের মাথায় আবারও রক্ষণের ভাঙাচোরা অবস্থায় গোল হজম করে রিয়াল। ডান দিক থেকে ফ্র্যাঙ্কো সারভির শট গোলপোস্টে লেগে তার কাছেই ফিরে আসে আর ফিরতি শটে বল জালে জড়িয়ে সেল্টাকে পুনরায় লিডে এনে দেন এই মিডফিল্ডার।

বিজ্ঞাপন

৫৬০ দিন পর বার্নাব্যুতে ফিরে বেনজেমার হ্যাটট্রিকে রিয়ালের জয়

বিরতির পর ফিরেই সেল্টাকে আর ম্যাচে ফিরতে দেয়নি রিয়াল। দ্বিতীয়ার্ধের এক মিনিটের মাথায় মিগুয়েল গুতিরেজের ক্রস থেকে মাপা হেডে বল জালে জড়িয়ে রিয়ালকে ২-২ গোলে সমতায় ফেরান করিম বেনজেমা। এরপর কেবল গোটা ম্যাচ জুড়ে রিয়ালের আধিপত্য। ৫৪তম মিনিটে মধ্যমাঠ থেকে বল বাড়ান করিম বেনজেমা। বাঁ দিক দিয়ে সেই বল ধরেই দ্রুত গতিতে ডি-বক্সে ঢুকে সেল্টার গোলরক্ষককের বাঁ দিকে ঠান্ডা মাথায় বল ঠেলে জালে জড়ান ভিনিসিয়াস। আর তাতেই ম্যাচে প্রথমবারের মতো লিড নেয় রিয়াল।

৬৬তম মিনিটে এডেন হ্যাজার্ডের পরিবর্তে মাঠে নামেন এডুয়ার্ড কামাভিঙ্গা। রিয়ালের জার্সিতে এটিই সম্ভবনাময় এই তরুণের অভিষেক ম্যাচ। আর অভিষেক ম্যাচের ছয় মিনিটের মাথায় গোল করে দলকে এনে দেন ৪-২ গোলের লিড। বল নিয়ে লুকা মদ্রিচ একাই সেল্টার ডি-বক্সে ঢুকে দারুণ এক শট নেন কিন্তু তার শট ফিরিয়ে দেন ডিতুরো। কিন্তু ফিরতি বল পেয়ে জালে পাঠিয়ে দেন তরুণ ফ্রেঞ্চ মিডফিল্ডার কামাভিঙ্গা।

৫৬০ দিন পর বার্নাব্যুতে ফিরে বেনজেমার হ্যাটট্রিকে রিয়ালের জয়

খেলার শেষ দিকে এসে ভিনিসিয়াস জুনিয়রকে ডি-বক্সে ফাউল করলে পেনাল্টি পায় রিয়াল। স্পট কিক থেকে দলের পঞ্চম এবং নিজের হ্যাটট্রিক পূর্ণ করেন করিম বেনজেমা। চলতি মৌসুমে লা লিগায় এটি বেনজেমার পঞ্চম গোল। পাঁচটি গোল নিয়ে সর্বোচ্চ গোলদাতার তালিকায় শীর্ষে থাকা বেনজেমা সতীর্থদের দিয়ে করিয়েছেন আরও চারটি গোল। এদিকে রিয়ালের হয়ে চলতি মৌসুমে এর মধ্যেই চারটি গোল পেয়েছেন ভিনিসিয়াস জুনিয়র। সর্বোচ্চ গোলদাতার তালিকায় ভিনিসিয়াস আছেন দুইয়ে।

চার ম্যাচে তিন জয় আর এক ড্র'তে ১০ পয়েন্ট নিয়ে লা লিগার শীর্ষে অবস্থান করেছে রিয়াল মাদ্রিদ। সমান পরিসংখ্যান নিয়ে দুইয়ে ভ্যালেন্সিয়া এবং তিনে আছে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ। এদিকে চার ম্যাচে তিন হার আর এক ড্র'তে ১ পয়েন্ট নিয়ে ১৮ নম্বরে আছে সেল্টা ভিগো। তিন ম্যাচে দুই জয় আর এক ড্র'তে ৭ পয়েন্ট পাওয়া বার্সেলোনা আছে সাতে।

সারাবাংলা/এসএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন