বিজ্ঞাপন

মোস্তাফিজদের নাটকীয় জয়

September 22, 2021 | 12:25 am

স্পোর্টস ডেস্ক

জিততে শেষ ওভারে ৪ রান লাগত পাঞ্জাব কিংসের। উইকেটে তখন দুই সেট ব্যাটার নিকোলাস পুরান ও এইডেন মার্করাম। 'আরেকটা জয়' ভেবে গ্যালারিতে বসা পাঞ্জাবের অনেক সমর্থক বাড়ি ফেরার প্রস্তুতি নিতে শুরু করে দিয়েছিলেন। কিন্তু তারপর যে এতো নাটকীয়তা ঘটবে সেটা কী আর কেউ ভেবেছিলেন! নাটকীয়তা শেষে শেষ পর্যন্ত ২ রানে ম্যাচ জিতেছে রাজস্থান রয়্যালস।

বিজ্ঞাপন

কার্তিক ত্যাগির করা শেষ ওভারের প্রথম বলে রান নিতে পারেননি মার্করাম, দ্বিতীয় বলে সিঙ্গেল নিয়ে প্রান্ত বদল। তৃতীয় বলে হাঁকাতে গিয়ে আউট পুরান। এরপর মার্করাম আর ব্যাটিংয়ে যাওয়ার সুযোগই পাননি। চতুর্থ বলটি ব্যাটে লাগাতে পারেননি পাঁচে নামা দিপক হুদা। পঞ্চম বলে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দিলেন হুদা। অর্থাৎ শেষ বলে প্রয়োজন ৩ রান। স্নায়ুচাপের মধ্যে ক্রিস জর্ডান কার্তিকের ওয়াইড ইয়র্কার ব্যাটেই লাগাতে পারেননি। হারের মুখ থেকে দুই রানের নাটকীয় জয় রাজস্থানের।

মোস্তাফিজুর রহমানকে নিয়ে একাদশ সাজানো রাজস্থানের বোলিংয়ের শুরুটা হয়েছিল দারুণ। বাংলাদেশি পেসার ইনিংসের প্রথম ওভারে দিয়েছেন চার রান। প্রথম তিন ওভারে ১৬ রান খরচ করেছে রাজস্থান। তবে এরপর পিচ্ছিল হাতের কারণে পড়তে হয়েছে বিপদে। লোকেশ রাহুলের দুটি ক্যাচ ছেড়েছেন রাজস্থানের ফিল্ডাররা, তার মধ্যে একটি মোস্তাফিজের বলে।

বিজ্ঞাপন

একাধিকবার 'জীবন' পেয়ে ১২০ রান তোলে রাহুল ও মায়াঙ্ক আগারওয়ালের প্রথম উইকেট জুটি। রাহুল ৩৩ বলে ৪টি চার ২টি ছক্কায় ৪৯ রান করে ফিরলে খানিক পর ফিরেছেন মায়াঙ্কও। ৪৩ বলে ৭টি চার ২টি ছক্কায় ৬৭ রান করেন মায়াঙ্ক। তারপর দারুণভাবে এগুচ্ছিলেন পুরান-মার্করাম জুটি। কিন্তু শেষের হিসেবটা মিলাতে ব্যর্থ দুজন। মোস্তাফিজ ৪ ওভারে ৩০ রান দিয়ে উইকেট পাননি। কার্তিক ৪ ওভারে ২৯ রানে দিয়েছেন দুই উইকেট।

এর আগে এভিন লুইস, ইয়াশাসভি জয়সওয়াল ও মহিপাল লোমর ব্যাটে ১৮৫ রানের বড় সংগ্রহ দাঁড় করায় রাজস্থান। এভিন লুইস ও জয়সওয়াল শুরুটা করেছিলেন দুর্দান্ত। প্রথম ৫ ওভারে ২১ রান তোলেন রাজস্থানের দুই ওপেনার। লুইস দলীয় ৫৪ রানের মাথায় ২৯ বলে ৩৬ রান করে ফিরলে কিছুক্ষণ পর অধিনায়ক সাঞ্জু স্যামসনকে হারিয়ে কিছুটা চাপে পড়ে দলটি।

বিজ্ঞাপন

তবে এরপর জয়সওয়াল ও লোমর ব্যাটকে রীতিমতো তরবারি বানিয়ে সেই চাপ থেকে রাজস্থানকে বের করে নিয়েছেন। মাহিপাল লোমর মাত্র ১৭ বল খেলে ২টি চার ৪টি ছয়ে ৪৩ রান করেন। জয়সওয়াল ফিরেছেন ফিফটি থেকে মাত্র এক রান দূরে থাকতে। ৩৬ বলে তার ৪৯ রানের ইনিংসটিতে চারের মার ৬টি, ছক্কা ২টি।

এই দুজন ফেরার পর শেষ দিকে কেউ বলার মতো রান করতে পারলেন না বলে ২০ ওভারে ১৮৫ রানে গুটিয়ে গেছে রাজস্থান। বড় রানের ম্যাচেও পাঞ্জাবের হয়ে পাঁচ উইকেট নিয়েছেন আরশদীপ সিং। ৪ ওভারে ৩২ রান খরচায় নিয়েছেন পাঁচ উইকেট। ৪ ওভারে ২১ রান খরচায় তিন উইকেট নিয়েছেন মোহাম্মদ শামি।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এসএইচএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন