বিজ্ঞাপন

দীপন ও সুমনকে যে কারণে ধন্যবাদ দিলো পরিচালক সমিতি

September 22, 2021 | 6:02 pm

আহমেদ জামান শিমুল

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতি চিত্রপরিচালক দীপংকর দীপন ও চিত্রনায়ক এবিএম সুমনকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়ে এক চিঠি দিয়েছে। চিঠিতে ‘হৃদিতা’ ছবির কাজে সহায়তার জন্য তাদের দুজনের প্রশংসা করা হয়। দীপন সারাবাংলাকে জানিয়েছেন এ চিঠির পিছনের গল্প।

বিজ্ঞাপন

সমিতির সভাপতি সোহানুর রহমান সোহান স্বাক্ষরিত চিঠিতে দীপন ও সুমনের উদ্দেশ্যে লেখা হয়েছে, ‘আমার মৌখিক টেলিফোনের আলোচনায় আপনারা দুজন বাংলাদেশ চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির সম্মানিত সদস্য জনাব এম এন ইস্পাহানীর সরকারি অনুদানের ছবি ‘হৃদিতা’ সঠিক সময়ে শুটিংয়ের কাজ শেষ করে দেওয়ার জন্য যে সহযোগিতা করেছেন, তার জন্য আপনাদের দুজনের প্রতি আমার কৃতজ্ঞতা, ধন্যবাদ এবং ভালোবাসা রইলো।’

কী ধরনের সহযোগীতা করেছিলেন দীপংকর দীপন ও এবিএম সুমন। এ নিয়ে সারাবাংলার সঙ্গে কথা বলেন দীপন।

বিজ্ঞাপন

তিনি বলেন, ইস্পাহানী ভাইয়ের ‘হৃদিতা’ ও আমাদের ‘অন্তর্জাল’-এর শুটিং একইসময়ে পড়েছিল। আমরা বান্দরবানে শুটিংয়ের সরকারি অনুমতি নিয়েছিলাম। আবার ‘হৃদিতা’ ছবির গল্প অনুযায়ী সুনামগঞ্জের হাওরে ওই মুহুর্তে যে পরিমাণ পানি আছে পরে শুটিং করলে তা পাওয়া যাবে না। ওই মুহূর্তে সোহানুর রহমান সোহান ভাই এগিয়ে আসলেন। তার মধ্যস্থতায় এ সমস্যার সমাধান হয়।

সমাঝোতা অনুযায়ী সুমন আগস্টের শেষ সপ্তাহের প্রথম কয়েকদিন ‘অন্তর্জাল’-এর শুটিং করে দেন। কারণ শুটিংগুলো ঢাকায় ছিল। এছাড়া অনেক শিল্পীর শিডিউল নেওয়া ছিল। আবারএরপর পরপরই ‘অন্তর্জাল’-এর বান্দরবানে শুটিং করার কথা থাকলেও তা পিছিয়ে ৫ অক্টোবর নিয়ে যাওয়া হয়। ফলে ২৭ আগস্ট থেকে সুমন ‘হৃদিতা’য় অংশ নেন।

বিজ্ঞাপন

তবে এখন সুমন ফ্রি থাকলেও ‘আন্তর্জাল’-এর শুটিং করছেন না দীপন। কারণ হিসেবে জানান, তার ছবিতে সুমনের গোঁফ রয়েছে আবার ‘হৃদিতা’য় নেই। আর তিনি চান সুমনের গোঁফটা আসল হোক। তাই সবকিছু হিসেব করেই অক্টোবরে শুটিং নেওয়া হয়েছে।

পুরো ঘটনায় ইস্পাহানী ও দীপন দুজনেই ছাড় দিয়েছেন। কিন্তু পরিচালক সমিতির প্রশংসাপত্র পাবেন তা ভাবেননি। দীপন বলেন, ‘এধরনের প্রশংসাপত্র সত্যিই ভালো কাজের অনুপ্রেরণা দেয়। আমি খুবই কৃতজ্ঞ সমিতির প্রতি।’

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এজেডএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন