বিজ্ঞাপন

মুসা বলছেন প্রতারণার শিকার, ডিবি বলছে দায় এড়াতে পারেন না

October 12, 2021 | 11:32 pm

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: বহুল আলোচিত ধনকুবের মুসা বিন শমসের বলেছেন, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের এক ভুয়া অতিরিক্ত সচিবের (আব্দুল কাদের) প্রতারণার শিকার তিনি। ওই ব্যক্তির বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ারও ঘোষণা দিয়ে রেখেছেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

মঙ্গলবার (১২ অক্টোবর) বিকেলে গোয়েন্দা পুলিশের কার্যালয়ে যান মুসা বিন শমসের। সেখানে সাড়ে তিন ঘণ্টার বেশি সময় ধরে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। পরে ডিবি কার্যালয় থেকে বের হওয়ার সময় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মুসা বিন শমসের এসব কথা বলেন।

মুসা বিন শমসের বলেন, এক ফ্রড (প্রতারক) অতিরিক্ত সচিব পরিচয়ে ভুয়া কার্ড ছাপিয়ে তার অফিসে গিয়েছিলেন। তার সঙ্গে বিভিন্ন সময় ছবি তোলাসহ সঙ্গে বসে ঊর্ধ্বতন লোকদের সঙ্গে কথা বলতেন ওই ব্যক্তি। তাদের মধ্যে আইজিপি, আর্মি জেলারেলসহ ঊর্ধ্বতনরা ছিলেন। তার প্রেক্ষিতে বিশ্বাস তৈরি হয়েছিল, সে (আব্দুল কাদের) অতিরিক্ত সচিব। কিন্তু পরে প্রমাণিত হলো, সে ভুয়া অতিরিক্ত সচিব। সঙ্গেসঙ্গেই তাকে বের করে দিয়েছেন।

বিজ্ঞাপন

তিনি বলেন, ডিবি তাকে ওই আব্দুল কাদেরের বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে। তিনি যা জানেন সব স্পষ্ট করে বলেছেন। তার বক্তব্যে ডিবি পুলিশ সন্তুষ্ট।

আইন উপদেষ্টার পরিচয় দেওয়া নিয়ে মুসা বিন শমসের বলেন, আব্দুল কাদের মিথ্যা কথা বলেছে। সে তার আইন উপদেষ্টা ছিল না।

বিজ্ঞাপন

ছবি তোলার বিষয়ে তিনি বলেন, তার সঙ্গে অনেক লোক এসে ছবি তোলে। কেউ ছবি তুলতে চাইলে তিনি না করতে পারেন না। ছবি দেখিয়ে কেউ যদি প্রতারণা করে, সেটার দায়-দায়িত্ব তিনি নিতে পারেন না।

প্রতারক আব্দুল কাদেরের সঙ্গে ২০ কোটি টাকার চেকের লেনদেনের তথ্য পাওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, চেক তিনি ফেরত দিয়ে দিয়েছেন।

বিজ্ঞাপন

এদিকে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের যুগ্ম কমিশনার হারুন অর রশীদ সাংবাদিকদের বলেন, মুসা বিন শমসেরকে প্রায় সাড়ে ৩ ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে।

প্রতারক আব্দুল কাদেরকে গ্রেফতারের পর গত রোববারই মুসা বিন শমসেরকে ডেকেছিল ডিবি। কিন্তু তিনি আসেননি। পরিবর্তে তার ছেলে আইনজীবী জুবি মুসা ডিবি কার্যালয়ে আসেন। তবে তিনি সব প্রশ্নের সন্তোষজনক জবাব দিতে পারেননি।

বিজ্ঞাপন

হারুন অর রশীদ বলেন, ব্যবসায়ী মুসা বিন শমসের প্রতারক আব্দুল কাদের মাঝির অপরাধের দায় এড়াতে পারেন না। তিনি প্রতারক কাদেরকে তার আইন উপদেষ্টা হিসেবে নিয়োগ দিয়েছেন। তাকে ২০ কোটি টাকার চেক দিয়েছেন। তাকে 'বাবা', 'সোনা' বলেও ডাকতেন। তার সঙ্গে আব্দুল কাদেরের বহুবার যোগাযোগের প্রমাণ মিলেছে। মুসা বিন শমসেরকে প্রয়োজনে আবারও জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডাকা হবে বলে জানান তিনি।

সারাবাংলা/ইউজে/একেএম

বিজ্ঞাপন

Tags:

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন