বিজ্ঞাপন

বিমানবন্দরে নমুনা পরীক্ষা শুরু ৭ দিনের মধ্যে, কমছে খরচ

September 22, 2021 | 12:03 pm

সৈকত ভৌমিক, সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের ভেতরে প্রবাসী ও বিদেশগামীদের নমুনা পরীক্ষার জন্য তিন থেকে চার দিনের মধ্যে স্থাপন করা হবে আরটি পিসিআর ল্যাব। যারা সংযুক্ত আরব আমিরাতে যাবেন তাদের নমুনা সংগ্রহের জন্য প্রয়োজনীয় ১২টির মতো নমুনা পরীক্ষার বুথ স্থাপনের কাজও এই সময়ের মধ্যে শেষ করবে স্বাস্থ্য প্রকৌশল বিভাগের কর্মকর্তারা।

বিজ্ঞাপন

ছয়টি প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে নমুনা সংগ্রহের কাজও শুরু হবে ল্যাব স্থাপনের দুই থেকে তিন দিন সময়ের মধ্যে। তবে ভিন্ন দামে নয়, বেসরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোর পূর্ব নির্ধারিত মূল্যের চাইতে কম মূল্যে নমুনা পরীক্ষা করা হবে। এক্ষেত্রে অভিন্ন মূল্যে প্রবাসী ও বিদেশগামীরা নমুনা পরীক্ষা করতে পারবে।

মঙ্গলবার (২১ সেপ্টেম্বর) সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত ধাপে ধাপে একাধিক বৈঠকের পরে এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে সারাবাংলাকে নিশ্চিত করেছে স্বাস্থ্য এবং প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের একাধিক সূত্র।

বিজ্ঞাপন

এ দিন সকালে নমুনা পরীক্ষার জন্য ল্যাব স্থাপনের সংকট সমাধান ও স্থান নির্ধারণের জন্য বিমানবন্দরে সরেজমিনে পরিদর্শন করেন প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউস। এ সময় বিমানবন্দরে ছিলেন প্রবাসীকল্যাণ সচিব ড. আহমেদ মুনিরুছ সালেহীন ও বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের (বেবিচক) চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল মো. মফিদুর রহমান ও স্বাস্থ্য অধিদফতরের কর্মকর্তারা। এ সময় উপস্থিত ছিলেন প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান বিষয়ক মন্ত্রী ইমরান আহমেদ এবং স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক।

সকালে প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউসের উপস্থিতিতে আরটি পিসিআর পদ্ধতিতে নমুনা পরীক্ষার জন্য পার্কিং জোনের ছাদের পরিবর্তে বিমানবন্দরের অভ্যন্তরে ল্যাব নির্মাণের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। একইসঙ্গে আরটি পিসিআর নমুনা পরীক্ষার জন্য বিমানবন্দরের এক নম্বর টার্মিনালে নমুনা সংগ্রহের বুথ স্থাপনের সিদ্ধান্তও নেওয়া হয়।

বিজ্ঞাপন

বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক) সূত্রে জানা গেছে, প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিবের নির্দেশনা অনুযায়ী ল্যাব স্থাপনের কাজ করবেন স্বাস্থ্য প্রকৌশল বিভাগের কর্মকর্তারা। এ সময় তাদের ৭২ ঘণ্টার মধ্যে ল্যাব স্থাপনের কাজ শেষ করার নির্দেশনাও দেওয়া হয়। প্রবাসীদের ভ্রমণের আগে ও পরে চার ধাপে নমুনা পরীক্ষা করাতে হবে ।

সূত্র জানায়, ভ্রমণের ৭২ ঘণ্টা ও ছয় ঘণ্টা আগে দুই দফা পরীক্ষা এবং সংযুক্ত আরব আমিরাতে পৌঁছানোর চার দিন ও আট দিন পর আরও দুই দফায় নমুনা পরীক্ষার কারণে তাদের কষ্ট ও আর্থিক খরচ বিবেচনায় নেওয়া হয় সকালে। এজন্য বর্তমানে যে ছয়টি ল্যাব নমুনা পরীক্ষার জন্য প্রস্তুত আছে তাদের প্রস্তাবিত ভিন্ন ভিন্ন মূল্য কমানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। প্রতিটা ল্যাবকে অভিন্ন মূল্যে কাজ শুরু করার নির্দেশনা দেওয়া হয়। একইসঙ্গে স্বাস্থ্য প্রকৌশক বিভাগকে বিমানবন্দরে ল্যাব স্থাপনের জন্য প্রয়োজনীয় জৈববলয় সুরক্ষা ব্যবস্থা নিশ্চিত করার নির্দেশনাও দেওয়া হয়।

বিজ্ঞাপন

সূত্র আরও জানায়, এ সময় ল্যাব কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলে তাদের একসঙ্গে কাজ করার নির্দেশনা দেওয়া হয়। একইসঙ্গে বেবিচককে নির্দেশনা দেওয়া হয় ল্যাবগুলো থেকে প্রয়োজনীয় বিদ্যুৎ ও অন্যান্য বিল বিষয়ে নির্দেশনা দেওয়ার জন্য। এ সময় জোর দেওয়া হয় বর্জ্য ব্যবস্থাপনার বিষয়েও। যদি কোনো ল্যাব নির্ধারিত সময়ে মেশিন না বসাতে পারে বা পরিকল্পনা অনুযায়ী কাজ না করতে পারে তবে তাদের পরিবর্তে অন্য প্রতিষ্ঠানকে নির্ধারণ করার বিষয়েও জানানো হয়।

পরবর্তীতে স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানার সভাপতিত্বে বিমানবন্দরে আরেকটি বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এতে উপস্থিত ছিলেন শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর, প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় এবং স্বাস্থ্য অধিদফতরের একাধিক দায়িত্বশীল কর্মকর্তা।

বিজ্ঞাপন

সভায় শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের নির্বাহী পরিচালক উইং কমান্ডার এ এইচ এম তৌহিদ উল আহসান ও বিভিন্ন সংস্থার কর্মকর্তারাসহ উপস্থিত ছিলেন ছয়টি ল্যাবের কর্মকর্তারা।

বৈঠকে ল্যাব কর্তৃপক্ষ একসঙ্গে কাজ করা বিষয়ে জানায়। এই ছয়টি ল্যাব একটি সমঝোতা স্মারক সই করে একত্রিত হয়ে একটি এসওপি গঠনের বিষয়ে রাজি হয়।

সভায় নমুনা পরীক্ষার মূল্য অভিন্ন করার বিষয়েও জানানো হয়েছে। একইসঙ্গে খুব দ্রুত নমুনা পরীক্ষা শুরুর জন্য স্বাস্থ্য প্রকৌশল বিভাগের কর্মকর্তাদের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে স্বাস্থ্য প্রকৌশল বিভাগের কর্মকর্তারা জানান, নিরাপত্তা বলয় নিশ্চিত করে বিমানবন্দরের ভেতরে যে ল্যাব স্থাপন করতে বলা হয়েছে তা খুব দ্রুতই শুরু হবে। ল্যাব স্থাপনের জন্য আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা করব। আর তাই আশা করছি তিন থেকে পাঁচ দিনের মধ্যে এটি শেষ করা যাবে। এরপরে দুই থেকে তিন দিন সময় নিয়ে ল্যাবগুলোতে নমুনা পরীক্ষা শুরু করা হবে।

সূত্র জানায়, বৈঠকে ল্যাব স্থাপনের কাজ করতে ইচ্ছুক প্রতিটি প্রতিষ্ঠানকে আরটি পিসিআর মেশিনের পাশাপাশি র‍্যাপিড পিসিআর মেশিনের প্রস্তুতি নিয়ে রাখার বিষয়েও জানানো হয়েছে।

এ বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. এ বি এম খুরশীদ আলমের সভাপতিত্বে গঠন করা কারিগরি কমিটির সদস্যরা।

মূলত কম দাম বিবেচনায় নিয়ে এবং নমুনা পরীক্ষার প্রয়োজনীয়তার কারণে আরটি পিসিআর নমুনা পরীক্ষা শুরু করার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। আপাতত বিমানবন্দরের ভেতরে ল্যাব স্থাপনের কাজ শুরু হলেও পার্কিং জোনের ছাদে কোনো ল্যাব নির্মাণের কাজ চালানো হবে না বলেও নির্দেশনা দেওয়া হয়।

এর আগে, আগস্টের শেষে বাংলাদেশসহ ১০টি দেশ থেকে আগতদের জন্য ফ্লাইটের ছয় ঘণ্টা আগে বিমানবন্দর থেকেই র‍্যাপিড পিসিআর পদ্ধতিতে নভেল করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) নমুনা পরীক্ষার শর্ত আরোপ করে সংযুক্ত আরব আমিরাত কর্তৃপক্ষ। এই শর্ত পূরণে বিমানবন্দরে ল্যাব স্থাপনের জন্য গত ১ সেপ্টেম্বর প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী ইমরান আহমেদের সভাপতিত্বে একটি আন্তঃমন্ত্রণালয় একটি বৈঠক হয়। বৈঠকে ল্যাব স্থাপনের জন্য প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়কে কারিগরি বিষয়গুলো দেখভালের দায়িত্ব দেওয়া হয়। আর অবকাঠামোগত বিষয়গুলো দেখার দায়িত্ব দেওয়া হয় বেবিচককে।

এ বিষয়টি বাস্তবায়নে একটি কারিগরি কমিটিও গঠন করে দেওয়া হয়। কারিগরি কমিটির বৈঠকের পর গত ১৫ সেপ্টেম্বর সাতটি প্রতিষ্ঠানকে আরটি-পিসিআর ল্যাব স্থাপনের অনুমতি দিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করে প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়। এর মধ্যে ছয়টি প্রতিষ্ঠান তাদের কাজের পরিকল্পনা জানিয়ে আরব আমিরাতের দূতাবাসে এসওপি পাঠিয়েছে। এর মধ্যে একবার বিমানবন্দরের পার্কিং লটে, একবার বিমানবন্দরের ছাদে ল্যাব স্থাপনের জায়গা ওই সাত প্রতিষ্ঠানকে দেখিয়ে দিয়েছে বেবিচক। কিন্তু মঙ্গলবার পর্যন্ত সেই ল্যাব স্থাপনের কাজ শুরুই হয়নি।

সারাবাংলা/এসবি/এসএসএ

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন