বিজ্ঞাপন

সাম্প্রদায়িক সহিংসতা: এ পর্যন্ত ৭১ মামলায় আটক ৪৫০

October 19, 2021 | 12:16 am

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: দেশের বিভিন্ন জেলায় সাম্প্রদায়িক সহিংসতার ঘটনাগুলোতে এখন পর্যন্ত ৭১টি মামলা দায়ের করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। এসব মামলায় এ পর্যন্ত ৪৫০ জনকে আটক করা হয়েছে বলেও বাংলাদেশ পুলিশ জানিয়েছে।

বিজ্ঞাপন

আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় নিয়োজিত রাষ্ট্রীয় এই বাহিনী বলছে, বিভিন্ন স্থানে পূজা মণ্ডপকেন্দ্রিক ‘অপ্রীতিকর’ এসব ঘটনায় আরও কিছু মামলা দায়েরের বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। মামলাগুলোতে আটকের সংখ্যাও আরও বাড়তে পারে। অপরাধীদের গ্রেফতারে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

সোমবার (১৮ অক্টোবর) রাতে পুলিশ সদর দফতর থেকে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বার্তায় এসব তথ্য জানানো হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গুজব বা বিভ্রান্তি ছড়িয়ে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিচ্ছে পুলিশ।

বিজ্ঞাপন

আরও পড়ুন- ‘ধর্ম অবমাননা’র পোস্ট দেওয়া পীরগঞ্জের সেই কিশোর গ্রেফতার

বাংলাদেশ পুলিশ বলছে, সাম্প্রতিক সময়ে দেশে বিদ্যমান সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করতে কিছু ব্যক্তি ও গোষ্ঠী উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গুজব ও বিভ্রান্তি ছড়িয়ে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি তৈরির অপচেষ্টা করছে। আবার, অনেক ক্ষেত্রে চক্রান্তকারীরা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের পোস্ট কিংবা বিভিন্ন তথ্য বিকৃত বা অপব্যাখ্যা করে তা বিভিন্ন মাধ্যমে ছড়িয়ে সংঘাতমূলক পরিস্থিতি তৈরির অপচেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে।

বিজ্ঞাপন

এসব অপতৎপরতায় জড়িতদের ধরতে পুলিশের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে জানিয়ে ওই বার্তায় বলা হয়, বাংলাদেশ পুলিশের সংশ্লিষ্ট ইউনিটগুলো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গুজব ও বিভ্রান্তি ছড়ানো ব্যক্তিদের মনিটর করছে এবং তাদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার প্রকিয়া অব্যাহত রয়েছে।

আরও পড়ুন- হিন্দুদের সুরক্ষা ও সহিংসতার নিরপেক্ষ তদন্তের আহ্বান জাতিসংঘের

বিজ্ঞাপন

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ যেকোনো মাধ্যমে গুজব বা বিভ্রান্তি না ছড়াতে এবং যাচাই না করে কোনো খবর বিশ্বাস না করতে সবার প্রতি বিশেষভাবে অনুরোধ জানিয়েছে পুলিশ। যেকোনো অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি মোকাবিলায় জনগণের সার্বিক সহযোগিতাও প্রত্যাশা করছে রাষ্ট্রীয় এই বাহিনী।

এর আগে, গত ১৩ অক্টোবর কুমিল্লায় কোরআন শরিফ অবমাননার অভিযোগ এনে বেশকিছু মন্দিরে হামলা ও ভাঙচুর চালানো হয়। ওই ঘটনার জের ধরে নোয়াখালী, চট্টগ্রাম, ফেনী, চাঁদপুরসহ বেশ কয়েকটি জেলায় মন্দির ও মণ্ডপে হামলা-ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে। সহিংস পরিস্থিতি মোকাবিলায় পুলিশের গুলিতে চাঁদপুরে চার জনের মৃত্যুর ঘটনাও ঘটে।

বিজ্ঞাপন

উদ্ভূত পরিস্থিতিতে এর পরের কয়েকদিনেও দেশের বিভিন্ন স্থানে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের ওপর হামলা চলে। সবশেষ গতকাল রোববার (১৭ অক্টোবর) ফেসবুকে কাবা শরিফ অবমাননার অভিযোগে রংপুরের একটি জেলেপল্লিতে অন্তত ২০টি ঘরে আগুন দেওয়া হয়।

চলমান এসব সহিংসতা নিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল সোমবার সাংবাদিকদের বলেন, ‘রংপুরের পীরগঞ্জে হিন্দু ধর্মালম্বীদের ঘর-বাড়িতে যারা হামলা চালিয়েছে, আগুন জ্বালিয়ে দিয়েছে, তারা দুষ্কৃতিকারী। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত ৪৫ জনকে আটক করা হয়েছে এবং আরও আটকের চেষ্টা চলছে।’ কুমিল্লা-চাঁদপুরসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের বাড়িঘর, ব্যবসা-প্রতিষ্ঠান, মন্দির-মণ্ডপে হামলার ঘটনায় জড়িতদের খুঁজে বের করতে ‘একটু সময়’ চেয়েছেন তিনি।

সারাবাংলা/ইউজে/টিআর

বিজ্ঞাপন

Tags: , ,

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন