বিজ্ঞাপন

তালেবানকে সময় দিলে ৪০ বছরে শান্তি আসতে পারে

September 15, 2021 | 10:15 pm

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

আফগানিস্তানে শান্তি ও স্থিতিশীলতার জন্য সবচেয়ে ভালো উপায় হচ্ছে তালেবানদের সঙ্গে সম্পৃক্ত হওয়া এবং নারীদের অধিকার এবং অন্তর্ভুক্তিমূলক সরকারের মতো ইস্যুতে তাদের উৎসাহিত করা। পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান এমন মন্তব্য করেছেন।

বিজ্ঞাপন

সিএনএন’কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী বলেন, তালেবানরা পুরো আফগানিস্তানকে দখল করেছে, যদি তারা এখন একটি অন্তর্ভুক্তিমূলক সরকার গঠনে কাজ করতে পারে, সব দলকে একত্রিত করতে পারে, তাহলে আফগানিস্তানে ৪০ বছর পর শান্তি ফিরতে পারে। কিন্তু যদি তা বিশৃঙ্খলার দিকে যায়, তাহলে যে আশঙ্কা সবচেয়ে বেশি—অর্থাৎ মানবিক ও শরণার্থী সংকট—সেটাই দেখা দেবে আফগানিস্তানে।

ইমরান খান দাবি করেন, তালেবানরা সংকট এড়াতে আন্তর্জাতিক সহায়তা খুঁজছে। আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সহায়তা তালেবানদের বৈধতার দিকে সঠিক পথে চলতে সাহায্য করবে। তবে ইমরান খান সতর্ক করে দিয়ে বলেন, আফগানিস্তানকে কোনো বিদেশি শক্তি পরিচালিত করতে পারবে না।

বিজ্ঞাপন

সাক্ষাৎকারে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী বলেন, আফগানিস্তানে কোনো পুতুল সরকারই জনগণের সমর্থন পায়নি। সুতরাং সেদেশে বসে তাদের নিয়ন্ত্রণের চিন্তা না করে আমরা তাদের সমর্থনের কথা ভাবতে পারি। কারণ আফগানিস্তানের বর্তমান সরকার স্পষ্টভাবে মনে করে যে, আন্তর্জাতিক সাহায্য ছাড়া তারা সংকট মোকাবিলা করতে পারবে না। তাই তাদের সঠিক পথে চলতে আমাদেরই সহায়তা করা উচিত।

উল্লেখ্য যে, গত ১৫ আগস্ট রাজধানী কাবুল দখলের মাধ্যমে আফগানিস্তানের গণতান্ত্রিক সরকার উৎখাত করে তালেবান। ওইদিন প্রেসিডেন্ট আশরাফ গনি দেশ ছেড়ে পালিয়ে যান। এর কয়েক সপ্তাহ পর গত ৭ সেপ্টেম্বর আফগানিস্তানে অন্তর্বর্তীকালীন সরকার গঠন করে তালেবান। উগ্রবাদী গোষ্ঠীটির অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা প্রয়াত মোল্লা ওমরের ঘনিষ্ঠ সহযোগী মোল্লা হাসান আখুন্দকে সরকারের প্রধান হিসেবে মনোনীত করে শীর্ষ নেতৃত্ব। মোল্লা আখুন্দ প্রতিবেশী পাকিস্তানের ঘনিষ্ঠ বলেও পরিচিত।

বিজ্ঞাপন

তালেবানের সরকার গঠন প্রক্রিয়ায় চীন ও পাকিস্তানের প্রত্যক্ষ এবং পরোক্ষ হস্তক্ষেপ রয়েছে বলেও মনে করছেন বিশ্লেষকরা। তালেবান সরকার গঠনের আগের দিন কাবুলে পাকিস্তান দূতাবাসের সামনে পাকিস্তান বিরোধী সমাবেশ করেন সাধারণ আফগানরা। তালেবান সরকার গঠনের পর ধারণা করা হয়েছিল প্রতিবেশী পাকিস্তান সবার আগে স্বীকৃতি দেবে। তবে এক সপ্তাহ পেরিয়ে গেলেও এখনও কাবুলের নতুন কর্তৃপক্ষকে আনুষ্ঠানিক স্বীকৃতি দেয়নি ইসলামাবাদ।

সারাবাংলা/আইই

বিজ্ঞাপন

Tags:

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন