বিজ্ঞাপন

নেপালের বিপক্ষে এগিয়ে বাংলাদেশই

October 13, 2021 | 10:37 am

স্পোর্টস ডেস্ক

সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে নেপালের বিপক্ষে বাংলাদেশের লড়াইটা বাঁচা মরার। গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে হিমালয় কন্যাদের বিপক্ষে জয়ের বিকল্প নেই বাংলাদেশের। জিতলে ফাইনাল আর হারলে মালে থেকে দেশের ফেরার টিকিট। নেপালের বিপক্ষে বাংলাদেশকে স্বস্তি যোগাচ্ছে অতীত পরিসংখ্যান। তবে নেপাল দলের সাম্প্রতিক ফর্ম ঠিকই ভাবনায় ফেলছে বাংলাদেশকে। তবে কেবলই ওই পরিসংখ্যান হিসাব করলে বাংলাদেশই এগিয়ে। বুধবার (১৩ অক্টোবর) মালেতে নেপালের বিপক্ষে বাংংলাদেশের ম্যচটি শুরু হবে বিকেল ৫টায়।

বিজ্ঞাপন

গ্রুপ পর্বে নিজেদের তিন ম্যাচে একটি করে জয়, ড্র এবং হার বাংলাদেশের। অন্যদিকে নেপাল নিজেদের প্রথম দুই ম্যাচে জয়ের পর ভারতের বিপক্ষে হেরে বসেছে। তাই তো শেষ ম্যাচটি নেপালের জন্যও কম গুরুত্বপূর্ণ নয়। বাংলাদেশের বিপক্ষে পা হড়কালেই ফিরতে হবে খালি হাতে। তাই তারাও অস্কার ব্রুজনের হাত ধরে বদলে যাওয়া বাংলাদেশকে নিয়ে দুঃশ্চিন্তায় কপালে ভাজ ফেলছেন।

আরও পড়ুন: নেপালকে হারালেই ফাইনালে বাংলাদেশ

বিজ্ঞাপন

আন্তর্জাতিক ফুটবলে নেপালের বিপক্ষে এগিয়ে বাংলাদেশই। ১৯৮৩ সাল থেকে শুরু করে চলতি বছরের মার্চ পর্যন্ত নেপালের সঙ্গে ২৪টি আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেছে বাংলাদেশ। যার মধ্যে ১২ জয়ের বিপরীতে জামালদের হার ৮টি। বাকি চার ম্যাচ ড্র।

নেপালের বিপক্ষে ১৯৮৩ সালে মারদেকা কাপে প্রথমবারের মতো নেপালের বিপক্ষে খেলতে নামে বাংলাদেশ। সেবার নেপালকে ১-০ গোলের ব্যবধানে পরাজিত করেছিল বাংলাদেশ। পরের বছরই সাউথ এশিয়ান গেমসে ৫-০ গোলে জয় পায় লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা। যদিও আসরের ফাইনালে সেই নেপালের কাছে হেরেই শিরোপা হাতছাড়া হয় বাংলাদেশের। সেবার ৪-২ গোলে টাইগারদের হারিয়ে সোনা জিতে নিয়েছিল স্বাগতিক নেপাল।

বিজ্ঞাপন

এর দুই বছর পর ১৯৮৬ সালে এশিয়ান গেমসে বাংলাদেশের জয়। পরের বছর এসএ গেমসে হারলেও পরের ১৪ বছরে বাংলাদেশকে আর হারাতে পারেনি নেপাল। এই সময়ে খেলা ৮টি ম্যাচের সবক’টিতে জয় পায় লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা।

নেপালের বিপক্ষে এগিয়ে বাংলাদেশই

বিজ্ঞাপন

তবে এরপরেই বদলে যায় প্রেক্ষাপট। এক সময় বাংলাদেশের কাছে নিয়মিত নাকানি চুবানি খাওয়া নেপাল দল হিমালয়ের মতো শক্তিশালী হয়ে হাজির হয়। ২০১১, ২০১৩ ও সর্বশেষ ২০১৮তে নেপালের কাছে হেরে টুর্নামেন্ট থেকেই বিদায় নিয়েছিল বাংলাদেশ। ২০১১ দিল্লি সাফের প্রথম ম্যাচে পাকিস্তানের বিপক্ষে ড্র করে দ্বিতীয় ম্যাচে যখন জয়টা ছিল অতি কাঙ্ক্ষিত, তখনই হাজির অদম্য এক নেপাল। ৯০ মিনিটে গোলশূন্য থাকার পর অতিরিক্ত পাঁচ মিনিটের শেষ মিনিটে সাগর থাপার ফ্রি-কিকে শেষ হয়ে যায় বাংলাদেশ।

২০১৩ সালে সাফের পরের আসরে কাঠমান্ডুতে গ্রুপের প্রথম ম্যাচটাই ছিল স্বাগতিক নেপালের বিপক্ষে। দশরথ রঙ্গশালায় গতিময় ফুটবল খেলা নেপালের কাছে বাংলাদেশের হার ২-০ গোলের ব্যবধানে। এমন হারে শুরুর পর আর ঘুরে দাঁড়ানো হয়নি।

বিজ্ঞাপন

দু'বছর পর ২০১৫ সালে কেরালায় আবারও বসে সাফের আসর। সেবার অবশ্য নেপালের সঙ্গে দেখায় হয়নি বাংলাদেশের। কিন্তু ২০১৮ সালে ঘরের মাঠে বাংলাদেশকে দুঃখের মালা পরিয়েছে সেই নেপালই। ভুটান ও পাকিস্তানকে পরপর দু’ম্যাচে হারিয়ে উড়তে থাকা বাংলাদেশের শেষ ম্যাচে প্রয়োজন ছিল স্রেফ এক পয়েন্ট, যা তাদের নিয়ে যেত সেমিফাইনালে। কিন্তু গোলরক্ষক সোহেল এমনই হাস্যকর এক গোল খেয়ে বসলেন, তাতেই ম্যাচটা থেকে ছিটকে যায় বাংলাদেশ।

দুই দলের শেষ দেখাতেও শেষ হাসিটা হেসেছে হিমালয় কন্যারা। চলতি বছর মার্চে নেপালে তিন জাতি আমন্ত্রণমূলক এক টুর্নামেন্টে অংশ নেয় বাংলাদেশ। তিন জাতির এই টুর্নামেন্টে ভুটানের বিপক্ষে জয় আর স্বাগতিক নেপালের সঙ্গে গোলশূন্য ড্র করে বাংলাদেশ সুযোগ করে নেয় ফাইনালে। ফাইনালে নেপালের কাছে ২-১ গোলের ব্যবধানে হেরে হাতছাড়া শিরোপা।

সাত মাস পর আবারও সেই নেপালের সামনে বাংলাদেশ। তবে এবার দলে এসেছে বড় এক পরিবর্তন। বাংলাদেশ দলের ডাগআউটের দায়িত্ব নিয়েছেন বসুন্ধরা কিংসের স্প্যানিশ কোচ অস্কার ব্রুজন। তার ছোঁয়ায় রক্ষণাত্মক ফুটবল খেলা থেকে বেরিয়ে এসে বেশ আক্রণাত্মক ফুটবল খেলছে বাংলাদেশ দল। এর মধ্যেই ভারতের মতো দলকেও আটকে দিয়েছে বাংলাদেশ। তবে টুর্নামেন্টে উড়তে থাকা নেপালের বিপক্ষে জিততে হলে আক্রমণ, রক্ষণ আর মধ্যমাঠ তিন বিভাগেই খেলতে হবে সেরা ফুটবল।

হিসাবটা বেশ সহজ। নেপালকে হারাতে পারলেই সরাসরি ফাইনালের টিকিট। বাংলাদেশ কি পারবে এই বাধা টপকিয়ে ১৬ বছর পর সাফের ফাইনাল নিশ্চিত করতে?

ভারতের আয়োজনে সংযুক্ত আরব আমিরাত ও ওমানে অনুষ্ঠিত হচ্ছে ২০২১ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। এবারের বিশ্বকাপের সবকটি ম্যাচ সরাসরি সম্প্রচার করবে দেশের জনপ্রিয় স্যাটেলাইট চ্যানেল জিটিভি। এছাড়াও বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় অনলাইন প্ল্যাটফর্ম র‍্যাবিটহোলের ওয়েবসাইটে দেখা যাবে বিশ্বকাপের খেলা। অনলাইনে র‍্যাবিটহোলে খেলা দেখতে ব্রাউজ করুন https://www.rabbitholebd.com/

সারাবাংলা/এসএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন