বিজ্ঞাপন

রিয়ালকে বার্নাব্যুতে হারিয়ে নবাগত শেরিফের ইতিহাস

September 29, 2021 | 8:00 am

স্পোর্টস ডেস্ক

শেরিফ তিরাস্পোল। নামটা শুনেছেন? না শুনলে নিশ্চয় আপনাকে শূলে চড়ানো হবে না। এই প্রথম উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগে খেলতে এসেছে মলদোভান ক্লাবটি। তবে আজ নিশ্চয় অনেকেই চিনে রাখবে ক্লাবটিকে। প্রথমবার চ্যাম্পিয়ন্স লিগ খেলতে এসেই যে রেকর্ড ১৩ বারের শিরোপাজয়ী রিয়াল মাদ্রিদের মতো দলকে হারিয়ে দিল শেরিফ। সেটাও রিয়াল মাদ্রিদের মাঠ সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে!

বিজ্ঞাপন

২৫ মিনিটে ইয়াসুরবেক ইয়াখশিবোয়েভের গোলে এগিয়ে যায় শেরিফ। ৬৫ মিনিটে পেনান্টি গোলে সমতা ফেরান করিম বেনজেমা। ৮৫ মিনিটে গোল করে শেরিফকে স্বপ্নের এক জয় এনে দেন সেবাস্তিয়েন থিল। নাতি-নাতনিদের কাছে গল্প করার মতো একটা উপলক্ষ্য আজ পেয়ে গেলেন ইয়াখশিবোয়েভ, থিলরা।

ম্যাচ শেষে রিয়াল মাদ্রিদ কোচ কার্লো আনচেলত্তি বলছিলেন, 'ম্যাচে কি হলো, সেটা ব্যাখ্যা করা কঠিন। আমার কষ্ট হচ্ছে, কারণ এই ম্যাচে আমাদের হার প্রাপ্য ছিল না। ভাগ্য আমাদের সঙ্গে ছিল না আজ।'

বিজ্ঞাপন

মাদ্রিদ কোচ এমন কথা বলতেই পারেন। পুরো ম্যাচে আধিপত্য ছিল রিয়ালের। ৭৬ শতাংশ বলের দখল ধরে রেখে ৩১টি শট নিয়েছে রিয়াল। কিন্তু গোল হয়েছে মাত্র একটি। অপর দিকে যোজন-যোজন পিছিয়ে থাকা শেরিফ শট নিতে পেরেছে ৪টি, তার মধ্যে গোল হয়েছে দুটি।

১৮ মিনিটে করিম বেনজেমার ফ্রি-কিক ঝাঁপিয়ে পড়ে রুখে দেন শেরিফ গোলরক্ষক। তার ছয় মিনিট পর এগিয়ে যায় শেরিফ। মাঝমাঠ থেকে দারুণ এক বল বাড়ান ক্রিশ্চিয়ানো। ফাঁকায় দাঁড়ানো ইয়াখশিবোয়েভ দেখেশুনে হেডে বল জালে জড়িয়ে দেন। ৩৫ মিনিটে থিবো কোর্তোয়া বিপদের কারণ হতে যাচ্ছিল রিয়ালের। বল ক্লিয়ার করতে গিয়ে প্রতিপক্ষের এক খেলোয়াড়ের পায়ে বল তুলে দেন রিয়াল গোলরক্ষক। তবে শেরিফ সুযোগটা কাজে লাগাতে পারেনি। শট চলে যায় পোস্ট ঘেঁষে।

বিজ্ঞাপন

৩৫ মিনিটে শট লক্ষ্যে রাখতে পারেননি ভিনিসিয়ুস জুনিয়র। পরের মিটিনে এডেন হ্যাজার্ডের শট রুখে দেন শেরিফ গোলরক্ষক। ৪২ মিনিটে কাসেমিরোকেও হতাশ করেন শেরিফ গোলরক্ষক।

দ্বিতীয়ার্ধের গোলের খোঁজে আক্রমণ বাড়ায় রিয়াল। কিন্তু কাজের কাজটা হচ্ছিল না। ৬৫ মিনিটে ভিনিসিয়ুসকে ডি-বক্সে ফেলে দেন ব্রাজিলিয়ান ডিফেন্ডার ফের্নান্দো। পেনাল্টি পেয়ে যায় রিয়াল। স্পট কিকে গোল করে দলকে সমতায় ফেরান করিম বেনজেমা।

বিজ্ঞাপন

৭৫ মিনিটে লুকা মডরিচের দুর্দান্ত এক শট ঠেকিয়ে দেন শেরিফ গোলরক্ষক। ৮২ মিনিটে কাছাকাছি বল পেয়েও জালে জড়াতে ব্যর্থ রদ্রিগো। ৮৫ মিনিটে দারুণ এক প্রতিআক্রমণে হঠাৎ বল পেয়ে যান অরক্ষিত থিল। তার বুলেট গতির শট রুখতে পারেননি কোর্তোয়া। এরপর বহু চেষ্টা করেও গোল আদায় করতে পারেনি রিয়াল। শেষ পর্যন্ত ২-১ গোলের হার নিয়েই মাঠ ছাড়তে হয়েছে মাদ্রিদের ক্লাবটিকে।

সারাবাংলা/এসএইচএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন