বিজ্ঞাপন

‘মানুষের জন্য কল্যাণকর সব প্রকল্প বাস্তবায়িত হবে’

September 22, 2021 | 5:05 pm

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: মানুষের জন্য কল্যাণকর সব প্রকল্প বাস্তবায়িত হবে বলে মন্তব্য করেছেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম। তিনি বলেছেন, কোনো প্রকল্পে উন্নয়ন সংস্থার অর্থায়ন না পেলেও সরকার নিজস্ব অর্থায়নে তা বাস্তবায়ন করবে। সরকার সেটা করছে কারণ সেই সক্ষমতা আমাদের রয়েছে।

বিজ্ঞাপন

বুধবার (২২ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর হোটেল সোনারগাঁওয়ে স্থানীয় সরকার বিভাগ আয়োজিত ইনকাম সাপোর্ট প্রোগ্রাম ফর দ্যা পুওরেস্ট’র (আইএসপিপি) যত্ন প্রকল্পের অধীন ‘গুড প্র্যাকটিস অ্যান্ড লেসন লার্নড’ ওয়ার্কশপের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, দেশ ও মানুষের উন্নয়নে অনেক প্রকল্প নেওয়া হচ্ছে। উদ্দেশ্য হচ্ছে ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত-সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ে তোলা। শুধু প্রকল্প নিয়ে নিলেই হবে না, এগুলো দ্রুত বাস্তবায়ন করতে হবে। প্রকল্প নেওয়া হয়, আবার শেষও হয়। কিন্তু প্রকল্প থেকে শিক্ষা নিতে হবে এবং প্রকল্পের গুড প্র্যাকটিসগুলো পরবর্তীতে কাজে লাগাতে হবে।

বিজ্ঞাপন

তিনি বলেন, দেশের প্রতিটি মানুষই সম্পদ। প্রত্যেকটি মানুষের মধ্যে সম্ভাবনা রয়েছে। তাদের সেই সুপ্ত প্রতিভাকে কাজে লাগাতে হবে।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের একটি উক্তি উল্লেখ করে মন্ত্রী জানান, বঙ্গবন্ধু মহান স্বাধীনতা যুদ্ধের পর ধ্বংসপ্রাপ্ত দেশ পেয়ে বলেছিলেন ‘দেশে কিছু থাক আর না থাক আমার মাটি ও মানুষ আছে। সেই মাটি ও মানুষকে সম্পদে রুপান্তরিত করে দেশ গড়ার কাজ শুরু করেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

মন্ত্রী বলেন, নিজ সন্তানের জন্য, প্রতিবেশীর জন্য, দেশের মানুষের জন্য সর্বোপরি বিশ্ব মানবতার জন্য কাজ করতে হবে। একটি নির্দিষ্ট সময়ের জন্য বা আমি যতদিন বেঁচে থাকব শুধু সেই সময়ের কথা চিন্তা করে উন্নয়ন করব এটা ঠিক না। এ ধরনের মানসিকতার পরিবর্তন করতে হবে।

তিনি বলেন, স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানসমূহ যেমন ইউনিয়ন পরিষদ, উপজেলা পরিষদ, পৌরসভাগুলিকে শক্তিশালী করার কোনো বিকল্প নেই। এগুলোকে শক্তিশালী বা ক্ষমতায়নের মাধ্যমে দেশের চিত্র পরিবর্তন করা সম্ভব।

বিজ্ঞাপন

যত্ন প্রকল্পকে একটি ব্যতিক্রমী প্রকল্প হিসেবে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, এই প্রকল্পের মাধ্যমে অন্তঃসত্ত্বা নারী এবং তার শিশু যারা আগামী দিনের ভবিষ্যৎ, তাদের স্বাস্থ্যসেবায় সরাসরি অর্থ সহায়তা দেওয়া হয়। এই প্রকল্পটি বর্তমান সরকারের একটি যুগান্তকারী ও সময়োপযোগী পদক্ষেপ।

স্থানীয় সরকার বিভাগের অতিরিক্ত সচিব ও যত্ন প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক দীপক চক্রবর্তীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ বিশ্বব্যাংকের অপারেশন ম্যানেজার ড্যানডেন চেন বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/জেআর/এসএসএ

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন