বিজ্ঞাপন

‘কেউ প্রতিযোগিতা না করলে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হবেই’

September 19, 2021 | 8:55 pm

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: নির্বাচন কমিশন সচিব মো. হুমায়ুন কবীর খোন্দকার বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় প্রার্থিদের নির্বাচিত হওয়ার বিষয়ে তিনি বলেছেন, কেউ প্রতিযোগিতা না করলে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হবেই। এসময় তিনি দেশের ১৬০ ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) ও নয়টি পৌরসভা নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য হবে বলে আশা প্রকাশ করেন।

বিজ্ঞাপন

রোববার (১৯ সেপ্টেম্বর) আগারগাঁওয়ের নির্বাচন ভবনের মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

ইসি সচিব বলেন, ‘তফসিল অনুযায়ী ১৬১টি ইউপি ভোট হওয়ার কথা থাকলেও আদালতের আদেশে মোড়লগঞ্জের নিশানবাড়িয়া ইউপি নির্বাচন স্থগিত করা হয়েছে। তাই বলে রাখি ১৬০টিতে ভোট হবে হবে। এছাড়া নয়টি পৌরসভা এবং দুটি উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান পদেও ভোট হবে এদিন। পৌরসভাগুলোতে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোট নেওয়া হবে।’

বিজ্ঞাপন

হুমায়ুন কবীর খোন্দকার বলেন, ‘নির্বাচনী উপকরণ জেলায় পৌঁছে গেছে। প্রশিক্ষণ হয়েছে। মাঠে মোতায়েন রয়েছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী সদস্যরা। সাধারণ ভোটকেন্দ্রে ১১ জন এবং ঝূঁকিপূর্ণ কেন্দ্রে ১৩ জনের ফোর্স মোতায়েন করা হয়েছে। এছাড়া ৮১ জন নির্বাহী ও নয়জন বিচারিক হাকিমসহ র‌্যাব, বিজিবির সদস্যদের মোতায়েন করা হয়েছে। তিনটি পৌরসভায় মেয়র প্রার্থিরা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন।’

তিনি বলেন, ১৬০টি ইউপির মধ্যে ৪৪টিতে চেয়ারম্যান প্রার্থিরা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছে। তবে অন্যপদগুলোতে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত না হওয়ায় ১৬০টিতে ভোট হবে। এর মধ্যে ১১টিতে ইভিএমে ভোটগ্রহণ করা হব।

বিজ্ঞাপন

ইসি সচিব বলেন, ‘প্রতি ভোটকেন্দ্রে বিভিন্ন বাহিনীর ২২ জনের ফোর্স মোতায়েন করা হয়েছে। ৯২জন নির্বাহী হাকিম ও ৫৭ জন বিচারিক হাকিম দায়িত্ব পালন করছেন নির্বাচনী অপরাধসহ অন্যান্য অপরাধের সংক্ষিপ্ত বিচার কাজ সম্পন্ন করতে। এছাড়া র‌্যাব, বিজিবি, কোস্ট গার্ডের সদস্যদেরও মোতায়েন করা হয়েছে।’

হুমায়ুন কবীর খোন্দরকার বলেন, ‘আমরা যে প্রস্তুতি নিয়েছে তাতে অবাধ, সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন হবে বলে আশা করি।’

বিজ্ঞাপন

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে ইসি সচিব বলেন, ‘অতিরিক্ত ফোর্স দিয়েছি কিছু কিছু জায়গায়। সুন্দর পরিবেশ রাখার জন্য রিটার্নিং কর্মকর্তারা অতিরিক্ত ফোর্স দিতে বলেছেন, আমরা সে ব্যবস্থা নিয়ছি। কিছু কিছু জায়গায় সকাল বেলায় ব্যালট দিতে চায়। আমরা সেভাবেই দিতে বলেছি।’

এছাড়া রিটার্নিং কর্মকর্তারা যেখানে সুষ্ঠুভাবে ভোটের জন্য সকালে ব্যালট পেপার চেয়েছেন, সেভাবেই সেখানে অনুমোদন দিয়েছি। আশাকরি, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন হবে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীও আমাদের জানিয়েছে, তারা সর্বোচ্চ চেষ্টা করবে।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/জিএস/এমও

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন